kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মুখোমুখি প্রতিদিন

ওই হার নিয়ে ভেবে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই

২০১৪ এশিয়া কাপে আফগানিস্তানের কাছে হেরে যায় বাংলাদেশ। সেই ম্যাচ খেলা আবদুর রাজ্জাক অবশ্য ওই হার নিয়ে খুব উদ্বিগ্ন নন। আজ থেকে শুরু হওয়া এই দুই দলের ওয়ানডে সিরিজে স্বাগতিকদের জয়ের প্রত্যাশা করছেন তিনি। কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে তেমনটা জানান এই বাঁহাতি স্পিনার

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ওই হার নিয়ে ভেবে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই

প্রশ্ন : আফগানিস্তানের বিপক্ষে বছর দুয়েক আগের হার কতটা অপ্রত্যাশিত ছিল?

আবদুর রাজ্জাক : অবশ্যই অপ্রত্যাশিত ছিল। আসলে তখন আমরা খারাপ সময়ের ভেতর দিয়ে যাচ্ছিলাম।

বেশ কিছু ম্যাচ জিততে জিততে হেরে গেছি। যে কারণে দলের আত্মবিশ্বাস ছিল কম। আর ফতুল্লার সেই দিনটিও আমাদের ছিল না। তবু আফগানদের সঙ্গে হার তো সব সময় অপ্রত্যাশিত।

প্রশ্ন : এবারের ওয়ানডে সিরিজ ঘিরে প্রত্যাশা কী?

রাজ্জাক : প্রত্যাশা তো সিরিজ জয়। ২০১৪ এশিয়া কাপে যে ম্যাচে হারের কথা বললেন, এরপর অনেক দূর এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। আমরা হারিয়েছি বিশ্বের বড় বড় দলকে। আর ২০১৫ বিশ্বকাপেই তো আফগানিস্তানকেও হারাই সহজে। আমি ওদের ছোট করছি না। কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেট এখন যে জায়গায় চলে গেছে, আফগানরা ততটা উন্নতি করতে পারেনি। সে কারণেই ওয়ানডে সিরিজ জয়ের প্রত্যাশা করছি।

প্রশ্ন : কিন্তু আবার যখন বাংলাদেশের মাটিতে খেলা, ফতুল্লার সেই ম্যাচ থেকে আফগানরা তো অনুপ্রেরণা নিতে পারে?

রাজ্জাক : ওরা কী করবে, তা নিয়ে আমি ভাবছি না। দলেরও তা ভাবার দরকার নেই। আর সেই খেলা তো দুই-আড়াই বছর আগে হয়ে গেছে। তা নিয়ে ভেবে বাংলাদেশের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। ভাবতে হলে সাম্প্রতিক অনেক সিরিজ তো রয়েছে। গত বছর পুরোটাই আমাদের দুর্দান্ত গেছে। ওই পারফরম্যান্স বরং বাংলাদেশকে উদ্দীপ্ত করতে পারে।

প্রশ্ন : প্রায় ছয় মাস পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলতে নামছে বাংলাদেশ। এটি বেশি চ্যালেঞ্জের নাকি প্রতিপক্ষ হিসেবে আফগানিস্তান?

রাজ্জাক : আগেই বলেছি, আফগানিস্তানকে ছোট করতে চাই না। আবার একই সঙ্গে এত দিন পর খেলতে নামাও চ্যালেঞ্জের। মাঝের সময়ে ঘরোয়া ক্রিকেট খেলা হয়েছে, জাতীয় দলের ক্যাম্প হয়েছে। কিন্তু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট একেবারে আলাদা। এত দিন পর খেলতে নামলে অভ্যস্ত হওয়ার ব্যাপার আছে। আর প্রথম ম্যাচ তো সব সময় গুরুত্বপূর্ণ। কাল (আজ) ভালো শুরু হলে দলের আবার আগের ছন্দে চলে যাওয়ার কথা।

প্রশ্ন : শেষ প্রশ্ন আরাফাত সানিকে নিয়ে। তাঁর বোলিং অ্যাকশন শোধরানোর পর তা বৈধ হিসেবে ঘোষণা করেছে আইসিসি। আপনার ক্ষেত্রেও অমন হয়েছিল। আরাফাতের প্রতি তাই পরামর্শ কী?

রাজ্জাক : অনেক অনেক বোলিং করতে হবে। নতুন বোলিং অ্যাকশনের সঙ্গে অভ্যস্ত হতে হবে। অনেক পরিশ্রম করার পর ওর অ্যাকশন ঠিক হয়েছে। এখন আরো বেশি পরিশ্রম করতে হবে।


মন্তব্য