kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।

এই না হলে ভাই

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



এই না হলে ভাই

বিশ্ব ট্রায়াথলনের শিরোপাটা হাতছোঁয়া দূরত্বে। ১০ কিলোমিটার দৌড়ের পুরোভাগেই ছিলেন জনি ব্রাউনলি।

ফিনিশিং লাইনের কাছাকাছি এসে হঠাৎ ছন্দপতন। প্রচণ্ড গরমে কাহিল জনি পড়েই যাচ্ছিলেন মেক্সিকোর কোজুমেলের ট্র্যাকে। জনির ঠিক পেছনে তখন তাঁর বড় ভাই অ্যালিস্টার ব্রাউনলি। কোনো রকমে ছোট ভাইকে সামলান তাঁর হাত কাঁধে নিয়ে। ভাইকে পেছনে ফেলে প্রথম হওয়ার কোনো ইচ্ছাই ছিল না দুইবারের অলিম্পিক চ্যাম্পিয়ন অ্যালিস্টারের। এই ফাঁকে ইংল্যান্ডের ব্রাউনলি ভাইদের পেছনে ফেলে রেসটা জেতেন দক্ষিণ আফ্রিকার হেনরি স্কুম্যান। তবে ছোট ভাই জনিকে শেষ পর্যন্ত ছেড়ে যাননি ২৮ বছর বয়সী অ্যালিস্টার। শেষ কয়েক মিটার জনির হাত কাঁধে নিয়ে পৌঁছেন ফিনিশিং লাইনে। এরপর ধাক্কা দিয়ে জনিকে পার করিয়ে দেন লাইন। আর নিজে হন তৃতীয়। তবে বিশ্ব ট্রায়াথলন ফেডারেশন দুই ভাইকেই যৌথভাবে দ্বিতীয় ঘোষণা করেছে।

এমন ভ্রাতৃস্নেহের প্রশংসাতেই ভাসছেন অ্যালিস্টার। ২০১২ লন্ডন অলিম্পিকের হেপথালনের সোনাজয়ী জেসিকা ইনিস হিলের টুইট, ‘ভ্রাতৃত্বের অনন্য নিদর্শন! ওদের প্রতি শ্রদ্ধা বেড়ে গেল আমার। ’ জনির হাত অ্যালিস্টার নিজের কাঁধে না নিলে বড় ধরনের দুর্ঘটনাই ঘটতে পারত মেক্সিকোতে। প্রচণ্ড গরমে ট্র্যাকে পড়ে গেলে এমনকি ছোট ভাইয়ের মৃত্যু শঙ্কাও করেছিলেন অ্যালিস্টার, ‘তখন পড়ে গেলে আর সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসা না পেলে মারাও যেতে পারত জনি। নির্বোধটা এমন গরমেও সঙ্গে যথেষ্ট পানি রাখেনি। আমি পানি রেখেছিলাম। রেসটা শেষ করতে পেরে দারুণ আনন্দ হচ্ছে। ’

জনি লাইন পার হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পানি ঢালা হয়েছিল মাথায়। এরপর সোজা হাসপাতাল। সেখানে বিছানায় শুয়ে থাকার একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘ধন্যবাদ অ্যালিস্টার। নতুন জীবন পেলাম তোমার কারণে। ’ পরশু ট্রায়াথলন সিরিজের শেষ রেস ছিল মেক্সিকোয়। প্রথম হলে জনি জিততে পারতেন এই মৌসুমের শিরোপা। কিন্তু ১ ঘণ্টা ৪৭.০৮ মিনিটে দ্বিতীয় হওয়ায় হারিয়েছেন সেটা। এতে বাজিমাত স্পেনের মারিও মোলার। মেক্সিকোয় পঞ্চম হলেও গোটা মৌসুম মিলিয়ে ৪৮১৯ পয়েন্ট পাওয়ার সুবাদে তিনিই জিতেছেন এই মৌসুমের বিশ্ব ট্রায়াথলনের শিরোপা। মাত্র ৪ পয়েন্টের ব্যবধানে দ্বিতীয় হয়েছেন জনি। তাঁর বড় ভাই অ্যালিস্টার নেই সেরা পাঁচে। রেস শেষেই অবশ্য স্প্যানিয়ার্ড ট্রায়াথলন ফেডারেশন ‘ডিসকোয়ালিফায়েডে’র আবেদন করে ব্রাউনলি ভাইদের বিপক্ষে। কিন্তু অ্যাথলেটিকসে মহানুভবতার অনন্য নিদর্শনের জন্য বিশ্ব ট্রায়াথলন ফেডারেশন নাকচ করে সেই আবেদন। ব্যাপারটা জানতে পেরে ছোট ভাইকে সাহায্য করা অ্যালিস্টারের বিস্ময়, ‘শুধু নিজের ভাই বলে নয় তখন যেকোনো অ্যাথলেট এমন অবস্থায় থাকলে তাঁকে সাহায্য করতাম আমি। ’ মেইল অনলাইন


মন্তব্য