kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দুই আর্জেন্টাইনের হ্যাটট্রিকে শুরু চ্যাম্পিয়নস লিগ

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



দুই আর্জেন্টাইনের হ্যাটট্রিকে শুরু চ্যাম্পিয়নস লিগ

ব্রেন্ডন রজার্স বলতে পারেন, সব দোষ অ্যালাভেসের! কেনই-বা  তারা ন্যু ক্যাম্পে হারাতে গেল বার্সেলোনাকে, যার ঝালটা এসে পড়ল সেল্টিকের ওপর! মঙ্গলবার থেকে মাঠে গড়িয়েছে ইউরোপের সেরা ক্লাব ফুটবল প্রতিযোগিতা উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ, তাতে লিওনেল মেসির হ্যাটট্রিকে সেল্টিককে ৭-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে দুরন্ত শুরু বার্সেলোনার। চ্যাম্পিয়নস লিগের প্রথম ‘ম্যাচ ডে’ ছিল মঙ্গলবার ও বুধবার রাতে, মঙ্গলবার মেসির হ্যাটট্রিকের খবর ম্যানচেস্টারের ইত্তেহাদ স্টেডিয়ামে ভেসে আসতেই বোধহয় তেতে উঠেছিলেন সের্হিয়ো আগুয়েরো।

ম্যানচেস্টার ডার্বিতে না খেলা এই আর্জেন্টাইন হ্যাটট্রিক করলেন চ্যাম্পিয়নস লিগের নতুন মৌসুমের প্রথম ম্যাচেই, তাঁর ৩ গোলের সঙ্গে কেলেচি ইহেনাচোর শেষ সময়ের গোলে বিধ্বস্ত বরুশিয়া মুনচেনগ্ল্যাডবাখ। নিজের শৈশবের দল স্পোর্তিং লিসবনের সঙ্গে গোল করে চ্যাম্পিয়নস লিগের নতুন মৌসুমে গোলের খাতা খুলেছেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোও, সঙ্গে আলভারো মোরাতার লক্ষ্যভেদে শেষ ৫ মিনিটে ২ গোল দিয়ে লিসবনের বিপক্ষে ২-১ গোলে জিতে শুরু করেছে ইউরোপের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। রোস্তভের সঙ্গে বায়ার্ন মিউনিখের ম্যাচটি বৃষ্টিতে এক দিন পিছিয়ে হয়েছে বুধবারে, তাতে ৫-০ গোলের বড় জয় বাভারিয়ানদের।

অ্যালাভেসের বিপক্ষে দল নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফলটা হাতেনাতে পাওয়াতে সেল্টিকের বিপক্ষে কোনো ঝুঁকিতেই যাননি বার্সেলোনা কোচ লুই এনরিকে। মৌসুমে প্রথমবার একসঙ্গে নামলেন এমএসএন, এনরিকে ফলটাও পেলেন হাতেনাতে। ম্যাচের তৃতীয় মিনিটেই নেইমারের অ্যাসিস্ট থেকে মেসির গোল, যা ছিল চ্যাম্পিয়নস লিগে মেসির ৮৪তম গোল এবং সেল্টিকের বিপক্ষে ৫ ম্যাচে মেসির চতুর্থ গোল। এখানেই থেমে থাকেননি মেসি, বরং হিসাবরক্ষকদের কাজ আরো বাড়িয়ে দিয়ে ম্যাচে করেছেন আরো ২ গোল! ম্যাচের ২৭ ও ৬০ মিনিটে করেছেন আরো দুটি গোল, সব মিলিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে ৮৬ গোল করে সর্বোচ্চ গোলদাতার তালিকায় মেসি ব্যবধান কমালেন রোনালদোর সঙ্গে। সেল্টিকের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করে ইউরোপের যেকোনো প্রতিযোগিতায় সবচেয়ে বেশি, ছয়বার হ্যাটট্রিক করার রেকর্ড গড়েছেন মেসি। এই রেকর্ডে তিনি পেছনে ফেলেছেন রোনালদোকে। সেই সঙ্গে চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপ পর্যায়ে ৫০ ম্যাচে মাঠে নামার রেকর্ডেও পেছনে ফেলেছেন ‘সিআরসেভেন’কে। একটি মাঠে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ডেও ছাপিয়ে গেছেন রিয়ালের রাউল গনসালেসকে, সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে রাউলের ৪৬ গোলের রেকর্ড ছাপিয়ে ন্যু ক্যাম্পে ৪৭ গোল মেসির। সেল্টিকের জালে ৭ গোলের ম্যাচে হয়েছে আরো অনেক কিছুই। চ্যাম্পিয়নস লিগে ৩৬ ম্যাচ পর গোল করেছেন আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা, ৪টি অ্যাসিস্টের পর ফ্রি কিক থেকে গোল করেছেন নেইমার। জোড়া গোল সুয়ারেসেরও। সব মিলিয়ে টর্নেডোর মুখে পড়া সেল্টিক কোচ রজার্স তো শেষের সময়টা কাটিয়েছেন সমাপ্তির অপেক্ষায়, ‘শেষের ১৫-২০টি মিনিট মনে হচ্ছিল অনেক লম্বা। ’ অথচ মেসির গোল শোধ করে সমতা ফেরানোর সহজ সুযোগটা এসেছিল সেল্টিকের সামনে। ম্যাচের ২৪ মিনিটে বক্সের ভেতর মুসা দেম্বেলেকে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখে পেনাল্টির বিপদ ডেকে আনেন টের স্টেগেন, নিজেই দলকে বিপদ থেকে বাঁচান দেম্বেলের শট ঠেকিয়ে। এটাই আক্ষেপ রজার্সের, ‘অ্যালাভেসের কাছে হারের পর আমরা যদি ১-১ করে ফেলতে পারতাম, তাহলে স্বাগতিকদের একটু চাপে রাখা যেত। তা তো হলোই না উল্টো দ্রুত আরেক গোল হজম করে ২-০তে পিছিয়ে পড়লাম। ’ আর ক্যারিয়ারে ৪০তম হ্যাটট্রিক করা মেসি সম্পর্কে লুই এনরিকে বললেন বহুশ্রুত সেই শব্দগুলোই, যা মেসি কখনো পুরাতন হতে দিচ্ছেনই না, ‘মেসি যেকোনো পজিশনেই বিশ্বে সেরা খেলোয়াড়। তাকে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দেওয়া হয়েছে, সে যখন যে পজিশনেই ইচ্ছা খেলতে পারে। সে ৯, ৮, ৬—যে জায়গাতেই খেলবে সেখানেই সেরা। সে ৪০ গজ দূর থেকে নিখুঁত পাস বাড়াতে পারে, যেখানে ইচ্ছা সেখানে বল পাঠাতে পারে। আমার কাছে সে সর্বকালের সেরা। ’

