kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


স্পিন কোচ ছাড়াই ইংল্যান্ড সিরিজ

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



স্পিন কোচ ছাড়াই ইংল্যান্ড সিরিজ

ক্রীড়া প্রতিবেদক : কোর্টনি ওয়ালশ একটি সমস্যার সমাধান হয়ে আসছেন। হিথ স্ট্রিকের ছেড়ে যাওয়া ফাস্ট বোলিং কোচের শূন্য পদ ভরছে ওই ক্যারিবীয় কিংবদন্তিকে দিয়েই।

তবু পরিপূর্ণ নয় বাংলাদেশ দলের কোচিং স্টাফ। কারণ আরেকটি পদ যে এখনো খালি। সেটি স্পিন বোলিং কোচের। বাংলাদেশের নিরাপত্তা পরিস্থিতির দোহাই দিয়ে এখানে আসতে গড়িমসি করে চাকরিচ্যুত সাবেক সহকারী কোচ রুয়ান কালপাগেই এত দিন বাংলাদেশ দলের স্পিনারদের দেখভাল করে এসেছেন। স্ট্রিক চলে যাওয়ার পর পেসারদেরও দেখার কেউ ছিলেন না। সেই হাহাকার ওয়ালশকে দিয়ে যখন ঘুচে যাওয়ার অপেক্ষা, তখন স্পিনাররা হয়ে পড়েছেন অভিভাবকহীন। এই অবস্থায়ই থাকতে হবে আরো বেশ কিছু দিন। কারণ গতকাল সকালে দেশে ফিরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান জানিয়েছেন পছন্দসই কোচ না পাওয়ায় ইংল্যান্ড সিরিজ স্পিন কোচ ছাড়াই চালাতে হবে সাকিব আল হাসান-তাইজুল ইসলামদের।

বিসিবির আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড (ডাব্লিউআইসিবি) আগের দিন আগ বাড়িয়ে ওয়ালশের নিয়োগ পাওয়ার খবর দিয়ে দেওয়ায় গতকাল নাজমুলের এ বিষয়ে নতুন কোনো খবর দেওয়ার ছিল না। নতুন বলতে স্পিন কোচ নিয়োগের ক্ষেত্রে সবশেষ তথ্য জানাতে পারলেন। সিঙ্গাপুর থেকে ফিরে বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের বলছিলেন, ‘স্পিন কোচের জায়গাটি এখনো খালি আছে। আশা করছি, শিগগিরই একজনকে আমরা পেয়ে যাব। ’ পেলেও যে সেই নিয়োগ ইংল্যান্ড সিরিজের আগে হচ্ছে না, সেটিও নিশ্চিত করেছেন বিসিবিপ্রধান, ‘ইংল্যান্ড সিরিজের আগে সম্ভব হবে না। তবে আশা করছি, নিউজিল্যান্ড সিরিজের আগে একজন ভালো স্পিন কোচ আমরা পেয়ে যাব। ’ বিলম্বের কারণও ব্যাখ্যা করেছেন তিনি, ‘আসলে সমস্যা হচ্ছে আমরা যে ধরনের স্পিন কোচ চাচ্ছি, তেমন কাউকে এখন পর্যন্ত পাইনি। ’ সে জন্যই ধীরে-সুস্থে এগোনোর নীতি, ‘এখন যাঁদের পাওয়া যাচ্ছে, তাঁদের মধ্যে সবচেয়ে ভালো জনকেই আমরা নিয়ে নেব। ’

যাঁকে নেওয়া হবে, তিনি দীর্ঘ মেয়াদেই নিয়োগ পাবেন বলেও জানিয়েছেন নাজমুল। সেটিই হওয়ার কথা। কারণ সদ্য নিয়োগ পাওয়া ওয়ালশ এবং হেড কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহেসহ জাতীয় দলের কোচিং স্টাফের অন্য সদস্যদের সঙ্গেও বিসিবির চুক্তি ২০১৯ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় পরবর্তী ওয়ানডে বিশ্বকাপ পর্যন্ত। অবশ্য এর পাশাপাশি কিছু স্বল্পমেয়াদি নিয়োগও আছে। তেমনই একটি করে নিয়োগ এবং পদোন্নতির খবর কালের কণ্ঠ’র পাঠকরা আগেই জেনেছেন। কালপাগের জায়গায় ফিল্ডিং কোচ রিচার্ড হালসালকে সহকারী কোচ করা এবং ব্যাটিং উপদেষ্টা হিসেবে থিলান সামারাবীরাকে আনার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়াই শুধু বাকি ছিল। নাজমুল কাল সেটিই দিলেন। সামারাবিরাকে আপাতত পরীক্ষামূলকভাবে আনার কথাও বললেন তিনি। কাজে সন্তুষ্ট হলে তাঁর সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হতে পারে বলেও উল্লেখ করতে ভোলেননি নাজমুল, ‘ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে থিলান সামারাবিরাকে আপাতত আমরা ইংল্যান্ড সিরিজের জন্য নিয়োগ দিচ্ছি। তাঁকে আমরা দেখব। এরপর পরবর্তীতে চুক্তির মেয়াদ বাড়ানো যায় কি না, আলোচনা করব তা নিয়েও। ’ আর আজ রাতেই ঢাকায় পা রাখতে যাওয়া ওয়ালশকে নিয়েও ভীষণ আশাবাদী শুনিয়েছে তাঁর কণ্ঠ, ‘উনি জানেন যে কী করতে হবে। এখন আমাদের ছেলেরা তাঁর কাছ থেকে কতটুকু নিতে পারবে, সেটা সময়ই বলবে। আমার ধারণা, উনি আমাদের পেস বোলিংয়ের জন্য বিরাট সংযোজন। ’


মন্তব্য