kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মুকুট হারালেন সেরেনা

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



মুকুট হারালেন সেরেনা

৩৪ বছর বয়সেও টেনিস রাজত্বটা ধরে রেখেছিলেন সেরেনা উইলিয়ামস। শীর্ষস্থানের মুকুট মাথায় ছিল টানা ১৮৬ সপ্তাহ।

থামতে হলো সেখানেই। ক্যারোলিনা প্লিসকোভার কাছে ৬-২, ৭-৬ গেমের অপ্রত্যাশিত হারে বিদায় নিতে হলো ইউএস ওপেনের সেমিফাইনাল থেকে। সেরেনার মুকুটটা এখন অ্যাঞ্জেলিক কেরবারের মাথায়। গত পরশু অপর সেমিফাইনালে তিনি সরাসরি ৬-৪, ৬-৩ গেমে হারিয়েছেন সাবেক নাম্বার ওয়ান ক্যারোলিন ওজনিয়াকিকে। আজ ফ্ল্যাশিং মিডো তাই পাচ্ছে নতুন চ্যাম্পিয়ন। এবারই যে প্রথম ফাইনালে পা রেখেছেন কেরবার ও প্লিসকোভা।

চোট থাকলেও কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত দাপটে এসেছিলেন সেরেনা উইলিয়ামস। হারেননি কোনো সেট। শেষ আটের ম্যাচে সিমোনা হালেপের কাছে প্রথম তেতো স্বাদ পান কোনো সেট হারার। ম্যাচটি জিতলেও তিনি যে ফিট নন, বোঝা যাচ্ছিল প্রকটভাবে। গত পরশুর সেমিফাইনালে প্লিসকোভার আক্রমণাত্মক টেনিসে হেরেছেন যতটা এর চেয়ে বেশি নিজের ফিটনেসের কাছেও। তাই ম্যাচ হেরে সেরেনার হতাশা, ‘সহজ সহজ কত শট মিস করেছি অবলীলায়। মানসিকভাবে শুধু মনে হচ্ছিল পা চলছে না, শটের ওপর মনোযোগই দিতে পারছিলাম না। তবে কৃতিত্বটা প্লিসকোভার। দারুণ খেলেছে ও। এর চেয়ে একটু খারাপ খেললে হয়তো জিততাম আমি। ’ ইউএস ওপেন জিতলে ১৮৭ সপ্তাহ শীর্ষে থেকে পেছনে ফেলতে পারতেন স্টেফি গ্রাফের ১৮৬ সপ্তাহের রেকর্ড। এই হারে সমতায় থাকতে হলো তাঁর সঙ্গে। পাশাপাশি ছাড়িয়ে যাওয়া হলো না স্টেফির ২২ গ্র্যান্ড স্লাম জয়ের কীর্তিও।

এর আগে ১৭ গ্র্যান্ড স্লামের কোনোটির তৃতীয় রাউন্ডে পৌঁছতে না পারা প্লিসকোভার কাছে চতুর্থ রাউন্ডে হেরেছিলেন ভেনাস উইলিয়ামস। দশম বাছাই ২৪ বছর বয়সী এই চেক সেমিফাইনালে হারালেন সেরেনাকেও। ১৯৯৩ সালে হেলেনা সুকাভোর পর প্রথম চেক হিসেবে ইউএস ওপেনের ফাইনালে পৌঁছে তাঁর উচ্ছ্বাস, ‘জানতাম নিজের সেরাটা খেলতে পারলে যে কাউকে হারাতে পারি। তবে ভেনাসের চেয়ে বেশি কষ্ট হয়েছে সেরেনাকে হারাতে। ’ অ্যাঞ্জেলিক কেরবারও ১৯৯৬ সালে স্টেফি গ্রাফের পর প্রথম জার্মান হিসেবে পৌঁছলেন ইউএস ওপেনের ফাইনালে। স্টেফির পর প্রথম জার্মান নাম্বার ওয়ানও তিনি। সিনসিনাটি ওপেনেই পেয়েছিলেন সুযোগটা। কিন্তু প্লিসকোভার কাছে ফাইনালে হেরে পাওয়া হয়নি মুকুট। ইউএস ওপেনের ফাইনালেও সেই প্লিসকোভা। এবার কি তবে প্রতিশোধ নেবেন কেরবার? মুখোমুখি লড়াইয়ে অবশ্য এগিয়ে তিনিই। সাতবারের দেখায় জিতেছেন চারবার। তবে ফাইনালে বাড়তি চাপ না নিয়ে স্বাভাবিক ছন্দে খেলতে চান কেরবার, ‘ফাইনালে পৌঁছানো আর র্যাংকিংয়ের একে ওঠা, স্বপ্নের একটা দিন কাটল। ফাইনালে নিজের স্বাভাবিক টেনিস খেলতে চাই এখন। ’ এএফপি


মন্তব্য