kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ড্রয়েই শেষ হলো প্রস্তুতি ম্যাচ

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ক্রীড়া প্রতিবেদক : রান না পেতে পেতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের একাদশেই জায়গা হারানো সৌম্য সরকার এবার এমন বড় কিছু করে ফেলেননি। তবে প্রথম দিনে একটি বলও মাঠে না গড়ানো প্রস্তুতি ম্যাচের দ্বিতীয় দিন অন্তত তাঁকে নড়বড়ে মনে হয়নি।

উইকেটে কাটিয়েছেন প্রায় দুই ঘণ্টার (১১৪ মিনিট) মতো, বলও খেলেছেন ৯৬টি। এই সময়ে দুটি করে ছক্কা আর বাউন্ডারিতে ৩৩ রান করা সৌম্যকে ইংলিশ বোলারদের কেউ আউটও করতে পারেননি।

সৌম্য গেছেন স্বেচ্ছা অবসরে। যেমন গেছেন এই ম্যাচে ব্যাটিংয়ে তাঁর চেয়েও উজ্জ্বল শাহরিয়ার নাফীস। গত দুই মৌসুম ধরেই ঘরোয়া ক্রিকেটে তাঁর ব্যাটে নিয়মিত রান। রানে থাকাতেই এই ইংল্যান্ড সিরিজ সামনে রেখে বাংলাদেশ দলের প্রস্তুতি শিবিরে সাড়ে তিন বছর পর ডাক পড়ে তাঁর। বিশেষ করে বড় দৈর্ঘ্যের ম্যাচের জন্যই এখন বেশি উপযোগী ভাবা হয় তাঁকে। সেই তিনি কাল ফিফটি করলেন অবশ্য ছোট হয়ে আসা ম্যাচেই। চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের ভেজা আউটফিল্ডের কারণে প্রথম দিনটি ভেস্তে যাওয়ায় দুই দল দ্বিতীয় দিন ৪৫ ওভারের ম্যাচ খেলায় সম্মত হয়। তাতে টস জিতে ব্যাটিং নেওয়া ইংল্যান্ড ৪৫ ওভারে ৪ উইকেটে ১৩৭ রানে ইনিংস ঘোষণা করে। জবাবে নাফীস ও সৌম্যর দৃঢ়তায় বিসিবি একাদশ ৪৪ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে তোলে ১৩৬ রান। ৭৯ বলে ফিফটিতে পৌঁছানো নাফীসের ৫১ রানের ইনিংসে পাঁচটি বাউন্ডারির মার। বলের হিসাবে সৌম্যর ইনিংসটি ছিল আরো বেশি স্থায়িত্বের। অন্যদের ব্যাটিংয়ের সুযোগ করে দিতে দুজনেই স্বেচ্ছা অবসরে যাওয়ার পর ৪৫ বলে চার বাউন্ডারি ও এক ছক্কায় ৩০ রান করেছেন এর আগে বল হাতে ২৭ রানে ৩ উইকেট নেওয়া সাব্বির রহমান। ইংল্যান্ডের ওপেনার বেন ডাকেটও ৫৯ রান করে স্বেচ্ছা অবসরে যান সতীর্থদের সুযোগ করে দিতে। প্রথম টেস্টের আগে প্রস্তুতি সেরে নেওয়ার আরেকটি সুযোগও মিলছে, আজ থেকেই শুরু হচ্ছে আরেকটি দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ।


মন্তব্য