kalerkantho


সেরাদের নিয়েই ইংল্যান্ডের দল

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



সেরাদের নিয়েই ইংল্যান্ডের দল

ক্রীড়া প্রতিবেদক : আশঙ্কার সময় সত্যিকার সেনাপতি পালান না যুদ্ধক্ষেত্র থেকে। বরং নেতৃত্ব দেন সবার সামনে দাঁড়িয়ে। এউইন মরগান অমনটা হতে পারেননি বলে খোদ ইংল্যান্ডেই তাঁকে ঘিরে জোর সমালোচনা। নিরাপত্তাহীনতা জুজুতে বাংলাদেশ সফরে আসতে যে অস্বীকৃতি জানান দেশটির ওয়ানডে অধিনায়ক! তাঁর পদাঙ্ক অনুসরণ ওপেনার অ্যালেক্স হেলসের। এ দুজনকে বাদ দিয়ে বাংলাদেশ সফরের জন্য সম্ভাব্য সবচেয়ে শক্তিশালী দলই কাল ঘোষণা করেছে ইংল্যান্ড।

 

পূর্ণাঙ্গ সফরে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশে আসছে ইংলিশরা। শুরুতে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। সে জন্য প্রত্যাশিতভাবে জস বাটলারকে অধিনায়ক করে ঘোষণা করা হয়েছে ১৫ সদস্যের দল। আর সিরিজের দ্বিতীয়ভাগের দুই টেস্টের সিরিজের জন্য স্কোয়াডটি ১৭ সদস্যের। সেখানে অধিনায়ক যথারীতি অ্যালিস্টার কুক। যিনি মরগানের মতো দায়িত্ব এড়িয়ে যেতে চাননি।

এমনকি বাংলাদেশ সফরের সময় সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর দ্বিতীয় সন্তানের জন্ম হওয়ার কথা থাকলেও। সে কারণে টেস্ট স্কোয়াডের অন্যদের চেয়ে দুই সপ্তাহ আগে বাংলাদেশে যাবেন কুক। এরপর সন্তানের জন্মের সময় ইংল্যান্ডে ফিরে যাওয়ার সূচি রয়েছে। যে কারণে চট্টগ্রামের এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে দুই দিনের দুটি অনুশীলন ম্যাচে থাকবেন না। তবে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ২০ মার্চ থেকে শুরু হওয়া প্রথম টেস্টে টস করতে নামবেন তিনি।

 

বাংলাদেশ সফরে ওয়ানডের নিয়মিত অধিনায়ক না থাকায় কিছুটা হতাশ ইংল্যান্ডের নির্বাচক জেমস হুইটেকার। তবে এর পরপরই যে ভারত সফর, সেখানে মরগানের কাছে অধিনায়কত্বের ফেরা দেখছেন তিনি, ‘মরগানের বাংলাদেশ সফরে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত কিছুটা হতাশার। তাঁর ও হেলসের জায়গায় অন্যরা এসে পারফরম্যান্স দিয়ে ওই দুজনকে চাপে ফেলতে পারে। আমরা তা পর্যালোচনা করব। তবে এই মুহূর্তে আশা করছি, ভারত সফরে মরগানই ওয়ানডে অধিনায়ক হবে। ’ সফর থেকে নাম প্রত্যাহার করা হেলস গত ১২ মাসে ওয়ানডেতে চার সেঞ্চুরি করেন। কিন্তু ক্যারিয়ারের ১১ টেস্টে ২৭.২৮ গড় মোটেও তাঁর সামর্থ্যের প্রতিফলক না। সফরে যেতে ইচ্ছুক হলেও টেস্ট দলে জায়গা পেতেন কি না, এমন প্রশ্নের নেতিবাচক জবাবই হুইটেকারের, ‘অ্যালেক্সের সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলেছি। টেস্ট স্কোয়াডে ও সুযোগ পেত না। ওর সামর্থ্যের ঝলক দেখালেও টেস্টে পাওয়া সুযোগ পুরোপুরি কাজে লাগাতে পারেনি। তার মানে এই নয় যে, এই ফরম্যাটে আর ফিরতে পারবে না। অ্যালেক্স কাউন্টি খেলবে এবং আমাদের চিন্তায় ভালোভাবেই রয়েছে। ’

