kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মুখোমুখি প্রতিদিন

চাপ নিলে পার্থক্য আরো বেশি হবে

গত জানুয়ারিতে টি-টোয়েন্টি দিয়ে তাঁর আন্তর্জাতিক অভিষেক। এরপর শুধু টি-টোয়েন্টিই খেলেছেন নুরুল হাসান, খেলেননি এমনকি ওয়ানডেও। অথচ এবার কিনা তিনি ঢুকে গেলেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম টেস্টের দলেই। চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের পর সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হওয়া এ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যানের সঙ্গে কথোপকথনটা শুরু হলো সেখান থেকেই

১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



চাপ নিলে পার্থক্য আরো বেশি হবে

প্রশ্ন : টি-টোয়েন্টি আর টেস্ট তো এক নয়। তা এত দিন শুধু টি-টোয়েন্টিই খেলা আপনার কাছে ব্যাপারটি চাপেরই হওয়ার কথা।

নুরুল হাসান : চাপের কিছুই নেই। চাপ অনুভব করলেই ব্যাপারটি অনেক কঠিন হয়ে যাবে। আমি তাই সব কিছু স্বাভাবিকভাবেই নিচ্ছি। তবে হ্যাঁ, দুই ফরম্যাটের মধ্যে পার্থক্য অবশ্যই আছে। আমি যেটা বুঝি, সেই কথা ভেবে চাপ নিয়ে ফেললে পার্থক্যটা আরো বেশি হয়ে যাবে। সে জন্যই চাপ না নিয়ে নির্ভার থাকতে পারলে ভালো।  

প্রশ্ন : কিন্তু ভিন্ন ভিন্ন ফরম্যাটের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপার তো নিশ্চয়ই আছে?

নুরুল : তা আছে। আর যখন যে ফরম্যাট আসে, আমি তার সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ারই চেষ্টা করি সব সময়। চেষ্টা করি পরিস্থিতি অনুযায়ী খেলার।

প্রশ্ন : দলে আপনাকে কোন ভূমিকায় নেওয়া হয়েছে, জানতে পেরেছেন কিছু?

নুরুল : আসলে কিছুই জানি না। আর আমি তো প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার মধ্যেই ছিলাম। কারো সঙ্গে সেভাবে তাই কথাই হয়নি। তবে কথা হলো টিম ম্যানেজমেন্ট যখন যে পজিশনেই খেলাতে চায়, আমার আপত্তি নেই। চেষ্টা করব দলের চাহিদা মেটানোর।

প্রশ্ন : দুই দিন পরই টেস্ট। প্রস্তুতি ম্যাচে উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়ে ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের দেখেছেন। তাঁদের নিয়ে আপনার পর্যবেক্ষণও আছে নিশ্চয়ই। সেটিই একটু জানতে চাচ্ছি।

নুরুল : ইংল্যান্ড তো ভালো দল অবশ্যই। টেস্টে তো আরো বেশি ভালো। দল জানতে চাইলে আমিও আমার পর্যবেক্ষণ জানাব। সত্যি কথা বলতে কি আজ (গতকাল) উইকেট টার্নিং হয়ে গিয়েছিল কিছুটা। তাই শেষ দিকে এসে স্পিনাররা সুবিধা পেয়েছে। সে জন্য ইংলিশ ব্যাটসম্যানদেরও সংগ্রাম করতে হয়েছে। তাই বলে এটি বলার সুযোগ নেই যে স্পিনের বিপক্ষে ওরা ভালো নয়।

প্রশ্ন : ক্রিকেট-সংশ্লিষ্ট অনেকেই মনে করে থাকেন, আপনি এই মুহূর্তে দেশের সেরা উইকেটরক্ষক। নিজের বিষয়ে এরকম কিছু শুনতে পাওয়াটা কতখানি দোলা দেয়?

নুরুল : আসলে আমি এসব নিয়ে কখনোই চিন্তা করিনি। আমি চাই আমার যতটুকু সামর্থ্য, তার সবটাই দিতে। বাইরে আমাকে নিয়ে কী আলোচনা হচ্ছে, সেসবে আমি একদমই কান দেই না। আমার কাজটিই আমি ঠিকমতো করে যেতে চাই।

প্রশ্ন : টেস্টের আগে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলাও কাজে দেবে নিশ্চয়ই?

নুরুল : তা তো অবশ্যই। প্রস্তুতি ম্যাচ খেলে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ পেলাম। যদি একাদশে সুযোগ পাই, এই ম্যাচের অভিজ্ঞতা কাজে লাগানোর চেষ্টা করব।


মন্তব্য