kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মরিনহোর টানা তৃতীয় হার

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



মরিনহোর টানা তৃতীয় হার

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে টানা তিন ম্যাচ জিতে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কোচ হিসেবে হোসে মরিনহোর শুরুটা ছিল আশা জাগানিয়া। কিন্তু খুব দ্রুতই মুদ্রার অপর দিকটাও দেখে ফেললেন স্বঘোষিত ‘স্পেশাল ওয়ান’।

ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ম্যানচেস্টার ডার্বিতে হারের পর ইউরোপা লিগে ফেইনুর্দের কাছেও হেরেছে ‘রেড ডেভিল’রা। হারের ধারা থেকে বের হয়ে আসার রাস্তা হতে পারত ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে ম্যাচটি। গত মৌসুমে লিগ টেবিলের ১৩ নম্বরে থাকা দলের সঙ্গে জেতা তো হলোই না ম্যানইউর, উল্টো ভিমরুলের চাকে ঢিল ছুড়ে নিজেরাই ৩-১ গোলে ধরাশায়ী! হলদে-কালো রঙের জার্সির জন্য হর্নেটস বা ভিমরুল বলেই ডাকা হয় ওয়াটফোর্ডের খেলোয়াড়দের, ভিকারেজ রোডে সেই ভিমরুলের চাক থেকেই টানা তৃতীয় হারের লজ্জা নিয়ে ফিরতে হচ্ছে মরিনহোর শিষ্যদের।

ইউরোপা লিগের ম্যাচটি বৃহস্পতিবার রাতে হয় বলেই হয়তো রবিবারের ম্যাচের জন্য ওয়েইন রুনিকে সেদিন নামাননি মরিনহো। শুরুতে বেঞ্চে বসিয়ে রেখেছিলেন জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচকেও। ওয়াটফোর্ডের বিপক্ষে দুজনেই মাঠে ছিলেন শুরু থেকেই। অ্যান্থনি মার্সিয়াল, মার্কাস রাশফোর্ডের সঙ্গে ইব্রাকে নিয়ে গড়া আক্রমণভাগটা কম ধারালো ছিল না মোটেও! তবু গোলের দেখা আগে পায়নি ম্যানইউ। যদিও ম্যাচের দ্বিতীয় মিনিটে রুনির ক্রসে স্মলিংয়ের হেডটা লক্ষ্যে থাকলে গল্পটা অন্য রকমও হতে পারত। ১৩তম মিনিটে ওয়াটফোর্ডের ওডিয়ন ইগহালোর ডানপায়ের শটটাও ডানদিকের পোস্ট ছাড়িয়ে বাইরে না গেলে বিপদ হতো ম্যানইউরও। সেই বিপদ এলো ৩৪তম মিনিটে। বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে ভুলের খেসারত দেয় ম্যানইউর রক্ষণ, সেই সুযোগে ড্যারিল ইয়ানমাতের ক্রসে বক্সের মাঝ বরাবর জায়গা থেকে এতিয়েঁ কাপুর শট ওয়াটফোর্ডকে এনে দেয় ১-০ গোলের অগ্রগামিতা।

এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করা ওয়াটফোর্ডের রক্ষণ ভেঙে ম্যানইউকে সমতায় ফেরান রাশফোর্ড। হুয়ান মাতা ডান প্রান্ত দিয়ে ঢুকে ক্রস করলেও সেটা ফিরে আসছিল ওয়াটফোর্ডের রক্ষণে প্রতিহত হয়ে, আলগা বল পেয়ে দারুণ নিয়ন্ত্রণ দেখিয়ে গোল করে ব্যবধান কমান ম্যানইউর তরুণ এই ফরোয়ার্ড। ম্যাচের ৬২ মিনিটে সমতায় ফিরলেও শেষ পর্যন্ত সেটা ধরে রাখতে পারেনি ম্যানইউ, উল্টো হুয়ান কামিলো সুনিগার দারুণ গোলে ফের এগিয়ে যায় ওয়াটফোর্ড। ইনজুরি সময়ে বক্সের ভেতর ফাউল করে আরো বিপদ ডেকে আনেন মারুয়ান ফেলাইনি, পেনাল্টি পায় ওয়াটফোর্ড। তা থেকে স্পটকিকে গোল করে শেষ সময়ে ব্যবধান আরো বাড়িয়ে নেন ট্রয় ডিনি। পেনাল্টিতে গোল হজমের পর কিক অফ করতে না করতেই রেফারির লম্বা বাঁশি, তাতেই ওড়ে ওয়াটফোর্ডের বিজয়কেতন।

এমন জয়ের পর সতীর্থদেরই কৃতিত্ব দিচ্ছেন ওয়াটফোর্ড অধিনায়ক ডিনি, ‘নিজেদের এতটা ভালো খেলতে দেখে একদমই অবাক হইনি। আমার তো মনে হয় মাঠে আমরাই ভালো খেলেছি আর বেশি সুযোগ তৈরি করেছি। ’ আর মরিনহো বলেছেন, ‘ম্যাচ থেকে তিনটি ব্যাপার উপলব্ধি করলাম, যার একটা আমি ভালো করতে পারি। প্রথমত আমরা সম্মিলিতভাবে অনেক ভুল করেছি, যেটা থেকে বের হয়ে এসে উন্নতি করতে হবে। এটা আমাদের হাতে। দ্বিতীয়ত রেফারি, তাদের ভুলগুলো তো আর আমার হাতে নেই। কি যে অদ্ভুত পরিস্থিতিতে ওদের প্রথম গোলটা হলো! তৃতীয়টা হচ্ছে ভাগ্য। ’

কাল ম্যানইউ হারলেও শনিবার ম্যানচেস্টার সিটি জিতেছে বড় ব্যবধানেই। বোর্নমাউথকে ৪-০ গোলে হারিয়ে লিগে পাঁচে পাঁচ গার্দিওলার; গোল করেছেন কেভিন দে ব্রুইন, কেলেচি ইহেনাচো, রহিম স্টারলিং ও ইল্কে গুন্ডেগান। ইসলাম স্লিমানির জোড়া গোলে প্রিমিয়ার লিগে দ্বিতীয় জয়ের দেখা পেয়েছে লিস্টার, অ্যালেক্সিস সানচেসের জোড়া গোলে ভর করে আর্সেনালও ৪-১ গোলে হারিয়েছে হাল সিটিকে। এভারটন ৩-১ গোলে হারিয়েছে মিডলসবরোকে। কাল রাতে টটেনহাম ১-০ গোলে হারিয়েছে সান্ডারল্যান্ডকে। সাউদাম্পটন ১-০ গোলে জিতেছে সোয়ানসির বিপক্ষে।

ইতালিয়ান সিরি ‘এ’তে ইন্টারমিলান ২-১ গোলে হারিয়েছে জুভেন্টাসকে। নাপোলি ৩-১ গোলে হারিয়েছে বোলোনিয়াকে আর লািসও ৩-০ গোলে জিতেছে পেসকারার সঙ্গে। ইএসপিএনএফসি, বিবিসি


মন্তব্য