kalerkantho


ফিল্ডিং কোচের ক্যাচ মিসের ব্যাখ্যা

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ফিল্ডিং কোচের ক্যাচ মিসের ব্যাখ্যা

ক্রীড়া প্রতিবেদক : নিউজিল্যান্ড সফরে একের পর এক ক্যাচ পড়েছে। সেখানে একের পর এক হারের সঙ্গে নিয়মিত ক্যাচ ফেলার দৃশ্যও ভারত সফর সামনে রেখে উদ্বেগ বাড়িয়ে তোলার পক্ষে যথেষ্ট। অথচ খুব বেশি দিন আগের কথা নয়, যখন ফিল্ডিং বিভাগেও বাংলাদেশকে বেশ দাঁড়িয়ে যাওয়া একটি দল বলেই মনে হচ্ছিল সবার। যদিও নিউজিল্যান্ড সফরে টপাটপ ক্যাচ ফেলার ঘটনায় ফিল্ডিং সাফল্য এখন বিস্মৃতপ্রায়। কিন্তু হঠাৎ করেই ক্যাচিংয়ের এই দুর্বলতা কেন দেখা দিল?

উত্তরটা সবচেয়ে ভালো জানার কথা বাংলাদেশ দলের ফিল্ডিং কোচ রিচার্ড হালসালের। কিছুদিন আগে পদোন্নতি পেয়ে সহকারী কোচ হওয়া এই ইংলিশকে অবশ্য নিউজিল্যান্ড সফরে খুব একটা সামনে পায়নি সংবাদমাধ্যম। এবার পেল ভারতে যাওয়ার আগে দিন-দুয়েকের অনুশীলন পর্বের প্রথম দিনেই। গতকাল অবশ্য অনুশীলন সবার জন্য বাধ্যতামূলক ছিল না। তবু অনুশীলনে এসেছিলেন মাহমুদ উল্লাহ, সাব্বির রহমান, সৌম্য সরকার, তামিম ইকবাল, নুরুল হাসান ও নাজমুল হাসানরা। নিজেদের ঝালিয়ে নিতে এঁদের বাড়তি পরিশ্রম করার দিনে ফিটনেস পরীক্ষা দিয়েছেন নিউজিল্যান্ড থেকে চোট নিয়ে ফেরা টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম, ইমরুল কায়েস ও মমিনুল হকরা। এখন তাঁদের পরীক্ষার ফল আসার অপেক্ষা। যদিও তাঁদের নিয়েও আশার কথাই শুনিয়েছেন হালসাল।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে তিনি সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হতেই অবধারিতভাবে সবার আগে উঠেছে নিউজিল্যান্ডে ক্যাচ ফেলার প্রসঙ্গ। জবাবে হালসাল বললেন, ‘নিঃসন্দেহে ফিল্ডিং হতাশাজনক ছিল আমাদের। ১৬ থেকে ১৭টি ক্যাচ ফেলেছি আমরা, যা আমাদের গ্রুপের কাছ থেকে আশাই করা যায় না। অথচ এ ক্ষেত্রে আমরা গত দুই বছর ছিলাম দুর্দান্ত। কাজেই এটি দুশ্চিন্তারই। ’ এই ক্যাচ ফেলায় নিউজিল্যান্ডের আবহাওয়া কিংবা প্রচণ্ড বাতাসের কোনো প্রভাব আছে কি না, এমন প্রশ্নে তিনি বলেছেন, ‘নাহ, আবহাওয়ার কোনো ভূমিকাই এতে নেই। দুটি কারণে আপনি ক্যাচ ফেলবেন। হয় আপনি টেকনিক্যালি খুব ভালো নন বলে অথবা মানসিকভাবে আপনি খেলার মধ্যে না থাকলে। আমাদের ক্ষেত্রে দুটিই ছিল। কারো সমস্যা টেকনিক্যাল, আবার কারো মানসিক। জনে জনে সমস্যা চিহ্নিত করে কাজ করতে হবে আমাদের। ’

হাতের বৃদ্ধাঙ্গুলে চোট পাওয়া মুশফিকের অবস্থা জানাতে গিয়ে হালসাল বলেছেন, ‘আজ মুশফিক কিপিং করেছে এবং কোনো ব্যথাই অনুভব করেনি। চোট পাওয়া আঙুলে ফিজিও বেশ দৃঢ় প্লাস্টারও করে দিয়েছে। আমরা অবশ্য আজ বেশি কিছু করাইনি। ভালো ব্যাপার হলো যতটুকুই করিয়েছি, তাতে মুশফিক ব্যথা অনুভব করেনি। ’ ইনডোরে ব্যাটিং করতে গিয়েও কোনো সমস্যা হয়নি মুশফিকসহ ঊরুর ইনজুরি নিয়ে ফেরা ইমরুল এবং বাউন্সারে পাঁজরে চোট পাওয়া মমিনুলেরও, ‘ফিল্ডিং সেশনে ইমরুল, মমিনুলও ব্যথা অনুভব করেনি। কাল (আজ) সকালে আবার ওদের দেখব। ’ এঁদের ভারত সফরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হতে তাই সে পর্যন্ত অপেক্ষাই থাকছে।


মন্তব্য