kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


রেকর্ড ছোঁয়ার দ্বারপ্রান্তে রোনালদোরা

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



রেকর্ড ছোঁয়ার দ্বারপ্রান্তে রোনালদোরা

অর্ধশতাব্দীর বেশি সময় ধরে কত নক্ষত্রপুঞ্জই তো আলোকিত করেছে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুকে। এসেছে উনদেসিমাও।

কিন্তু মিগেল মুনোজের দলের রেকর্ডটা এখনো অক্ষত। ১৯৬০-৬১ মৌসুমে লা লিগায় টানা ১৫ ম্যাচ জিতেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। পাঁচ দশকের বেশি সময়েও সেই কীর্তির পুনরাবৃত্তি করে দেখাতে পারেননি কোনো কোচ, এবার জিনেদিন জিদানের সামনে সেই হাতছানি। এ ফরাসি কিংবদন্তি খেলোয়াড় হিসেবে রিয়ালের সেরাদের একজন, এবার কোচ হিসেবেও সেরাদের তালিকায় নামটা লিখিয়ে ফেলতে পারেন। প্রাথমিক শর্তটা হচ্ছে, ওসাসুনার বিপক্ষে রিয়াল যদি জেতে! আজ প্যাম্পলোনার দলকে হারালেই টানা ১৫ জয় হয়ে যাবে রিয়ালের, এর পরের রবিবার এস্পানিওলের বিপক্ষে জিতলে হবে টানা ১৬ জয়, যে রেকর্ডটা লা লিগায় আছে শুধু বার্সেলোনার। ২০১০-১১ মৌসুমে কাতালানরা জিতেছিল টানা ১৬ ম্যাচ।

গত মৌসুমের শেষ ১২ ম্যাচ জিতেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। তাতেই তো পিছিয়ে পড়েও শিরোপার দৌড়ের শেষ ল্যাপে শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার ঘাড়ের ওপর নিঃশ্বাস ফেলেও মাত্র ১ পয়েন্টের ব্যবধানে শিরোপা খুইয়েছিল লস ব্লাংকোসরা। এবার মৌসুমের শুরুর দুটি ম্যাচই জিতেছে তারা, ওসাসুনার বিপক্ষে ম্যাচটি জিতলেই মৌসুমের তৃতীয় আর টানা ১৫ জয় হবে রিয়ালের। এমন ম্যাচেই প্রত্যাবর্তন হচ্ছে পর্তুগিজ যুবরাজের। দেশকে প্রথম ইউরো শিরোপা জেতানো রোনালদো ফাইনালের সেই চোটের জের কাটিয়ে সেরে উঠে আজ মাঠে নামবেন রিয়ালের হয়ে।

লুই সুয়ারেসও জাতীয় দলের হয়ে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের খেলা শেষে ফিরেছেন বার্সেলোনায়। কোপা দেল রের ম্যাচে ২৬ মে সেভিয়ার বিপক্ষে সবশেষবারের মতো একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল এমএসএন ত্রয়ীকে। শুক্রবারের অনুশীলনে ১০৬ দিন পর একসঙ্গে দেখা গেল মেসি, নেইমার ও সুয়ারেসকে। আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে ফেরা বার্সেলোনার সবশেষ খেলোয়াড়টি সুয়ারেস। সবাইকে ফিরে পেয়ে হাসিমুখেই দেখা গেছে লুই এনরিকেকে। অ্যালাভেসের সঙ্গে নিজের মাঠে খেলা বার্সেলোনার, তাতে মেসির শুরুর একাদশে থাকার সম্ভাবনা কম। এএফপি, গোল ডটকম


মন্তব্য