kalerkantho


ইংলিশ চ্যালেঞ্জ জয়ের মিশন

প্রস্তুত বাংলাদেশ

দেশের মাটিতে টানা ছয়টি ওয়ানডে সিরিজ জেতা বাংলাদেশ অপেক্ষায় লাকি সেভেনের। সামনে বদলে যাওয়া ইংল্যান্ড। নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা এই সিরিজ শুরুর আগে প্রথাগত সংবাদ সম্মেলনে এসে মাশরাফি বিন মর্তুজা জানিয়ে গেলেন সিরিজ নিয়ে লক্ষ্যের কথাই

৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



প্রস্তুত বাংলাদেশ

সিরিজের প্রথম ম্যাচ নিয়ে...

যেকোনো দ্বিপক্ষীয় সিরিজে প্রথম ম্যাচ খুব গুরুত্বপূর্ণ। অনেক কিছুর ভেতর দিয়ে গেলেও আমরা অবশেষে একটা সিরিজ খেললাম (আফগানিস্তানের বিপক্ষে)। এখন ইংল্যান্ডের সঙ্গে সিরিজ শুরু হচ্ছে। আমরা ইতিবাচক আছি। প্রস্তুতি নিচ্ছি ভালো খেলার।

 

ইংল্যান্ডের সেরা ব্যাটসম্যানদের অনুপস্থিতি প্রসঙ্গে...

খেলার কথা কিছু বলা যায় না আগে থেকে। ওদের ব্যাকআপ ক্রিকেটাররাও অনেক ভালো।   একই সঙ্গে ওদের ম্যাচ উইনিং ক্রিকেটার অনেক আছে, যারা একাই ম্যাচ জিতিয়ে দিতে পারে।   ভালো প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে এবং আমরা তার জন্য প্রস্তুত।

ইংল্যান্ড সিরিজ অন্য সিরিজের চেয়ে আলাদা কি না...

আমি বিশ্বাস করি, কাউকে সামর্থ্য দেখানোর জন্য আমাদের কেউ খেলে না। তবে আমাদের প্রতিটি সিরিজ থেকে আমাদের অবস্থান ও পারিপার্শ্বিকতা যদি চিন্তা করেন, আমরা এখন ভালো খেলছি। আমাদের কাছে প্রতিটি সিরিজই গুরুত্বপূর্ণ। সেদিক থেকে আলাদা করে দেখছি না এই সিরিজ। যদি ভালো খেলি, সিরিজ জিততে পারি, তাহলে ভালো লাগবে।

উইকেট নিয়ে...

গত দুই বছর যদি বাংলাদেশের উইকেট দেখেন, খুব বেশি টার্নিং উইকেট ছিল না। আমরা স্পোর্টিং উইকেটে খেলেছি এবং আমাদের ব্যাটসম্যানরা ভালো করেছে। আমি তাই মনে করি না আমরা শুধু স্পিনেই নির্ভর করব।   আমরা গোটা দলের ওপরই ভরসা করছি।

দুটি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয় প্রসঙ্গে...

গত দুই বিশ্বকাপের দুটি জয় আমাদের জন্য অবশ্যই ভালো স্মৃতি হয়ে আছে। বিশ্বকাপের মতো মঞ্চে হারানো বড় অর্জনও। তবে সবাই আসলে সাম্প্রতিক ব্যাপারটি নিয়েই বেশি ব্যস্ত থাকে। ক্রিকেটার হিসেবে ওটা নিয়ে ভেবে আমাদের লাভ নেই। নতুন একটি সিরিজ শুরু হচ্ছে। আমাদের মনোযোগ এটিতে ভালো খেলা।

ইমরুলের সেঞ্চুরির প্রশংসায়...

কয়েকটি জায়গা আছে, কয়েকজন পুশ করছে। আমাদের বেঞ্চ এখন অনেক ভালো। ওপেনিংয়ে ইমরুল পুশ করছে। পেস বোলিংয়ে পুশ করছে কয়েকজন। রিজার্ভে থাকারা ভালো করছে। ইমরুল আউটস্ট্যান্ডিং  খেলেছে। দলের সবাই খুব খুশি যে প্রথম ম্যাচে ৩৭ করে বাদ পড়ার পরও ইমরুল মানসিক ও শারীরিকভাবে প্রস্তুত ছিল এবং প্রস্তুতি ম্যাচে প্রফেশনালি একটা সেঞ্চুরি করেছে। ওর জন্যও এটা ভালো, দলের জন্যও ভালো।

প্রসঙ্গ যখন ইংল্যান্ডের ব্যাটিং...

