kalerkantho

রবিবার । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ । ৭ ফাল্গুন ১৪২৩। ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বোল্টের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বোল্টের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা

জীবনের প্রথম বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ২০০ মিটার দৌড়ের ফাইনালে উঠতে পারেননি। প্রথম অলিম্পিকে এথেন্সে ২০০ মিটারের হিটের প্রথম রাউন্ডেই বাদ। সেই উসাইন বোল্টই বেইজিং, লন্ডন ও রিও; তিন অলিম্পিকের ১০০ মিটার, ২০০ মিটার ও ১০০ মিটার রিলের সোনা জিতে ‘ট্রিপল ট্রিপল’ রেকর্ড গড়েছেন। নিজেই নিজেকে বলেন কিংবদন্তি, সেটা মেনে নিতে হয় অকপটে। রিও অলিম্পিকের পর প্যাট কেনি শোতে এসেই প্রথম সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছিলেন এই জ্যামাইকান। সেখানেই জানিয়েছেন ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা।

টোকিও অলিম্পিকে চোখ নেই বোল্টের। আপাতত সামনে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে ভাবনা, যেটা হবে লন্ডনে। বিখ্যাত আইরিশ সাংবাদিক প্যাট কেনির অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে বোল্ট জানালেন, এখনই কোনো প্রতিযোগিতা নিয়ে ভাবনায় মশগুল হতে চান না, ‘আগামী মৌসুমটা অন্য আরেকটি মৌসুমের মতোই হবে। এখন আমি ছুটি কাটাচ্ছি, একটু আয়েশ করছি, সহজ কিছু সময় পার করছি। অন্যান্য মৌসুম যেভাবে শুরু করি, সেভাবেই শুরু করব। ’ এই মৌসুম শেষেই রানিং শু তুলে রাখবেন বোল্ট, তার আগে ভক্তদের দারুণ কিছু দেখানো ইচ্ছাটা তীব্র তাঁর মধ্যে, ‘আমি সব সময় চেয়েছি ভক্তদের সামনে দারুণ কিছু করে দেখাতে। আমার অনুপ্রেরণার অভাব হবে না, ভক্তরাই তো আমার অনুপ্রেরণা। বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় যাব আর ভালো কিছু করে দেখাতে চাইব। ’ অবসরের পর কী করবেন বোল্ট? বিশ্বের দ্রুততম মানব বলছেন, ট্র্যাক ছাড়লেও অ্যাথলেটিকস ছাড়বেন না, ‘আমি জানি, অনেক কাজই চাইলে করতে পারব, কিন্তু ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ড ছাড়ব না। আমি জ্যামাইকায় বাচ্চাদের নিয়ে কাজ করতে চাই, হাইস্কুলের বাচ্চাদের শেখাতে চাই, আমি তাদের পেশাদার পর্যায়ে নিয়ে আসতে চাই। তবে প্রতিযোগিতাগুলো আর সমর্থকদের ভিড়—এসব খুব মিস করব। ’ শেষ মৌসুমে আরও দারুণ কিছু হলে বোল্টের না থাকার হাহাকারটা তাঁর ভক্তদের মধ্যেও যে আরও বাড়বে। মেইল অনলাইন


মন্তব্য