kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শেষ পর্যন্ত কোর্টনি ওয়ালশই

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



শেষ পর্যন্ত কোর্টনি ওয়ালশই

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বোলিং কোচ কে হচ্ছেন, তা নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) কর্মকর্তারা বরাবরই রহস্য করে এসেছেন। যদিও গত রোববার রাতের সংবাদ সম্মেলনে সভাপতি নাজমুল হাসানের দেওয়া ইঙ্গিতের সূত্র ধরে বেরিয়ে পড়া নামটি গত কয়েকদিনে মোটামুটি নিশ্চিতই হয়ে যায়।

বাকি ছিল কেবল আনুষ্ঠানিক ঘোষণাই। সবকিছু ঠিক থাকলে আজ সকালে দেশে ফিরেই বিমানবন্দরে সেটি দেওয়ার কথাও ছিল নাজমুলের। কিন্তু গোলমালটা তো বাধিয়ে দিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড (ডাব্লিউআইসিবি)। ক্যারিবীয় কিংবদন্তি কোর্টনি ওয়ালশ চাকরি করতে আসছেন বিসিবির অথচ সেই খবর কিনা তাঁদের আগেই জানিয়ে দিল অন্য কেউ! ডাব্লিউআইসিবির ঘটা করে বিবৃতি দিয়ে এই খবর জানানোর ব্যাপারটিকে তাই অদ্ভুত না বলে উপায়ও নেই কোনো!

বিসিবির জন্য নতুন করে জানানোর কিছুও অবশিষ্ট রাখেনি তাঁরা। ২০১৯ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় ওয়ানডে বিশ্বকাপ পর্যন্ত  ওয়ালশকে চুক্তিবদ্ধ করার বিষয়টিও উল্লেখিত ছিল ডাব্লিউআইসিবির বিবৃতিতে। জাতীয় দলের হেড কোচ চন্দিকা হাতুরাসিংহে, সহকারী কোচ রিচার্ড হালসাল এবং স্ট্রেন্থ অ্যান্ড কন্ডিশনিং কোচ মারিও ভিল্লাভারায়েনদের সঙ্গে বিসিবির চুক্তিও ওই বিশ্বকাপ সামনে রেখে একই বছরের ৩১ জুলাই পর্যন্ত। ক্যারিবীয় বোর্ডের দেওয়া বিবৃতির ঘন্টাখানেক পর বিসিবির সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে অবশ্য নতুন কিছুই জানার ছিল না। কারণ ডাব্লিউআইসিবির বিবৃতিতে বাংলাদেশের বোলিং কোচ হওয়া নিয়ে এই জ্যামাইকানের উচ্ছ্বসিত প্রতিক্রিয়াও ছিল, ‘বিসিবিতে বিশেষজ্ঞ বোলিং কোচ হিসেবে যোগ দিয়ে আমি রোমাঞ্চিত। ছেলেদের সঙ্গে কাজ শুরুর জন্য তর সইছে না আমার। দূর থেকে কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অনুসরণ করে বুঝেছি দারুণ প্রতিভাবান সব ক্রিকেটার আছে ওখানে। ’ এর আগে সেভাবে কোচিংয়ের সঙ্গে যুক্ত না থাকা ওয়ালশ বাংলাদেশের দায়িত্বটি নেওয়ার কারণও ব্যাখ্যা করেছেন এভাবে, ‘ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচকের কাজটি আমি ভীষণ উপভোগই করেছি। সুযোগটি দেওয়ার জন্য ওদেরকে ধন্যবাদ জানাই। অবশ্যই ওয়েস্ট ইন্ডিজ আমার ঘর, তবে প্রতিভাবান একটি দলের সঙ্গে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কোচিং সুযোগটি আমার সামনে নতুন মাত্রা নিয়েই এসেছে। এই সুযোগটি আমি তাই কিছুতেই হাতছাড়া করতে চাইনি। ’

হাতুরাসিংহের নেতৃত্বে বাংলাদেশকে আরো এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যের কথাও বলতে ভোলেননি টেস্টে ৫০০ উইকেট পাওয়া ইতিহাসের প্রথম বোলার, ‘হেড কোচ হিসেবে চন্দিকা হাতুরাসিংহে এখন পর্যন্ত অসাধারণ কাজ করেছেন। আশা করি, তাঁর সঙ্গে যুক্ত হয়ে আমি যোগ্য সহায়তাই করতে পারব এবং বাংলাদেশ ক্রিকেটের উন্নতির ধারাটিও ধরে রাখতে পারব। ’ তবে এর সবই ডাব্লিউআইসিবির বিবৃতির মাধ্যমে প্রকাশ হয়ে যাওয়াটা যে ভালোভাবে নিতে পারেনি বিসিবি, তা বোঝা গেছে মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুসের কথায়, ‘তাঁদের আগেভাগে বিবৃতি দিয়ে দেওয়াটা কিছুতেই উচিত হয়নি। ’ যদিও বিসিবির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরীর বক্তব্যে পরিষ্কার যে ওয়ালশকে পাওয়ার ক্ষেত্রে দুই বোর্ডের সমঝোতারও বড় ভূমিকা, ‘কোর্টনির সার্ভিস পাওয়ার ক্ষেত্রে বিসিবিকে যে ইতিবাচক সমর্থন জুগিয়েছে ডাব্লিউআইসিবি, সেজন্য এই সুযোগে তাঁদের ধন্যবাদও জানাতে চাই। ’ সেই সঙ্গে এই আশাবাদও ব্যক্ত করেছেন যে, ‘বাংলাদেশের ক্রিকেট পেস বোলিংয়ের ক্ষেত্রে তাঁর ইতিহাসের সেরা পর্যায় পার করছে। আমি নিশ্চিত যে কোর্টনির উপস্থিতিতে তা অন্য উচ্চতায়ই পৌঁছাবে। ’ ক্যারিবীয় ক্রিকেটের নির্বাচক হিসেবে দুই বছরের মেয়াদ শেষ করা মাত্রই বিসিবির বোলিং কোচের পদ লুফে নেওয়া ওয়ালশ ঢাকায় আসতেও বিলম্ব করছেন না। ১৭ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে ১৩২ টেস্ট খেলে ৫১৯ উইকেট নেওয়া এই সাবেক ফাস্ট বোলারের আগামীকাল রাতেই এসে পৌছানোর কথা রয়েছে। আপাতত ঢাকায় তাঁর ঠিকানা কুর্মিটোলা গলফ ক্লাব, যেখানে জাতীয় দলের অন্য বিদেশী কোচরাও থাকেন।


মন্তব্য