kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বিজেএমসিকে হারাল চট্টগ্রাম আবাহনী

২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



বিজেএমসিকে হারাল চট্টগ্রাম আবাহনী

সিলেট অফিস : আগের ম্যাচে ফেনী সকারের বিপক্ষে একাধিক সহজ সুযোগ নষ্ট করা লিওনেল প্রিক্স কাল বিজেএমসির বিপক্ষে কোনো ভুল করেননি। তাঁর জোড়া গোলে সিলেটে এদিন ৩-১ গোলে জয় পেয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনী।

পয়েন্ট টেবিলে ঢাকা আবাহনীকে পেছনে ফেলে তারাই এখন তিন নম্বরে। ১৯ পয়েন্ট নিয়ে যৌথভাবে শীর্ষে আছে শেখ জামাল ও রহমতগঞ্জ, চট্টগ্রাম আবাহনী ১ পয়েন্ট পিছিয়ে আছে তাদের চেয়ে।

কাল অবশ্য ম্যাচের শুরু থেকে আধিপত্য করেও প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত গোলের জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে চট্টগ্রাম আবাহনীকে। আগের ম্যাচে জয়সূচক গোল করা জাহিদ হোসেনের কর্নার থেকে হেডে গোল করে এদিন লিওনেল প্রিক্সই চট্টগ্রামের দলটিকে প্রথম এগিয়ে দেন। যদিও তাদের সেই এগিয়ে যাওয়া মিনিট দুয়েকও স্থায়ী হয়নি। প্রথমার্ধের খেলা শেষ হওয়ার আগেই জাকির হোসেনের নিচু ও জোরালো শট জালে জড়ায় চট্টগ্রাম আবাহনীর। তাতেই ম্যাচে সমতা। দ্বিতীয়ার্ধে লিডের জন্য আবার মরিয়া হয় চট্টগ্রাম আবাহনী। ৬৮ মিনিটে সেই গোল তারা পেয়েও যায়। বিজেএমসির বক্সের জটলা থেকে ফাঁকায় বল পেয়ে যান চট্টগ্রাম আবাহনী ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ ইব্রাহিম। ঠাণ্ডা মাথায় নেওয়া তাঁর জোরালো শট সরাসরি জালে। পিছিয়ে পড়ে বিজেএমসিও আবার আক্রমণে গতি বাড়ায়। তাতে উল্টোটাই হয়, খেলার শেষ মুহূর্তে কাউন্টার অ্যাটাকে তৃতীয় গোল করে ফেলে চট্টগ্রাম আবাহনী। মামুনুল ইসলামের ক্রসে লিওনেলের প্লেসিং শট ফেরাতে পারেননি বিজেএমসি গোলরক্ষক। তাতে ৩-১ গোলের স্বস্তির জয় নিয়েই লিগের নবম রাউন্ড শেষ করতে পেরেছে শিরোপাপ্রত্যাশীরা।

৯ ম্যাচে এটি তাদের পঞ্চম জয়, ৩টি ড্র করেছে তারা, একমাত্র হার রহমতগঞ্জের বিপক্ষে। ঢাকা আবাহনী অবশ্য কোনো ম্যাচ হারেনি, ৪ জয় ও ৫ ড্রয়ে তাদের পয়েন্ট ১৭। জাতীয় দলের খেলার কারণে আগামী ১৩ দিন লিগে বিরতি। ১৪ অক্টোবর আরামবাগ-শেখ রাসেল এবং শীর্ষে থাকা শেখ জামালের বিপক্ষে মোহামেডানের ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে লিগের দশম রাউন্ড। চট্টগ্রাম আবাহনী পরের ম্যাচ খেলবে মুক্তিযোদ্ধার বিপক্ষে। কাল দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে বড় জয় পেয়েছে আরামবাগ। ৫-১ গোলে হারিয়েছে তারা ফেনী সকারকে। আরামবাগের হয়ে জোড়া গোল করেছেন সাজিদ ও জাতীয় দলে খেলা জাফর ইকবাল। ম্যাচের ৩ মিনিটেই সাজিদের গোলে এগিয়ে যায় আরামবাগ, ১৫ মিনিটে ব্যবধান ২-০ করেন আব্দুল্লাহ। চৌম্রিন রাখাইন প্রথমার্ধেই ব্যবধান কমিয়েছিলেন। কিন্তু ৬৩ মিনিটে সাজিদের আরেক গোল এবং খেলা শেষ হওয়ার আগে জাফরের জোড়া গোলে বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে আরামবাগ।


মন্তব্য