kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


চট্টগ্রাম আবাহনী শীর্ষে

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



চট্টগ্রাম আবাহনী শীর্ষে

ক্রীড়া প্রতিবেদক : জাহিদ হোসেনের ঝলকে বড় হার্ডল পার হলো চট্টগ্রাম আবাহনী। তাঁর জোড়া গোলে ৩-১ গোলে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়াচক্রকে হারিয়ে ১০ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে এখন শীর্ষে চট্টগ্রাম আবাহনী।

আর তৃতীয় হারে মুক্তিযোদ্ধার সংগ্রহ ১৫ পয়েন্ট। দিনের অন্য ম্যাচে সানডে চিজোবার জোড়া গোলে ঢাকা আবাহনী ৩-১ গোলে হারিয়েছে উত্তর বারিধারাকে। সুবাদে ১০ খেলায় ২০ পয়েন্ট নিয়ে তারা দ্বিতীয় স্থানে।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দুই মিনিটে প্রথম আক্রমণ থেকেই চট্টগ্রাম আবাহনীকে এগিয়ে নেন জাহিদ হোসেন। কৌশিক বড়ুয়ার বাড়ানো বলটি আয়ত্তে নিয়ে ২৮ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড ডান পায়ের শটে লক্ষ্য ভেদ করেন। পিছিয়ে পড়ে মুক্তিযোদ্ধা চট্টগ্রাম আবাহনীর ডিফেন্সে চাপ দিয়েও ম্যাচে ফেরার গোল আদায় করতে পারেনি। বরং ১৩ মিনিটে লিওনেল প্রেক্সের শটে ব্যবধান বাড়তে পারত। ডিফেন্ডারের গায়ে লাগায় শটের দিক বদলে যাওয়ায় রক্ষা পেয়েছে মুক্তিযোদ্ধা। ৩৫ মিনিটেই জাহিদ নিজের দ্বিতীয় গোল পেতে পারতেন। তাঁর শট মুক্তিযোদ্ধা গোলরক্ষক মামুন খান পায়ে ঠেকাতে গিয়ে পারেননি, কিন্তু গোললাইন থেকে ফিরিয়েছেন এক ডিফেন্ডার। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে অবশ্য ম্যাচে ফেরার গোল পেয়ে গেছে মুক্তিযোদ্ধা। ৫১ মিনিটে সাইদুলের শট ক্রসবার ফিরিয়ে দিলে আহমেদ কোলো মুসা চট্টগ্রাম আবাহনীর জালে পাঠিয়ে ম্যাচে সমতা আনেন। এটি নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ডের পঞ্চম গোল।

তবে ম্যাচে ফেরার স্বস্তি ফিকে হয়ে যায় আট মিনিট বাদেই। মামুনুল ইসলামের ফ্রি-কিকে পা ছুঁইয়ে জাহিদ হোসেন নিজের দ্বিতীয় গোল করে আবার এগিয়ে নেন চট্টগ্রামের জায়ান্টকে। এই উইঙ্গারের পঞ্চম গোলে ম্যাচ জয়ের পথ তৈরি হলেও ৭০ মিনিটে ভেস্তে দেওয়ার মতো অবস্থা তৈরি হয়েছিল। দুর্দান্ত জায়গায় বল পেয়েও জাভেদ খান পোস্টে মারতে পারেননি। এই সমতার গোলের জন্য অতিমাত্রায় অ্যাটাকিং ফুটবল খেলে মুক্তিযোদ্ধা তৃতীয় গোল হজম করে। ইনজুরি টাইমে কাউন্টার অ্যাটাকে তারিক আল জানাবির লং পাস আয়ত্তে নিয়ে হাইতির লিওনেল প্রেক্স দুই ডিফেন্ডারের মাঝ দিয়ে বল জালে পাঠালে চট্টগ্রাম আবাহনী ৩-১ গোলে জিতে পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে ওঠে।   

দিনের অন্য ম্যাচে ছিল ঢাকা আবাহনীর একতরফা আধিপত্য। ১৫ মিনিটে নাইজেরিয়ান সানডে চিজোবার গোলে তারা এগিয়ে যায়। তার মিনিট পাঁচেক পর এই নাইজেরিয়ানের আরেকটি চেষ্টা উত্তর বারিধারার গোলরক্ষক রাশেদ ঠেকিয়ে দেয়। ৩৬ মিনিটে অবশ্য পারেননি তাঁর হেড ঠেকাতে। ইংলিশ প্লেমেকার অ্যান্ড্রু লির মাপা ক্রসে হেড করে সানডে নিজের নবম গোল করেন। ৭০ মিনিটে লির গোলে ঢাকা আবাহনীর জয় অনেকখানি নিশ্চিত হয়ে গেলে ইনজুরি টাইমে বারিধারার ফয়সাল আহমেদ সান্ত্বনাসূচক গোলটি করে ব্যবধান কমান।


মন্তব্য