kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জীবনে এমন দিন দেখতে হবে কল্পনাও করিনি

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



জীবনে এমন দিন দেখতে হবে কল্পনাও করিনি

মালদ্বীপের কাছে ৫ গোলে হারের খবরটা শুনে ভীষণ মর্মাহত হয়েছি। সত্যি বললে এমন দিন দেখতে হবে, এটা কখনো ভাবিনি।

সোনালি ফুটবলের সেই দিনগুলো যে এত দ্রুত ফিকে হয়ে আসবে, ভয়ংকর হারের খবর শুনতে হবে, এটার জন্য আমি আসলে তৈরি ছিলাম না।

কারণ আমার স্মৃতির মালদ্বীপ কখনো এত দোর্দণ্ড প্রতাপশালী হতে পারে না। মনে পড়ে ’৮৫ সালের সাফ গেমসে মালদ্বীপের জালে আমরা গোলের মহড়া দিয়েছিলাম। সেই ৮ গোলের ম্যাচে বাংলাদেশ বল নিয়ে গেলেই গোলের সুযোগ তৈরি হয়েছে। আমি করেছিলাম দুই গোল, চাইলেই হ্যাটট্রিক করতে পারি। কিন্তু মালদ্বীপের এক ফুটবলার আমার কানে কানে বলেছিল, ‘ভাই, তোমরাও মুসলমান, আমরাও মুসলমান। আর গোল না দিলে আমরা কোনো রকমে দেশে ফিরতে পারি। ’ বিশ্বাস করুন, এই কথাটা এখনো আমার কানে বাজে। আমিও আর গোলের চেষ্টাই করিনি। আমি ডিফেন্সে চলে গিয়ে কায়সার হামিদকে ওপরে পাঠিয়ে দিই এবং সে-ও এক গোল করেছিল। বাংলাদেশি ফুটবলারদের গোনার মধ্যেই তখন মালদ্বীপ ছিল না। এখন বাংলাদেশের মেয়েরা যেভাবে অন্যদের নাচাচ্ছে, তেমনি ওই মালদ্বীপের ১১ জনও আমাদের পেছনে ছুটত। আবাহনীর হয়ে মালদ্বীপের একটি ক্লাব দলের সঙ্গে খেলেছিলাম, সেই ম্যাচে ৫ গোল করেছিলাম আমি। তাদের বিপক্ষে ম্যাচ মানেই নিজেদের মধ্যে গোলের প্রতিযোগিতা।

তখন আমাদের ফুটবলের বড় জিনিসটা হলো, নিজেদের মধ্যে দলে ঢোকার প্রতিযোগিতা। একেকজন ফুটবলারর অনদত তার পজিশনে চারজনের সঙ্গে লড়াই করত দলে ঢোকার জন্য। প্র্যাকটিস করে নিজেকে ঠিক রাখতে না পারলে আমি আসলামও যে বাদ পড়ে যাব, সেই ভয় ছিল। এখনকার খেলোয়াড়দের দলে জায়গা হারানোর কোনো ভয়ও নেই। জাতীয় দলে খেলার মতো ফুটবলারই যে নেই। এত অল্পসংখ্যক ফুটবলার নিয়ে আমরা জাতীয় দল গড়ি যেখানে এখন একজন স্ট্রাইকার খুঁজে পাওয়া যায় না। গত কয়েক বছর ধরে দেশে সেরকম কোনো স্ট্রাইকার নেই। এই কোচও স্ট্রাইকারের আক্ষেপ করেছেন। অথচ এই ফুটবলাররাই নাকি নিজেদের বিশ্বসেরা মনে করে, এটা বড় ভুল। কেউ নিজেকে সেরা মনে করলে তার পক্ষে এগোনো অসম্ভব হয়ে যায়।

আরেকটি কথা হলো, এত বড় হারের জন্য আমাদেরও দায় আছে। জেলায় খেলাধুলা নেই বলে ফুটবলার উঠে আসছে না। আমি নিজেও এসেছি জেলা থেকে। ফুটবলের সংস্কারটা আমরা করতে পারিনি। নতুন কোনো ফুটবল প্রজন্ম তৈরি করতে পারিনি।


মন্তব্য