kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সেই সিলেটেই দর্শকখরা!

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



সেই সিলেটেই দর্শকখরা!

সিলেট থেকে প্রতিনিধি : বছর দুয়েক আগে, নেপালের অনূর্ধ্ব-২৩ দলের বিপক্ষে এশিয়ান গেমসে অংশ নিতে যাওয়া বাংলাদেশ দলের প্রস্তুতি ম্যাচ দেখতেই সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে এত দর্শকের ঢল নেমেছিল যে দর্শকের কারণে খেলা শুরু করতেই ঘণ্টাখানেক দেরি হয়। দেয়াল টপকে, বাঁশের বেষ্টনী ভেঙে উৎসাহী দর্শকরা ঢুকে পড়েছিল মাঠে।

গ্যালারি ছাপিয়ে মাঠেই তারা বসে পড়েছিল  সাইডলাইন ঘিরে। সাফ অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপেই কিশোর ফুটবলারদের খেলা দেখতে মাঠে ছিল দর্শকের জোয়ার। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের ম্যাচেও দর্শক উপস্থিতি ছিল আশাব্যঞ্জক। দর্শকের এই জোয়ারই সিলেটে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ম্যাচ আয়োজনে উৎসাহী করে তোলে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে। কিন্তু বিপিএলের সিলেট পর্বের প্রথম ম্যাচে ৯ গোলের বিজ্ঞাপনও দ্বিতীয় দিনে মাঠমুখী করতে পারেনি স্থানীয় দর্শকদের। প্রায় ফাঁকা গ্যালারির সামনেই দিনের প্রথম ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়াচক্র  ১-০ গোলে হারিয়েছে উত্তর বারিধারাকে। দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে মোহামেডান গোলশূন্য ড্র করেছে আরামবাগের সঙ্গে।

অনিকের একমাত্র গোলে মুক্তিযোদ্ধা জিতেছে উত্তর বারিধারার বিপক্ষে। ম্যাচে প্রাধান্য ছিল মুক্তিযোদ্ধারই। তবে আক্রমণ সাফল্যে রূপান্তরিত হয়েছে মাত্র একবারই। ম্যাচের ১৮ মিনিটে মানিকের ক্রস কাজে লাগাতে পারেননি তৌহিদুল আলম। মিনিট দুয়েক পর কোলো মুসার শট ঠেকিয়ে দেন বারিধারার গোলরক্ষক এরশাদ। উত্তর বারিধারা গোল করার সেরা সুযোগটি পেয়েছিল ম্যাচের ৩২ মিনিটে, কিন্তু রোহিত সরকারের ক্রসে বারিধারার কেনিয়ান রিক্রুট কলিন্স টিয়াগোর হেড ফিরে আসে গোলবারে লেগে। গোলশূন্য প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধে মোবারকের লাল কার্ডকে কেন্দ্র করে দেখা দেয় উত্তেজনা। ৫৭ মিনিটে থ্রো ইন থেকে সেন্টু চন্দ্র দাসের মুখে সরাসরি বল দিয়ে আঘাত করে লাল কার্ড দেখেন মুক্তিযোদ্ধার মোবারক হোসেন ভুঁইয়া। একজন কম নিয়ে খেলেও মোবারককে হারানোর ১০ মিনিট পরই গোলের দেখা পেয়ে যায় মুক্তিযোদ্ধা; ৬৭ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে অনিকের নেওয়া দূরপাল্লার জোরালো শট জালে ঢুকলে তাতেই হয়ে যায় হারজিতের ফয়সালা। এই একমাত্র গোলই মুক্তিযোদ্ধাকে দেয় ৩ পয়েন্ট কারণ বাকি সময়টা ১০ জনের দলের বিপক্ষে খেলেও যে গোলের সন্ধান পায়নি উত্তর বারিধারা।

মতিঝিলের ক্লাবপাড়ায় মোহামেডান ও আরামবাগের তাঁবু কাছাকাছি, পয়েন্ট টেবিলেও তারা ছিল গায়ে গা লাগিয়ে। যদিও জায়গাটা মতিঝিলের মতো দামি নয়! দুই ক্লাবেরই অবস্থান তলানির দিকে। এই ম্যাচে মুখোমুখি হওয়ার আগে, ১২ দলের লিগে আরামবাগ ৭ পয়েন্ট নিয়ে ছিল নবম স্থানে আর মোহামেডান ৫ পয়েন্ট নিয়ে দশম। কাল গোলশূন্য ড্র থেকে দুই দলই পেয়েছে ১ পয়েন্ট, তাতে অবশ্য দূরত্ব বাড়িয়ে নিয়েছে আরামবাগ। বিজেএমসিকে টপকে তারা উঠে গেছে আটে। মোহামেডানের অবস্থানে অবশ্য কোনো নড়চড় নেই।

 


মন্তব্য