kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মুখোমুখি প্রতিদিন

আমার দলের সবাই তারকা

কামাল বাবুর রহমতগঞ্জ এক বিস্ময়ের নাম। এখন পর্যন্ত কোনো ম্যাচ হারেনি তারা। গত লিগের ১০ নম্বর দলের এমন উত্থানের কারিগর কোচ কামাল বাবু। এই দেশি কোচ কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে বলেছেন উত্থানের গল্প

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



আমার দলের সবাই তারকা

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : ফেনী সকারের সঙ্গে জিততে জিততে ড্র করল আপনার দল।

 

কামাল বাবু : আজকের জেতা ম্যাচ ড্র হয়ে গেল রেফারির জন্য।

যে পেনাল্টি আমাদের বিরুদ্ধে দিয়েছে সেটা কোনোভাবেই পেনাল্টি হয় না। আসলে রহমতগঞ্জ কেন এত পয়েন্ট পেয়েছে, সেটা অনেকের সহ্য হচ্ছে না। রেফারিং মোটেও ভালো হয়নি।

প্রশ্ন : কিন্তু রহমতগঞ্জ যে এ পর্যন্ত এসেছে এবং এখনো পর্যন্ত শিরোপার দৌড়ে আছে, সেই ম্যাচগুলোও তো রেফারিই চালিয়েছেন।

বাবু : সবার রেফারিং নিয়ে আমি প্রশ্ন তুলছি না। ভরত চন্দ্র যেদিন আমার ম্যাচে থাকবে সেদিন একটা কিছু হবেই। আমি যদি ভুল করে না থাকি, তাঁর পরিচালনায় প্রত্যেকটা ম্যাচে আমাদের বিরুদ্ধে পেনাল্টির বাঁশি বেজেছে। ফেনী সকারের ম্যাচে অযথা একটা পেনাল্টি তো দিয়েছে, সঙ্গে দলের বিদেশি স্ট্রাইকার জুনাপিওকে লাল কার্ড দেখিয়েছে কোনো কারণ ছাড়া। আশা করি টিভিতে সম্প্রচার হওয়ায় সবাই দেখেছে তাঁর বাজে রেফারিং।

প্রশ্ন : ৭ ম্যাচ শেষে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে রহমতগঞ্জ দ্বিতীয় স্থানে। এটার রহস্য কী?

বাবু : এটার বিশেষ কোনো রহস্য নেই। আমার খেলোয়াড়রা নিজেদের সামর্থ্যের ওপর পুরো বিশ্বাস রাখে। তাদের সামনে ছোট-বড় কোনো দল নেই। আমার দলে কোনো তারকা নেই, আবার সবাই তারকা। এটা পুরো দলীয় সামর্থ্যের প্রকাশ। এই মুহূর্তে লিগে সেরা স্কোরিং অ্যাভিলিটির দল রহমতগঞ্জ। প্রত্যেকটা ম্যাচে আমরা গোল করেছি, ৭ ম্যাচে আমাদের ১১ গোল আছে। উল্লেখযোগ্য দিক হলো, দেশিরাও গোল করছে। কঙ্গোর জুনাপিও ৫ গোল করলে নয়ন করেছে ৪ গোল।

প্রশ্ন : রহমতগঞ্জের এগিয়ে যাওয়ার এই গতি কি শেষ পর্যন্ত দেখা যাবে?

বাবু : অবশ্যই আগের রহমতগঞ্জ আর এই দলের মধ্যে অনেক পার্থক্য। সাংগঠনিকভাবে এখন অনেক শক্তিশালী আমাদের দল। আমাদের লক্ষ্য এই গতিতে শেষ পর্যন্ত খেলে যাওয়া, তারপর কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে দলের ভাগ্য আমি জানি না।

প্রশ্ন : আপনাদের খেলায় অনেক দর্শকও হচ্ছে ইদানীং...

বাবু : এটা ভালো দিক। বড় দলের খেলায় দর্শক না হলেও আমাদের খেলায় দর্শক হচ্ছে। একমাত্র আমাদের খেলায় মহিলা দর্শকরাও খেলা দেখতে আসে। আসলে রহমতগঞ্জ এলাকার মানুষজন এই দলকে ভালোবেসে ফেলেছে।

প্রশ্ন : আপনি কখনো বড় দলের দায়িত্ব নেন না কেন?

বাবু : ছোট দলের সব কিছুই আমাকে কেন্দ্র করে হয়। দল গঠন থেকে শুরু করে খেলোয়াড়দের খাওয়া-দাওয়া, প্র্যাকটিস সবই। কিন্তু বড় দলে কর্মকর্তারা দল গড়ে কোচ নিয়োগ দেয়। কিন্তু এটা তো কোচের কাজ। তা ছাড়া ওসব জায়গায় গিয়ে অন্যের মাতব্বরি শুনতে হয়, রাজনীতির শিকার হতে হয়।


মন্তব্য