kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মুখোমুখি প্রতিদিন

একটি ম্যাচ জিতলেই সব ঠিক হয়ে যাবে

ফুটবলের টানে ডেনমার্ক থেকে বাংলাদেশে এসেছেন জামাল ভুঁইয়া। পেয়েছেন খ্যাতি। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপে হয়েছিলেন সেরা খেলোয়াড়। কিন্তু সময়টা এখন ভালো যাচ্ছে না জামালের, কারণ ভালো করছে না তাঁর দল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র। কেন ভালো করছে না, তাঁর কাছে সেটাই জানতে চেয়েছিল কালের কণ্ঠ স্পোর্টস

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



একটি ম্যাচ জিতলেই সব ঠিক হয়ে যাবে

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : আগের ম্যাচটি আবাহনীর সঙ্গে ১-১ ড্র। তাতে কি হারের বৃত্ত ভাঙার স্বস্তি নাকি জয়ের খুব কাছে গিয়েও জিততে না পারার আক্ষেপই বেশি?

 

জামাল ভুঁইয়া : আসলে অনুভূতিটা প্রচণ্ড হতাশার।

আমরা প্রিমিয়ার লিগের এই মৌসুমের প্রথম জয়টা বলতে গেলে পেয়েই গিয়েছিলাম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত জিততে পারলাম না, শেষ দিকে গোল খেয়ে বসলাম। খুবই খারাপ লেগেছে, ম্যাচটি ড্র হলেও মনে হচ্ছিল যেন হেরে গেছি।

প্রশ্ন : এই মৌসুমে এখনো কোনো ম্যাচ জিততে না পারার কারণটা কী বলে মনে হয় আপনার?

জামাল : কঠিন প্রশ্ন! আসলে অন্য সব দলই চারজন বিদেশি খেলোয়াড় নিয়ে খেলছে, সেখানে আমাদের বিদেশি মাত্র দুজন। কোনো কোনো ম্যাচে একজনও খেলেছে। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বিদেশিদের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ জায়গায় আমরা পিছিয়ে আছি। তা ছাড়া আমাদের আক্রমণভাগের খেলোয়াড়রা অনেক সুযোগ পাচ্ছে, কিন্তু গোল করতে পারছে না।

প্রশ্ন : সিলেটে অনুশীলনের মাঠ নিয়ে সবারই অনেক অভিযোগ...

জামাল : এসব নিয়ে আসলে অভিযোগ করে লাভ নেই। এখানে যা ব্যবস্থা আছে, তাই আমাদের জন্য বরাদ্দ হয়েছে। এর বেশি তো কিছু করা যাবে না। আমাদের ভালো খেলতে হবে।

প্রশ্ন : এ অবস্থায় কিভাবে নিজেদের অনুপ্রাণিত রাখছেন?

জামাল : যা হয়ে গেছে, সেসব নিয়ে আর আক্ষেপ করে লাভ নেই, এখন সামনের দিকে তাকাতে হবে। নিজেদের সেরা খেলাটা বের করে আনতে হবে। মাঠে শতভাগ নিংড়ে দিতে হবে। খেলাটাকে এক ধাপ উপরে তুলে নিতে হবে। আগের ম্যাচে জিততে জিততে ড্র করেছি, এ ম্যাচটা আশা করি জিতব। একটি ম্যাচ জিতলেই সব ঠিক হয়ে যাবে।

প্রশ্ন : যে স্বপ্ন নিয়ে ডেনমার্ক থেকে বাংলাদেশে খেলতে এসেছিলেন, সেই স্বপ্ন কি পূরণ হচ্ছে নাকি আস্তে আস্তে সেটা মিলিয়ে যাচ্ছে?

জামাল : কখনো কখনো হতাশ লাগে, তবে আমি আশা ছাড়িনি। গত মৌসুমে আমি শেখ জামালের হয়ে প্রায় সবগুলো শিরোপাই জিতেছিলাম। এবার নতুন দল নতুন চ্যালেঞ্জ। তাতে এখন পর্যন্ত সাফল্যের ভাগটা খুব বেশি নয়। তবে এটাই জীবন। কখনো সাফল্য আসবে, ব্যর্থতাও থাকবে।

প্রশ্ন : এই সিলেটের মাঠেই তো নেপালের বিপক্ষে ম্যাচটি শুরু হতে দেরি হয়েছিল দর্শকের কারণে। এখন সেখানে ফাঁকা গ্যালারি!

জামাল : একবার খেলা শুরু হয়ে গেলে তখন মাঠ ভরা না খালি সেটা মাথায় থাকে না। তবে গোল হলে, জিতলে যখন গ্যালারি থেকে স্বাগতিক দর্শকদের কোনো উল্লাস শুনতে পাই না তখন খারাপ লাগে। দর্শকদের উৎসাহ পেলে খেলতে আরো অনুপ্রাণিত হতাম, হয়তো তাতে প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঝাঁজ আরো বাড়ত। দিনশেষে কেউই তো খালি মাঠে খেলতে চায় না।


মন্তব্য