কাল ঘোষিত ইংল্যান্ডের স্কোয়াডে সবচেয়ে বড় চমক ১১ বছর পর জাতীয় দলে গ্যারেথ ব্যাটির ফেরা। নিজের সাত টেস্টের সর্বশেষটি খেলেন ২০০৫ সালের জুনে, চেস্টার-লি-স্ট্রিটে বাংলাদেশের বিপক্ষে। মাত্র ১১ উইকেট শিকারের ক্যারিয়ারও খুব সমৃদ্ধ না। সেই অফস্পিনারকে ফিরিয়ে আনল ইংল্যান্ড। ২০ অক্টোবর প্রথম টেস্ট শুরু হতে হতে বয়স হয়ে যাবে ৩৯ বছর। বাংলাদেশ সফরের পর পর ভারতেও খেলবে ইংলিশরা। ব্যাটিং অভিজ্ঞতাতে তাই বাজি ধরছেন বলে জানান হুইটেকার, ‘দেশের অন্যতম সেরা ধীরগতির বোলার হিসেবে গ্যারেথের অভিজ্ঞতা এবং উপমহাদেশের পরিবেশে সফল হওয়ার সামর্থ্যও আসছে সফরে আমাদের খুব কাজে লাগবে। ’

ব্যাটি ফিরেছেন ১১ বছর পর। ওদিকে ঘোষিত স্কোয়াডের তিনজন রয়েছেন টেস্ট অভিষেকের অপেক্ষায়। ১৯ বছর বয়সী ল্যাংকাশায়ার ওপেনার হাসিব হামিদ, ২১ বছরের ওপেনার বেন ডাকেট ও বাঁহাতি স্পিনিং অলরাউন্ডার জাফর আনসারি। হামিদ এ বছরের কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপ ৫২ গড়ে করেন ১১২৯ রান। চট্টগ্রামে প্রথম টেস্ট খেললে তিনি হবেন ১৯৪৯ সালের পর ইংল্যান্ডের হয়ে টেস্ট খেলা দ্বিতীয় টিনএজার। সঙ্গী হবেন ১৯৯৭ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলা বেন হোলিওকের।

অভিষেকের অপেক্ষায় থাকা বেন ডাকেটও ওপেনার। এই মৌসুমে সব ফরম্যাট মিলিয়ে ২৭০০-র ওপরে রান করেছেন। ১৫টি প্রথম শ্রেণির ম্যাচে তাঁর চার সেঞ্চুরি, ৫০ ওভারের ক্রিকেটে গড় ৯৯। জুলাইয়ে পাকিস্তান ‘এ’-র বিপক্ষে অপরাজিত ১৬৩ এবং শ্রীলঙ্কা ‘এ’-র বিপক্ষে অপরাজিত ২২০ রানের ইনিংস দুটি দিয়ে নজর কাড়েন সবার। আর বাঁহাতি স্পিনার আনসারি গত বছর পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট স্কোয়াডে ছিলেন। কিন্তু বুড়ো আঙ্গুল ভেঙে যাওয়ায় অভিষেক হয়নি। এবার কাউন্টিতে ৩১ গড়ে ৩৯ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশ সফরের টেস্ট দলে জায়গা করে নেন আনসারি। এ ছাড়া কাল ঘোষিত ইংল্যান্ড দলে জো রুটকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে ওয়ানডেতে। টেস্ট স্কোয়াডে রয়েছেন তিনি।

মরগানের অনুপস্থিতিতে বাটলার নেতৃত্ব দেবেন ওয়ানডে দলের। সহ-অধিনায়ক হিসেবে কারো নাম ঘোষণা করা হয়নি। তবে সে দায়িত্বের জন্য বেন স্টোকসের দিকে ইঙ্গিত হুইটেকারের, ‘আমরা এখনো কাউকে সহ-অধিনায়ক করিনি। তবে সব ফরম্যাটেই বেন স্টোকস ক্রমশ আরো বেশি করে দায়িত্বশীল ভূমিকা নিচ্ছে। ও খেলাটি পড়তে পারে বিচক্ষণতার সঙ্গে। অন্য খেলোয়াড়দের উদ্বুদ্ধ করতে পারে দারুণভাবে। জস ও প্রধান কোচ ট্রেভর বেলিস ব্যাপারটি নিশ্চয়ই দেখবেন। ’

এই মৌসুমে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন টেস্টের সিরিজ ২-০, পাঁচ ওয়ানডের সিরিজ ৩-০ এবং একমাত্র টি-টোয়েন্টিতে জেতে ইংল্যান্ড। পাকিস্তানের বিপক্ষে চার টেস্টের সিরিজ ড্র হয় ২-২ ব্যবধানে। এরপর ওয়ানডে সিরিজ ৪-১ ব্যবধানে জিতলেও হেরে যায় একমাত্র টি-টোয়েন্টিতে। ভালো ফর্ম নিয়েই তাই বাংলাদেশ সফরে আসছে তারা।


মন্তব্য