সের্হিয়ো আগুয়েরো চলতি মৌসুমে গোলের দেখা পাচ্ছেন নিয়মিতই। পেপ গার্দিওলার হাতে পড়া ম্যানসিটির প্রথম গোল এসেছে এই আর্জেন্টাইনের পা থেকেই, চ্যাম্পিয়নস লিগের প্লে-অফে স্টুয়া বুখারেস্টের বিপক্ষে দুটি পেনাল্টি মিস করেও করেছিলেন হ্যাটট্রিক। মূলপর্বেও সেই গোলধারা ধরে রেখেছেন আগুয়েরো, মুনচেনগ্ল্যাডবাখের বিপক্ষে ম্যাচের ৯ মিনিটে প্রথম গোলের পর ২৮ মিনিটে পেনাল্টি থেকে দ্বিতীয় গোল ও ৭৭ মিনিটে তৃতীয় গোল করে করে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন এই আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। ম্যাচের অন্তিম সময়ে ইহেনাচোর গোলে ৪-০ গোলের বড় জয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ শুরু হয় সিটিজেনদের।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ জয়ের সুবাদে এবারই প্রথম উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলছে লিস্টার সিটি। এর আগে একবার উয়েফা কাপ উইনার্স কাপ ও দুইবার উয়েফা কাপ খেলেছিল ফক্সরা, তাও সবশেষ ইউরোপিয়ান উপস্থিতি ১৬ বছর আগে! প্রথমবার চ্যাম্পিয়নস লিগ খেলতে নেমে প্রথম ম্যাচেই ক্লাউদিও রানিয়েরির দল ৩-০তে হারিয়েছে ক্লাব ব্রুজেকে। পেনাল্টি ও ফ্রিকিক থেকে জোড়া গোল রিয়াদ মাহরেজের, অন্য গোলটি অলব্রাইটনের।

লম্বা সময় পর জাদুকরী ফ্রি কিকে গোল দেখা গেল রোনালদোর পায়ে। নিজেদের মাঠে ম্যাচের ৪৮ মিনিটে গোল খেয়ে হারের মুখে দাঁড়ানো রিয়ালের হয়ে নিজের শৈশবের ক্লাবের বিপক্ষে ২৫ মিটার দূর থেকে ফ্রি কিকে গোল করে সমতা ফেরান রোনালদো। এরপর ম্যাচের একেবারে অন্তিম সময়ে, ইনজুরি সময়ের চতুর্থ মিনিটে আলভারো মোরাতার গোলেই জয় দিয়ে শুরু ১১ বারের চ্যাম্পিয়নদের। উয়েফা

 


মন্তব্য