kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শুর্লে আটকে দিলেন রিয়ালকে

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



শুর্লে আটকে দিলেন রিয়ালকে

ডর্টমুন্ডের মাঠে জয় অধরাই থাকল রিয়াল মাদ্রিদের। পরশু সিগনাল ইদুনা পার্কে দুই-দুইবার এগিয়ে গিয়েও ২-২ গোলের ড্র নিয়ে তারা ফিরেছে।

স্পোর্তিং লিসবনের বিপক্ষে জয়সূচক গোল করা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোই এদিন রিয়ালকে এগিয়ে দিয়েছিলেন প্রথম। প্রথমার্ধের শেষ মুহূর্তে গোলরক্ষক কেইয়ালর নাভাসের ভুলে সমতায় ফেরে ডর্টমুন্ড। দ্বিতীয়ার্ধে রাফায়েল ভারান আবার লস ব্লাঙ্কোদের এগিয়ে দিলেও ৮৪ মিনিটে আন্দ্রে শুর্লের এক অসাধারণ গোল তাদের জয় নিয়ে ফিরতে দেয়নি।

তবে কিং পাওয়ার স্টেডিয়ামে এদিন টানা দ্বিতীয় জয় পেয়েছে লিস্টার সিটি। এই মৌসুমেই স্পোর্তিং লিসবন থেকে লিস্টারে নাম লেখানো ইসলাম স্লিমানির একমাত্র গোলে তারা হারিয়েছে পোর্তোকে। আগের ম্যাচে ক্লাব ব্রাহাকে ৩-০ গোলে হারানো লিস্টার চ্যাম্পিয়নস লিগের অভিষেক মৌসুমেই সুবাস পাচ্ছে শেষ ষোলোর। এদিন ডিনামো জাগরেবের মাঠে জুভেন্টাসও জয়ে ফিরেছে। ঘরের মাঠে সেভিয়ার সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করা দলটি ৪-০তে জিতেছে ক্রোয়েশিয়ান চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে। রিয়ালের এটি টানা তৃতীয় ড্র। সর্বশেষ লা লিগায় লাস পালমাসের বিপক্ষেও গোল হজম করেছিল তারা ম্যাচের শেষ মুহূর্তে, সেটিও ছিল ২-২ এ ড্র।

পরশু ডর্টমুন্ডের মাঠে অধরা জয়ের হাতছানি অবশ্য ম্যাচের ১৭ মিনিটেই। দারুণ দলীয় বোঝাপড়ায় ইউরোপীয় আসরে নিজের ৯৮তম গোল করে দলকে এগিয়ে দেন রোনালদো। হামেস রোদ্রিগেসের থ্রু পাসে গ্যারেথ বেলের ব্যাক হিল, সেই বলেই পা চালিয়ে পর্তুগিজ তারকা বল পাঠিয়েছেন দূরের পোস্ট দিয়ে জালে। লিডটা তারা ধরে রাখতে পারেনি ৪৩ মিনিটে গোলরক্ষক নাভাস ও ডিফেন্ডার রাফায়েল ভারান রাফায়ের গুয়েরেইরোর ফ্রিকিক ক্লিয়ার করতে গিয়ে গোলমাল বাধিয়ে ফেললে। শরীর সোজা আসা বল কোস্টারিকান গোলরক্ষক গ্রিপ না করে ফিস্ট করেছিলেন, তা ভারানের গায়ে গেলে পোস্টে ঢোকার মুখে অবামেয়াং শুধু পা ছুঁইয়ে দিয়েছেন।

দ্বিতীয়ার্ধে রিয়াল লিডের জন্য আবার মরিয়া হলে রোনালদোই সুযোগ তৈরি করে দিয়েছেন। বাঁ দিক থেকে নেওয়া তাঁর দারুণ ক্রসে বেনজিমা বল জালে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন প্রায়, সেটি ক্রসবারে লেগে ফিরলে সুযোগ কাজে লাগিয়েছেন ভারান। এরপর ২-১ ব্যবধানেই ম্যাচ শেষের দিকে গড়াচ্ছিল। কিন্তু মারিও গোেজর বদলি নামা আন্দ্রে শুর্লেই হিসাবটা পাল্টে দেন। খেলা শেষ হওয়ার মিনিট চারেক আগে ক্রিশ্চিয়ান পুলিসিচের ক্রস তাঁর পায়ে এসে পড়লে, বক্সের ওপর থেকে নেওয়া বুলেট গতির শট ক্রসবার ঘেঁষে জালে জড়ায়। সিগনাল ইদুনার হলুদ সমুদ্রে স্বাগতিকদের এই সমতায় ফেরার উচ্ছ্বাসটা ছিল প্রায় জয়ের সমান। জিনেদিন জিদানের জন্য যা গভীর বিষাদের, ‘২-২ ড্র হয়তো মন্দ না। কিন্তু এত ভালো পারফরম্যান্সের পরও জয়বঞ্চিত হওয়াটা সত্যিই দুঃখজনক। আর লজ্জার ব্যাপার হলো এ নিয়ে আমরা টানা তিনটি ম্যাচ ড্র করলাম। ’ ডর্টমুন্ডের ড্রয়ের নায়ক শুর্লে এই ফল থেকে ইতিবাচক কিছুই নিতে চাইছেন, ‘রিয়ারের মতো দলের বিপক্ষে দুইবার পিছিয়ে পড়েও সমতা ফেরাটা দারুণ ব্যাপার। দল হিসেবে এটা এখন আমাদের আরো আত্মবিশ্বাসী করবে। ’

সিএসকে মস্কোর মাঠে এদিন টটেনহামও জিতে হং মিন সনের একমাত্র গোলে। জাগরেবের মাঠে প্রথমার্ধে মিরালেম পিয়ানিচ ও গনসালো হিগুয়েইন ২ গোল করে জুভেন্টাসকে এগিয়ে দিয়েছেন, দ্বিতীয়ার্ধে পাওলো দিবালার সঙ্গে গোল পেয়েছেন দানি আলভেসও। এএফপি, গোলডটকম


মন্তব্য