kalerkantho


ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ

৩ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ

 

বিশ্ব টি-টোয়েন্টিতে দুই দলই শিরোপা জিতেছে একবার করে। ইংল্যান্ড ২০১০ সালে এবং ক্যারিবীয়রা জেতে ২০১২ সালে।

টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি লড়াইয়ে ১৩ ম্যাচে ৯টিতেই জিতেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ডের জয় ৪টি। এই ফরম্যাটে নির্দিষ্ট কোনো দলের বিপক্ষে এটা ক্যারিবীয়দের সবচেয়ে বেশি জয়ের রেকর্ড। বিপরীতে ৯টি হার নির্দিষ্ট একটি প্রতিপক্ষের বিপক্ষে সবচেয়ে বেশি হারের রেকর্ড ইংল্যান্ডের।

ইংলিশদের বিপক্ষে বিশ্ব টি-টোয়েন্টিতে খেলা ৪ ম্যাচে সবকটিতে জিতেছে ক্যারিবীয়রা। সর্বশেষ মুম্বাইয়ে এবারের আসরে সুপার টেনে তারা ৬ উইকেটে হারায় ইংলিশদের।

২০৮/৮ ওয়েস্ট ইন্ডিজের দলীয় সর্বোচ্চ, ইংল্যান্ডের ১৯৩/৭। ১১৩/৫ ওয়েস্ট ইন্ডিজের দলীয় সর্বনিম্ন, ইংল্যান্ডের ৮৮।

সবচেয়ে বেশি রান ক্রিস গেইলের ৩৪৫, ইংল্যান্ডের পক্ষে সবচেয়ে বেশি রান অ্যালেক্স হেলসের ৩৪০। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের ইনিংসও গেইলের ১০০*, ইংল্যান্ডের সেরা হেলসের ৯৯।

সবচেয়ে বেশি ২৪টি ছক্কা গেইলের, ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ ১১টি ছক্কা মেরেছেন এউইন মরগান।

সবচেয়ে বেশি উইকেট রবি বোপারার ১১টি, ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে সর্বোচ্চ ১১ উইকেট নিয়েছেন ডোয়াইন ব্রাভো।

এবারের আসরে খেলা ৫ ম্যাচে একবারও প্রথমে ব্যাট করেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। পাঁচবারই রান তাড়া করেছে তারা, এর মধ্যে চারবার জিতে হেরেছে একবার (আফগানিস্তানের বিপক্ষে)। অন্যদিকে প্রথমে ব্যাট করে তিন ম্যাচে দুইবার এবং পরে ব্যাট করা দুটি ম্যাচেই জিতেছে ইংলিশরা।

টসে পাঁচ ম্যাচের প্রতিটিতে জিতেছেন ড্যারেন সামি, ইংলিশ অধিনায়ক মরগান জিতেছেন তিনবার।

এবারের আসরে ইংল্যান্ডের রান রেট ৯.১২। একমাত্র তাদের রান রেটই ৯-এর ওপরে। তালিকায় পাঁচে থাকা ক্যারিবীয়দের রান রেট ৭.৭৮। বোলিংয়ে ইংলিশ বোলারদের ৮.৬৮ ইকোনমি রেট আসরের সবচেয়ে বাজে। আর ক্যারিবীয়দের ৭.৪১ দ্বিতীয় সেরা, নিউজিল্যান্ডের পরেই।

এই আসরের সর্বোচ্চ মোট ৩৬টি ছক্কা মেরেছে ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানরা, দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইংলিশরা ছক্কা মেরেছে ৩৪টি।

আসরের সর্বোচ্চ ৬৫.৩৪ শতাংশ রান এসেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বাউন্ডারি থেকে। তাদের পেছনেই থাকা ইংল্যান্ড বাউন্ডারি থেকে রান নিয়েছে ৬২.৯৩।

 


মন্তব্য