kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


তিনি নিজেও অভিভূত

২৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



তিনি নিজেও অভিভূত

বিশ্ব টি-টোয়েন্টির এবারের আসরে কোয়ার্টার ফাইনাল বলে কিছু নেই। দুই গ্রুপে ভাগ হওয়া ‘সুপার টেন’ থেকে সেরা চার দল খেলবে সেমিফাইনালে। মোহালিতে ভারত-অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচটা তাই কার্যত হয়ে উঠেছিল ‘কোয়ার্টার ফাইনাল’। জিতলে সেমিফাইনাল, হারলে বিদায়! কঠিন এই সমীকরণে দাঁড়িয়ে কঠিন এক ম্যাচ জিতিয়ে ভারতের নায়ক বিরাট কোহলি। কাগজে-কলমে লেখা ৫ বল আগে ৬ উইকেট হাতে রেখে জয়টা সহজ মনে হতেই পারে, কিন্তু কোন পরিস্থিতি থেকে কোহলি ম্যাচটি বের করে এনেছিলেন, সেটা না দেখলে বোঝানো সত্যি কঠিন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে সাবেক ক্রিকেটার—সব জায়গায় কোহলির প্রশংসা। ৫১ বলে হার না মানা তাঁর ৮২ রানের ইনিংসটিকে কেউ কেউ বলছেন তাঁর দেখা সেরা ইনিংস। কোহলি নিজেও তো সেরা তিনের মধ্যে রাখছেন ম্যাচ জেতানো ইনিংসটি। আবেগের স্রোতে ভাসতে থাকা এই ব্যাটসম্যান বললেন, ‘নিজের ইনিংস নিয়ে কী বলব, আমি অভিভূত। এই ইনিংসটা আমার সেরা তিনের মধ্যে থাকবে। ভীষণভাবে আবেগতাড়িত এখন। ’ ১৬১ রানের লক্ষ্যে ৪৯ রানে ৩ উইকেট হারানো দলকে টেনে তোলাটা কঠিন চ্যালেঞ্জের ছিল অবশ্যই। কিন্তু তিনি তো কোহলি, চ্যালেঞ্জ নিতেই ভালোবাসেন, ‘প্রতিটা ম্যাচে চ্যালেঞ্জ থাকা দরকার। ওটাই একমাত্র আপনার খেলার উন্নতি করতে পারে। ’

তাঁর সঙ্গে ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছেন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। বারবার বড় ম্যাচে জ্বলে ওঠা কোহলির জন্য ঠিক কোন শব্দটা মানায়, খুঁজে পাচ্ছিলেন না তিনি, ‘অসাধারণ। এ ছাড়া কোনো শব্দ খুঁজে পাওয়া কঠিন। এই উইকেটে ব্যাট করা খুব কঠিন ছিল। তার ওপর যুবরাজের গোড়ালি মচকেছিল। সেই অবস্থায় অসম্ভব সব শট খেলেছে। এসব কোহলিই পারে, সবার পক্ষে সম্ভব নয়। ’ ভারতের জয়ের বিপরীতে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায়ঘণ্টা বেজে গেছে অস্ট্রেলিয়ার। ‘কোহলির ইনিংসটাতেই দল হেরেছে’—কথাটায় অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথের হতাশা টের পাওয়া যাচ্ছিল স্পষ্ট। যদিও অসাধারণ ইনিংস খেলা ভারতীয় ব্যাটসম্যানের প্রশংসা করতে ভুল হলো না তাঁর, ‘চাপের মুখে খেলা অবিশ্বাস্য এক ইনিংস। ওর জন্য পরিস্থিতি কিন্তু মোটেও সহজ ছিল না। মাঝের ওভারগুলোতে আমরা জানতাম, শুধু ওর উইকেটটা পেলেই ম্যাচ জিতব। কিন্তু সেটা হয়নি। কোহলিকে অভিনন্দন। এই ফরম্যাটে কেউ এ রকম ইনিংস খেলে দিলে অন্য দলের কিছুই করার থাকে না। ’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও চলছে কোহলি-বন্দনা। যাঁর ছায়া খোঁজা হয় কোহলির মধ্যে, সেই শচীন টেন্ডুলকার টুইট করেছেন, ‘ওহ! অনবদ্য বিরাট কোহলি। দুর্দান্ত জয়ের জন্য ভারতীয় দলকে শুভেচ্ছা। দারুণ লড়াই দেখলাম। ’ শেন ওয়ার্ন আবার লিখেছেন, ‘দারুণ ব্যাটিং। আমার দেখা অন্যতম সেরা ইনিংস। ’ সনাৎ জয়াসুরিয়া তো বুঝতেই পারছেন না, ‘কোহলি কী ধরনের ক্রিকেটার? আমি বলতে পারছি না। এক কথায় অসাধারণ!’ পিটিআই, আনন্দবাজার


মন্তব্য