kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মুখোমুখি প্রতিদিন

ইনজুরি থেকে ফিরেই আমি মানিয়ে নিয়েছি

আট মাস পর জাতীয় দলে আবার ডাক পেলেন জাহিদ হাসান এমিলি। সিলেটে শেখ রাসেলের হয়ে খেলা দুটি ম্যাচ দেখেই তাঁকে ১০ অক্টোবরের ভুটান ম্যাচের প্রাথমিক দলে রেখেছেন বেলজিয়ান কোচ টম সেইন্টফিট। এ নিয়ে জাহিদের প্রতিক্রিয়া জানতেই মুখোমুখি হয়েছিল কালের কণ্ঠ স্পোর্টস

২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ইনজুরি থেকে ফিরেই আমি মানিয়ে নিয়েছি

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : অনেক দিন পর জাতীয় দলে আবার ডাক পেলেন, কেমন লাগছে?

 

জাহিদ হাসান : হ্যাঁ, প্রায় আট মাস হয়ে গেল জাতীয় দলে সর্বশেষ খেলেছি। ইনজুরিই আমাকে ছিটকে দিয়েছিল।

আল্লাহর রহমতে আবার আমি মাঠে ফিরেছি। সবচেয়ে ভালো লাগছে কোচ আমাকে দুটি ম্যাচে দেখেই পছন্দ করেছেন।

প্রশ্ন : প্রাথমিক দলে ডাক পাওয়া আর খেলা নিশ্চয় এক কথা নয়, ভুটান ম্যাচে থাকার ব্যাপারে কতটা আশাবাদী?

জাহিদ : কোচের সঙ্গে আমার ব্যক্তিগতভাবে কথা হয়েছে। উনি বলেছেন মাঠে আমার মুভমেন্ট ভালো ছিল। এখন অনুশীলন সেশনে পুরোপুরি দেখতে চান। আমি একশভাগ দেব যাতে তাঁকে সন্তুষ্ট করতে পারি।

প্রশ্ন : কিন্তু লিগের দুটি ম্যাচেই আপনি নিজেকে কতটা ফিরে পেয়েছেন বলে মনে হয়?

জাহিদ : সত্যি বলতে এই দুটি ম্যাচ থেকে আমি যথেষ্ট আত্মবিশ্বাস পেয়েছি। প্রথম ম্যাচে বদলি নামি, পরের ম্যাচে শুরু থেকেই খেলি। ইনজুরিতে চার মাস আমি পুরোপুরি মাঠের বাইরে ছিলাম, গত দুই-আড়াই মাস ধরে আমি বল নিয়ে অনুশীলন করছি, প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছি। সেই অবস্থা থেকে লিগে খেলতে নেমে শুরুতেই আমি যথেষ্ট মানিয়ে নিতে পেরেছি বলে মনে হয়।

প্রশ্ন : ভুটান ম্যাচে জয়ের ব্যাপারে কতটা আশাবাদী, ঘরের ম্যাচে যাদের হারানো যায়নি তাদের মাঠে গিয়ে সেটি কি সম্ভব?

জাহিদ : আমি মনে করি ওদেরকে হারানো খুবই সম্ভব। ঢাকায় তো হাতের মুঠো থেকে জয়টা আমরা হাতছাড়া করেছি। যেভাবে ম্যাচ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে খেলেছে বাংলাদেশ, যতগুলো গোলের সুযোগ তৈরি হয়েছিল তাতে এই ম্যাচটি আমাদের জেতারই কথা ছিল। ভুটানে অবশ্যই চেষ্টা থাকবে সুযোগগুলো যাতে নষ্ট না হয়। ওদের হারানোর সামর্থ্য আছে আমাদের, মাঠে এটা শুধু করে দেখাতে হবে।

প্রশ্ন : টম সেইন্টফিটের অধীনে বাংলাদেশের শুরুটাই ভালো হয়নি, মালদ্বীপের কাছে বড় ব্যবধানে হারতে হয়েছে। কোচ হিসেবে তাঁকে আপনার কী মনে হয়েছে?

জাহিদ : উনি শুরুতেই অনেক নতুন নতুন খেলোয়াড় দলে নিয়েছেন। যারা মালদ্বীপের বিপক্ষে এরপর ভুটান ম্যাচেও নিজেদের সেভাবে প্রমাণ করতে পারেনি। পারলে ভুটান ম্যাচটি আমরা জিততাম আর মালদ্বীপের বিপক্ষেও এত বড় ব্যবধানে হারতে হয় না। যাহোক উনি এখন নিশ্চয় পরের ম্যাচেই পুরো মনোযোগ রাখছেন। সেভাবেই দল সাজাচ্ছেন। সেই ম্যাচে আমাদের সবারই সুযোগ আছে নিজেদের আরো একবার প্রমাণ করার।


মন্তব্য