kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


লিভারপুলের সামনে দিশাহারা চেলসি

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



লিভারপুলের সামনে দিশাহারা চেলসি

তৃতীয় দফা লন্ডন সফরে এসে লিভারপুল নিয়ে যাচ্ছে ৩ পয়েন্ট, চেলসিকে ২-১ গোলে হারিয়ে। সব মিলিয়ে লন্ডন থেকে এখন পর্যন্ত তারা বাগিয়েছে ৭ পয়েন্ট।

আর্সেনালের বিপক্ষে ৪-৩ গোলে জয়ের পর টটেনহামকে ১-১ গোলে রুখে দেওয়ার পাশাপাশি চেলসিকে তাদেরই মাঠে হারিয়ে লিভারপুল ফিরেছে মার্সিসাইডে। ম্যানচেস্টার সিটি ৪-০ গোলে হারিয়েছে বোর্নমাউথকে আর ইসলাম স্লিমানির জোড়া গোলে ভর করে লিস্টার ৩-০ গোলে হারিয়েছে বার্নলিকে। অ্যালেক্সিস সানচেসের জোড়া গোলে আর্সেনাল ৪-১ গোলে জিতেছে হাল সিটির সঙ্গে আর ওয়েস্ট ব্রম ৪-২ গোলে হারিয়েছে ওয়েস্টহ্যামকে।

ক্লপ ও আন্তনিও কন্তে, দুজনেই ফুটবল বিশ্বের নামজাদা দুই ধুরন্ধর কোচ। স্টামফোর্ড ব্রিজে সমর্থক, দলের খেলোয়াড়দের তালিকা সব কিছু তুল্যমূল্য বিচারে চেলসিই থাকবে এগিয়ে। তাদের কী দারুণভাবেই না আটকে দিলেন ক্লপ! পরীক্ষিত গেগেনপ্রেসিং কৌশলে ড্যানিয়েল স্টুরিজ ও সাদিও মানেকে ব্যবহার করেছেন দারুণ দক্ষতায়, তাতে ঢাকা পড়েছে রবার্তো ফিরমিনোর অনুপস্থিতি। সব মিলিয়ে লিভারপুলকে মনে হয়েছে চটপটে, দ্রুত, সাবলীল ও মারাত্মক প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক একটা দল; যাদের সামনে চেলসিকে লেগেছে পরিশ্রান্ত ও বিধ্বস্ত। অধিনায়ক জন টেরির অনুপস্থিতির সঙ্গে মাতিচ ও ইভানোভিচকে মনে হয়েছে তাঁরা চেলসিতে নিজেদের উপযোগিতা হারিয়েছেন! তাই স্কোরলাইন ২-১ হলেও লিভারপুল জিতেছে দাপটের সঙ্গেই।

ম্যাচের ১৭ মিনিটে ছোট করে নেওয়া ফ্রিকিকে নিজেদের মাঝে বল অদলবদলের পর কৌতিনিয়োর বাড়ানো ক্রসে দেজান লোভ্রেন যখন পা ছুঁইয়ে বলটা জালে পাঠান, চেলসির রক্ষণভাগের খেলোয়াড়রা তখন যেন নিদ্রামগ্ন! প্রতিরোধের ছিটেফোঁটাও ছিল না সেখানে। থ্রো ইন থেকে ভেতরে ঢোকা বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে চেলসির রক্ষণ থেকে বল চলে আসে হেন্ডারসনের পায়ে, বক্সের বাইরে থেকে জোরালো শটে তাঁর গোল অনেককেই মনে করিয়ে দিয়েছে স্টিভেন জেরার্ডকে! ২-০তে এগিয়ে প্রথমার্ধ শেষের পর দ্বিতীয়ার্ধে, ম্যাচের ৬১ মিনিটে ১ গোল শোধ করেন ডিয়োগো কোস্তা, তবে তাতে ব্যবধান কমালেও হার এড়াতে পারেনি চেলসি। এমন ম্যাচের পর ক্লপ তাই খোলা মনেই বলছেন, ‘অবশ্যই স্বস্তিদায়ক জয়। প্রথম মুহূর্ত থেকেই আমরা দারুণ খেলছিলাম। আমরা জান-প্রাণ দিয়ে ফুটবল খেলেছি। গোল খাওয়ার পরও বাকি সময়টা ভালোই সামলেছি। ’ অন্যদিকে চেলসি কোচ কন্তে বলছেন ‘আমরা অদ্ভুতভাবে দুটি গোল খেলাম। প্রথম গোলটায় তারা দ্রুত ফ্রিকিক নিয়ে নিল আর পরের গোলটা দূরপাল্লার দারুণ শটে খেয়ে গেলাম। যদিও সবাই নিজের কাজটা বুঝেশুনে থাকলে এমনটা হতো না। নিজেদের বড় দল ভাবলে প্রতিটা মুহূর্ত সজাগ থাকা উচিত। ’ ২০১৩ সালের জানুয়ারির পর স্বাগতিক দলের কোচ হিসেবে এটাই কন্তের প্রথম হার।

প্রিমিয়ার লিগে এখন পর্যন্ত পাঁচে পাঁচ পেপ গার্দিওলার ম্যানসিটির। বুধবার রাতে এই মাঠেই বরুশিয়া মুনচেনগ্ল্যাডবাখকে ৪-০ গোলে হারানো সিটিজেনরা একই স্কোরলাইনে জিতল বোর্নমাউথের সঙ্গেও। তবে বদল গোলদাতার নামে। আগের ম্যাচে হ্যাটট্রিক করা সের্হিয়ো আগুয়েরো খেলেননি এই ম্যাচে; তাতে করে একটা করে গোল কেভিন দি ব্রুইন, কেলেচি ইহেনাচো, রাহিম স্টারলিং ও ইল্কে গুন্ডেগানের। ম্যানসিটির শেষটা খারাপ হলো নলিতো লাল কার্ড দেখায়, নইলে এই ম্যাচ থেকে প্রাপ্তির খাতাই পূর্ণ থাকত সিটিজেনদের। ম্যাচের ১৭ ও ৮৩ মিনিটে সানচেসের দুটি গোলের সঙ্গে ৫৫ মিনিটে থিও ওয়ালকট ও ইনজুরি সময়ে গ্রানিত জাকার গোলে ৪-০ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে আর্সেনাল। গতবারের চ্যাম্পিয়ন লিস্টারের ৩-০ গোলের জয়ে দুটি গোল স্লিমানির, অন্যটি আত্মঘাতী। বিবিসি, স্কাই স্পোর্টস


মন্তব্য