kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মুখোমুখি প্রতিদিন

গড়পড়তা নয়, অসাধারণ কিছুই করতে চেয়েছিলাম

আফগানিস্তানের বিপক্ষে শেষ দুটো ম্যাচ খেলার সুযোগ না পাওয়া ইমরুল কায়েস প্রস্তুতি ম্যাচের সেঞ্চুরি দিয়ে জোর দাবি জানিয়ে রাখলেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডের একাদশে জায়গা করে নেওয়ার। কাল ফতুল্লায় ৯১ বলে ১২১ রানের ইনিংসটি যে তাঁর মনের মতো ছিল, সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বলেছেন তা-ও

৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



গড়পড়তা নয়, অসাধারণ কিছুই করতে চেয়েছিলাম

প্রশ্ন : নিজের এই ইনিংসটা কিভাবে মূল্যায়ন করবেন?

ইমরুল কায়েস : অবশ্যই এটি আন্তর্জাতিক ম্যাচ নয়। তবে আবহ আন্তর্জাতিক ম্যাচের মতোই ছিল।

আমার জন্য এটা খুব দরকার ছিল। অনেক দিন পর এমন একটি ইনিংস খেলতে পারলাম। নিজের কাছে খুব ভালো লাগছে আর আত্মবিশ্বাসও বেড়েছে। এমন একটি দলের সঙ্গে সেঞ্চুরি করাটা দারুণ ব্যাপার।

প্রশ্ন : বলছিলেন যে দরকার ছিল। সেটি কি প্রথম ওয়ানডের একাদশে জায়গা পাওয়ার জন্য?

ইমরুল : তা তো অবশ্যই। কারণ বাংলাদেশ দলে সুযোগ পাওয়াই এখন চ্যালেঞ্জ হয়ে গেছে। প্রতিযোগিতা অনেক বেশি। এখন গড়পড়তা পারফরম্যান্স করে টিকে থাকা খুবই কঠিন। টিকে থাকতে হলে অসাধারণ পারফরম্যান্স করতে হয়। আফগানিস্তানের বিপক্ষে একটি ওয়ানডে খেলার পর দুটি ওয়ানডেতে আমি বসে ছিলাম। তখনই বুঝেছি আমাকে আরো ভালো কিছু করতে হবে। এই ইনিংস খেলার ক্ষেত্রে ওই ভাবনাই আমাকে সহায়তা করেছে।

প্রশ্ন : প্রথম ওভার থেকেই চড়াও হয়ে খেললেন। এটা কি মন স্থির করেই নেমেছিলেন?

ইমরুল : মন স্থির করে নামাটাই বড় ব্যাপার ছিল। এর আগে কয়েকটি ম্যাচে মন স্থির করে নেমেছিলাম উইকেটে থেকে রান করব। আজ শুরু থেকেই ইতিবাচক ছিলাম। প্রথম বলটাও ব্যাটে ঠিকঠাক লাগল। দুই দিন আগে কোচের দেওয়া একটি পরামর্শও খুব কাজে দিয়েছে। সেটা মাথায় ছিল, সেভাবেই পরিকল্পনা করে ব্যাটিং করেছি।

প্রশ্ন : কোচ কী পরামর্শ দিয়েছিলেন?

ইমরুল : এর আগে সামনে গিয়ে শুধু একটি শটই খেলার জন্য তৈরি থাকতাম। কোচ আমাকে বলেছেন, ‘তুমি সব সময় তৈরি থাকবে তিনটি শটের জন্য। তিনটি শটের জন্য তৈরি থাকলে তোমার সামনে বিকল্পও থাকবে অনেক। তাহলে যেকোনো শট তুমি খেলতে পারবে। ’ শেষ দুই দিন অনুশীলনে আমি সেই চেষ্টাই করেছি। হয়তো এর জন্য আমার ভারসাম্য এবং সব কিছু খুবই ইতিবাচক হচ্ছিল। এ জন্যই হয়তো সাফল্য পেয়েছি।

প্রশ্ন : কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহে কোন কোন শটের কথা বলেছিলেন আপনাকে?

ইমরুল : কোচ বলেছিলেন, ‘তুমি অবশ্যই তৈরি থাকবে পুল আর কাট খেলার জন্য। তাহলে বাইরের বা ভালো বলগুলোতেও তুমি এক রান নিতে পারবে। তোমার শরীর সব সময় ইতিবাচক থাকবে এবং দ্রুত কাজ করবে। ’ এই জিনিসটা মাথায় ছিল আর শেষ দুই দিন সেভাবে অনুশীলনও করেছি।

প্রশ্ন : ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ভালো খেলার ইতিহাস আছে আপনার। সেটাও কি কাজে দিল আজ?

ইমরুল : ইংল্যান্ডের বিপক্ষে গত বিশ্বকাপের ম্যাচটি বাদ দিলে সব ম্যাচেই ভালো খেলেছি। প্রত্যেক খেলোয়াড়েরই এমন দুয়েকটা দল থাকে, যাদের বিপক্ষে খুব ভালো খেলে। আমার ক্ষেত্রে ইংল্যান্ডও হয়তো তেমনই একটি দল।


মন্তব্য