kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


হকিতে পুরো জার্মান কোচিং স্টাফ

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



হকিতে পুরো জার্মান কোচিং স্টাফ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : নভেম্বরে এএইচএফ কাপ হকি টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে ফেডারেশন পাঁচ জার্মানকে নিয়োগ দিয়েছে। অনেক সমালোচনা থাকলেও কোকেন সেবনের দায়ে দুই বছর নিষিদ্ধ থাকা সাবেক জার্মান হকি খেলোয়াড় অলিভার কার্টজের হাতেই তুলে দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশ হকি দলের দায়িত্ব।

প্রধান কোচের সঙ্গে থাকছেন উপদেষ্টা কোচ পিটার গেরহার্ড, প্রধান টেকনিক্যাল নির্বাহী লুজার বিসমান, ভিডিও অ্যানালিস্ট অ্যাখিম মেনট্রেস ও ফিজিও জুসট ক্রুইজেন। তাঁদের সঙ্গে থাকবেন স্থানীয় কোচ মাহবুব হারুন এবং সমন্বয়কারী আরিফুল হক প্রিন্স।

গতকাল হকি ফেডারেশনের সংবাদ সম্মেলনে এই পুরো জার্মান কোচিং স্টাফ নিয়োগের ঘোষণা দিয়েছেন কর্তারা। তাদের নেওয়া হয়েছে তিন মাসের চুক্তিতে এবং একটি প্যাকেজের আওতায়। ফেডারেশনের সহসভাপতি শফিউল্লাহ আল মুনির জানিয়েছেন, ‘জার্মানির একটি আইনি উপদেষ্টা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে হকি ফেডারেশনের চুক্তি হয়েছে এই পাঁচ কোচের জন্য। এ প্যাকেজের আওতায় খেলোয়াড়রা জার্মানিতে যাবেন কন্ডিশনিং ক্যাম্প করতে, ইতিমধ্যে চলে গেছেন পাঁচ খেলোয়াড়। মাহবুব হারুন এবং প্রিন্সও ওই কোচিং স্টাফে যোগ দেবেন। ’ মুনিরের সঙ্গে কিছুদিন আগে হকি ফেডারেশনের কমিটিতে ঢুকেছেন প্রিন্স, অথচ কোচ লাঞ্ছনার অপরাধে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা করেছিল হকি ফেডারেশন। হকি ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক আবদুস সাদেক কোচিং স্টাফ নিয়োগের পেছনে নভেম্বরে টুর্নামেন্ট জয়ের লক্ষ্যের কথা বলেছেন, ‘হংকংয়ে নভেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য এএইচএফ হকি টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হতেই হবে বাংলাদেশকে। নইলে এশিয়া কাপে কোয়ালিফাই করতে পারব না আমরা। ’

এ ছাড়া খণ্ডকালীন প্যাকেজের মধ্যে থাকছে হকির জন্য পূর্ণাঙ্গ কর্মকৌশল ঠিক করা, শক্তিশালী জাতীয় দল গঠন করা, ফেডারেশনের রাজস্ব আয় বৃদ্ধি করা, সর্বক্ষেত্রে পেশাদারি তৈরি করা, তৃণমূল পর্যায় থেকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলোয়াড়দের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা। হকির ‘ব্র্যান্ড ভেল্যু’ বৃদ্ধি করা এবং অংশীদারত্বের ভিত্তিতে বিকেন্দ্রীকরণ করার প্রোজেকশনের পর আবদুস সাদেক বলেছেন, ‘খণ্ডকালীন হলেও আমরা পেশাদারির পথে এগোনোর চেষ্টা করছি। বাকিটা সময়ের ব্যাপার। তবে আমরা এএইচএফ কাপে চ্যাম্পিয়ন হতে চাই। এটাই বড় কথা। আমাদের এই স্বপ্ন পূরণে সহসভাপতি মুনীর এগিয়ে আসায় তাঁকে ধন্যবাদ জানাই। ’


মন্তব্য