kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ম্যানচেস্টার ডার্বি নতুন রঙে

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ম্যানচেস্টার ডার্বি নতুন রঙে

আজ আবার : মঞ্চটা বদলেছে কিন্তু প্রতিদ্বন্দ্বিতার ঝাঁজ একটুও কমেনি। হোসে মরিনহো ও পেপ গার্দিওলা, একটা সময় এই দুজন ছিলেন দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনার কোচ। সময়ের সঙ্গে দুজনের ঠিকানা বদলেছে। এবারে ম্যানইউর কোচ মরিনহো, ম্যানসিটিতে গার্দিওলা। ম্যানচেস্টার ডার্বি ফের মুখোমুখি করে দিল তাঁদের। ম্যাচটি দেখাবে স্টার স্পোর্টস টু। শুরু হবে বিকেল সাড়ে ৫টায়।

তাতিয়ে দেওয়ার জন্য ম্যানচেস্টার ডার্বিই যথেষ্ট। তার ওপর এবার আবার মুখোমুখি পেপ গার্দিওলা-হোসে মরিনহো।

আজকের ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড-ম্যানচেস্টার সিটি দ্বৈরথের আবহে ছিল তাই বারুদের ঝাঁজালো গন্ধ। কিন্তু ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে যে শান্তির সাদা পতাকা উড়িয়ে দিলেন দুই কোচ! কথার লড়াই নেই, নেই তীর্যক মন্তব্য—বরং পরস্পরের প্রতি শ্রদ্ধা ঝরে তাঁদের কণ্ঠে।

মরিনহো আগেই বলেছিলেন, ইংল্যান্ডের ঐতিহ্য মেনে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের লড়াই শেষে প্রতিপক্ষের কোচ গার্দিওলাকে ওয়াইনের আমন্ত্রণ জানাবেন। এটি মনে করিয়ে দিতেই কাল গার্দিওলার চটপট জবাব, ‘মরিনহো যদি ওয়াইনের নিমন্ত্রণ জানায়, অবশ্যই আমি তা গ্রহণ করব। ’ বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক দুই কোচের সম্পর্ক তিক্ত না বলেও দাবি করেন তিনি, ‘এর আগেও অনেকবার বলেছি যে মরিনহোর প্রতি আমার পূর্ণ শ্রদ্ধা রয়েছে। আমি সব সময় অন্য কোচদের কাছ থেকে শিখতে চাই, যা মরিনহোর বেলায়ও সত্য। আসলে এই প্রতিদ্বন্দ্বিতা বেশি করে তৈরি করেছে গণমাধ্যম। আমরা তা নিয়ন্ত্রণ করতে পারি না। ’ নিজেদের সম্পর্কটা বোঝাতে সঙ্গে যোগ করেন, ‘দুজন কোচ হিসেবে বার্সেলোনা-রিয়াল মাদ্রিদে থাকার সময়টা আমাদের জন্য সহজ ছিল না। কিন্তু দু-তিন সপ্তাহ আগে তো প্রিমিয়ার লিগের কোচদের সভায় আমাদের দেখা হলো। কথা হলো। ’

দুই কোচের সম্পর্কের অতীত রয়েছে, তবে বর্তমানে কিন্তু তাঁদের দুই দল ম্যানইউ-ম্যানসিটি একই সমতায় দাঁড়িয়ে। দুজনই এবার দায়িত্ব নিয়েছেন নতুন ক্লাবের। গ্রীষ্মে প্রচুর অর্থ ব্যয়ে নিজ নিজ ক্লাবের খোলনলচে পাল্টে ফেলেন। আজ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ৬০০ মিলিয়ন পাউন্ড সমমূল্যের ২২ জন মাঠে নামবে বলে দাবি করছে ইংলিশ গণমাধ্যম, যা চিত্রিত ফুটবলের সবচেয়ে দামি ম্যাচ হিসেবে। দুই দলই লিগে নিজেদের প্রথম তিন ম্যাচ জিতেছে। ম্যাচটি ডার্বি বলেই আলাদা গুরুত্ব দিতে নারাজ মরিনহো, ‘আমরা শিরোপার জন্য খেলি। এই যখন অবস্থা, তখন মৌসুমের এ পর্যায়ে কোনো এক ম্যাচকে আলাদা গুরুত্ব দেওয়ার উপায় নেই। তবে ডার্বি ম্যাচের মানে কী আমি জানি। এখানে জিততে হলে সামর্থ্যের শীর্ষে থাকতে হবে। ’ প্রতিপক্ষকে ভীষণ সমীহও করছেন ম্যানইউ কোচ, ‘ওরা শিরোপার দাবিদার, সে কারণে ম্যানসিটিকে সমীহ না করে উপায় নেই। ’

ইনজুরি নিয়ে বড় রকম শঙ্কা নেই কোনো ক্যাম্পে। তবে বহিষ্কারাদেশের কারণে ম্যানসিটি পাচ্ছে না সেরা ফরোয়ার্ড সের্হিয়ো আগুয়েরোকে। তবে ওই আর্জেন্টাইন ছাড়াও প্রতিপক্ষকে ভয়ংকর মানছেন মরিনহো, ‘আগুয়েরো থাকলে তা হতো আমাদের জন্য কঠিন। না থাকাটা আরো কঠিন। ইহেনাচো, স্টার্লিং, দাভিদ সিলভার মতো ফুটবলার রয়েছে ম্যানসিটির। ওদের কোচের তাই সুযোগ আছে দলকে অনেকভাবে খেলানোর। ’ ম্যানইউকে নিয়ে একই রকম সমীহ আবার গার্দিওলারও, ‘আমাদের মতো ইউনাইটেডও উন্নতি করছে। ওদের দলেও অনেক প্রতিভা। সত্যি দুর্দান্ত এক দল ওরা। ’

এই পারস্পরিক সমীহ কি বন্ধুত্বের বাতাবরণে আজকের ডার্বির মঞ্চ প্রস্তুত করল! নাকি তা ঝড়ের আগের শান্ত পরিস্থিতি? ডেইলি মেইল


মন্তব্য