kalerkantho

26th march banner

মুখোমুখি প্রতিদিন

এশিয়ান ট্যুরে কোর্সটা পুরোপুরি বদলে যায়

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



এশিয়ান ট্যুরে কোর্সটা পুরোপুরি বদলে যায়

বসুন্ধরা ওপেনের গত দুটি আসরে বাংলাদেশের সেরা পারফরমার সাখাওয়াত হোসেন। প্রথমবার ১৯তম হয়েছিলেন, গতবার ষষ্ঠ। এবারও তাঁর দিকে নজর থাকছে। সাখাওয়াতের নিজের প্রত্যাশা ও প্রস্তুতির কথা জানতেই তাঁর মুখোমুখি হয়েছিল কালের কণ্ঠ স্পোর্টস।

 

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : এবার আপনার প্রস্তুতি কেমন?

সাখাওয়াত হোসেন : আমার প্রস্তুতি খুবই ভালো। এই টুর্নামেন্ট সামনে রেখে গত এক মাস আমি আমার কোচের সঙ্গে, মনোবিদের সঙ্গে কাজ করেছি। এর মধ্যে এশিয়ান ট্যুর কোয়ালিফাইং খেলেছি থাইল্যান্ডের ব্যাংককে। সেখানে ৯৪তম হয়েছি ১২০০ জনের মধ্যে। তাতে এ বছর সবগুলো এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ট্যুর টুর্নামেন্ট, সঙ্গে তিন লাখ ডলারের কয়েকটি এশিয়ান ট্যুর টুর্নামেন্টও খেলতে পারব। ঢাকায় আসার পর এখানেও একটা টুর্নামেন্টে তৃতীয় হয়েছি। তো, প্রস্তুতি নিয়ে সন্তুষ্ট।

প্রশ্ন : গত দুইবারই স্থানীয়দের মধ্যে সেরা পারফরমার ছিলেন, এটা অনুপ্রেরণা না চাপ?

সাখাওয়াত : অবশ্যই অনুপ্রেরণা। এই পর্যায়ে চাপ থাকেই। তা ছাড়া নিজেদের মাঠে খেলা, দর্শক, কর্তৃপক্ষ, পৃষ্ঠপোষকদেরও একটা প্রত্যাশা থাকে। তবে আন্তর্জাতিক গলফের অভিজ্ঞতার প্রত্যাশার সেই চাপ আমি কাটিয়ে উঠেছি। এখন এটা কোনো অজুহাত হতে পারে না। তাই আশা করি, টুর্নামেন্টে ইতিবাচক কিছুই হবে।

প্রশ্ন : এই কোর্সটা আপনাদের চেনা, এটা কি সুবিধা নয়?

সাখাওয়াত : এ ব্যাপারে অনেকে ভুল বোঝে। এটা চেনা মাঠ ঠিকই, কিন্তু যখন এশিয়ান ট্যুর হয়, এই কোর্সটাই তখন সম্পূর্ণ অন্য কন্ডিশনে চলে যায়। যখন এমনিতে আমরা খেলি, তখন এই কোর্সের এয়ারেজ যেমন থাকে, এশিয়ান ট্যুরে তার অনেক কিছু বদলে যায়। বল স্পিডে পার্থক্য দাঁড়ায় আকাশ-পাতাল। আপনাকে একটা উদাহরণ দিই, একজন ড্রাইভারকে ২০-৩০ স্পিডে গাড়ি চালানো শিখিয়ে হঠাৎ ৮০ মিটার স্পিডে তাঁকে মাঝরাস্তায় ছেড়ে দিলে তার কী অবস্থা হবে। এই কোর্সে সারা বছর অনুশীলন করেও এশিয়ান ট্যুরের সময় আমাদের স্থানীয় গলফারদের অনেকের এই অবস্থা হয়। পাটিংয়ের সময় সারা বছর এখানে ৯-এর বেশি স্পিড থাকে না, এশিয়ান ট্যুরের টুর্নামেন্টের সময় সেটা দাঁড়ায় সাড়ে ১১ থেকে ১২। তখন একটু এদিক-সেদিক হলে বল এমন জায়গায় চলে যায় যে সেখান থেকে পাটিং করাটা অনেক কঠিন হয়ে যায়।

প্রশ্ন : তার মধ্যেও আপনি ভালো করছেন কিভাবে?

সাখাওয়াত : বাইরের কোর্সগুলোতে খেলার অভিজ্ঞতা বড় ব্যাপার। এখানে স্থানীয়রা চাপ ছাড়াই খেলে। সেখানে ১০ আন্ডার পার খেলেই তা শিরোপার জন্য যথেষ্ট মনে হয়। কিন্তু ওই খেলাটা তারা এখানে খেললে কোর্স কন্ডিশনের কারণে সেই স্কোরই নেমে আসে ওভারে। তবে সিদ্দিক অনেক অভিজ্ঞ, সুস্থ থেকে স্বাভাবিক খেলা খেলতে পারলে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মতো স্কোর করা ওর জন্য ব্যাপার না।


মন্তব্য