ওদের ৮-৯-১০ নম্বর ব্যাটসম্যানও অনেক ভালো ব্যাট করে। ব্যাটিং তাই অনেক শক্তিশালী ওদের; বোলিং তো ভালোই। ইংল্যান্ডের ওপর আমাদের শ্রদ্ধা আছে শতভাগ। একই সঙ্গে আমরা আমাদের শক্তির জায়গা নিয়েও ভাবছি।

দলে সিনিয়রদের ভূমিকা নিয়ে বলতে গিয়ে...

সিনিয়রদের ভূমিকা অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যত ম্যাচ জিতেছি, সিনিয়ররা ভালো খেলেছে, জুনিয়ররাও স্টেপ আপ করেছে। কম্বিনেশনটা গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের রোমাঞ্চকর কজন তরুণ ক্রিকেটার আছে। সিনিয়র যারা আছে, তারাও ভালো করার চেষ্টা করছে।

শেষের দিকের ব্যাটিং নিয়ে...

শেষের দিকে আমি ব্যাট করেছি বা রুবেল করেছে। গত সিরিজে যাদের বাজে গেছে এই জায়গাটায়। প্রথম ম্যাচে সেট ব্যাটসম্যানরা আউট না হয়ে গেলে অন্য রকম হতে পারত। দ্বিতীয় ম্যাচে পুরো ব্যাটিংই ভেঙে পড়েছে। শেষ ম্যাচে মোটামুটি ভালোই করেছে। রিয়াদ ভালোভাবে শেষ করেছে। তবে রিয়াদকে আবার আমরা ভালোভাবে সাপোর্ট দিতে পারিনি। ওই সময়টায় ৫-১০ রানও অনেক ম্যাটার করে অনেক সময়। আমরা অবশ্যই ভাবছি। এই ধরনের প্রেশার ম্যাচে সব জায়গাই ঠিক করতে হবে। যে জায়গায় ভুল ছিল সেসব ঠিক করতে হবে, যেসব ঠিক করেছি সেগুলো ধরে রাখতে হবে।

র‍্যাংকিং এবং বিশ্বকাপ সমীকরণ প্রসঙ্গে...

বিশ্বকাপের ভাবনা আসলে এমন তো নয় যে পরের বিশ্বকাপে যেতে পারলেই পেয়ে যাচ্ছি! ওটা অনেক দূরের ব্যাপার। আমরা অবশ্যই চাইব যে আমাদের যেন কোয়ালিফাই না খেলতে হয়। সরাসরি খেলি। কিন্তু আমরা যদি অত দূরেরটা ভাবি, তাহলে এই সিরিজগুলো কঠিন হবে যাবে। প্রতিটি সিরিজ আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। দূরেরটা ভাবলে চাপ হয়ে যায়। কালকের (আজ) ম্যাচটা আছে, সেটা যদি জিততে  পারি, তাহলে একটা কাজ পেছনে পড়ে যায়। কাজটা সহজ হয়ে যায়। সেই জায়গা থেকে সব সময় আশা করি, বাইরে থেকে যে যা-ই বলুক, আমরা যেন আসল জায়গাটায় মনোযোগ ধরে রাখতে পারি। তাহলে আমাদের কাজ সহজ হয়। আমরা অপ্রয়োজনীয় চাপ যাতে নিজেদের ওপর না নিই, সেদিকে খেয়াল রাখতে চাই।

তাঁর চোখে বোলারদের পারফরম্যান্স...

১০ মাস ম্যাচ খেলিনি আমরা। ম্যাচের ভেতর থাকলে বোলারদের ভুলগুলো দ্রুত ধরা পড়ে। শিখতে পারে তাড়াতাড়ি। ওখানে একটা ঘাটতি ছিলই যে দীর্ঘ সময় পর মাঠে নেমেছি। আগে যেমন এটা মুখস্থ ছিল কখন কী বল করতে হবে, বোলারদেরও সেটা জানা ছিল। ওই জিনিসগুলো ঠিক করতে আবার সময় লাগবে। শেষ ম্যাচটা তো বেশ ভালো গেছে। পেস বোলাররা ভালো করছে।


মন্তব্য