kalerkantho


ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ডের লড়াই ব্যাটে-বলে

২৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ইংল্যান্ড-নিউজিল্যান্ডের লড়াই ব্যাটে-বলে

ভাবা হয়েছিল ১ উইকেট হারিয়ে মাঠে নামছে নিউজিল্যান্ড। এই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগ পর্যন্ত ব্রেন্ডন ম্যাককালামকে বাদ দিয়ে নিউজিল্যান্ড দলটাকে তো ভাবাই যায়নি।

তো সেই ম্যাককালামই যখন নেই তখন কিউইদের ঝাণ্ডা উড়াবে কে? যাঁদের কথা ভাবা হয়নি সেই মিচেল স্যান্টনার, ইশ সোধি, নাথান ম্যাককালামরাই জবাবটা দিয়ে দিলেন। বিশ্বকাপে তাঁদের এমনই দাপট যে ট্রেন্ট বোল্ট, টিম সাউদির মতো বোলাররা বেঞ্চ ছেড়ে ওঠার সুযোগই পাচ্ছেন না।

দিল্লিতে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে নিউজিল্যান্ডের প্রতিপক্ষ ইংল্যান্ডের সাফল্যে অবশ্য সেই চমক নেই। ২০১০ আসরের চ্যাম্পিয়ন দলটি ব্যাটিংয়ে শক্তিশালী। গ্রুপ পর্বের চার ম্যাচে সেই শক্তিমত্তা দেখিয়েই তারা সেমিফাইনালে। টুর্নামেন্টে এখনো পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি রান তাদের। ফিরোজ শাহ কোটলায় আক্ষরিক অর্থেই তাই ব্যাটে-বলের লড়াই হতে যাচ্ছে। আরেকটু নির্দিষ্ট করে বলা যায়, ব্যাটসম্যান বনাম স্পিনারদের লড়াই। মুস্তাফিজুর রহমানকে বাইরে রাখলে এখনো পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি কিউই বাঁহাতি স্পিনার মিচেল স্যান্টনার।

৪ ম্যাচে ৯ উইকেট তাঁর। ৮ উইকেট নিয়ে পরের অবস্থানেই লেগস্পিনার ইশ সোধি। বাঁহাতি স্পিনার স্যান্টনারকে সামলে উঠতে না উঠতেই ব্যাটসম্যানদের সোধির লেগস্পিনের সামনে কঠিন পরীক্ষা দিতে হচ্ছে। যাতে এ পর্যন্ত বেশির ভাগ ব্যাটসম্যানই ব্যর্থ। আর কি কপাল কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনের, এ পর্যন্ত যতবার টস করতে নেমেছেন, জিতেছেন সবকটিতেই। আর জিতেই ব্যাটিং নিয়েছেন। যে রানই করুক তাঁর ব্যাটসম্যানরা স্পিনারদের দাপট সঙ্গে অ্যাডাম মিলনে, মিচেল ম্যাকক্লেনাঘানদের এক-আধটু সহায়তায় ঠিকই তারা ম্যাচ বের করে নিয়েছে। দলের অভিজ্ঞ ক্রিকেটার রস টেলর অবশ্য ‘শক্তিমত্তা’র আরো একটি জায়গা দেখিয়েছেন, ম্যাককালাম পরবর্তী সময়ে সেটাও নিশ্চয় গুরুত্বপূর্ণ, ‘আমাদের ড্রেসিংরুমের পরিবেশটা দারুণ। ব্রেন্ডন নেই এমন একটা সময়ে যার যতটুকু সামর্থ্য আছে পুরোটা নিয়ে সবাই ঝাঁপিয়ে পড়তে প্রস্তুত এবং একে অন্যের সাফল্য আমরা উপভোগও করছি। ’

এদিক দিয়ে ইংলিশ দলটাও একটা ‘ইউনিটে’ পরিণত হয়েছে। গ্রুপ পর্বের চার ম্যাচের এমন একটিও নেই যেটিতে তাদের ঘাম ঝরাতে হয়নি। কোচ ট্রেভর বেইলিস সম্ভাবনা দেখছেন সেখানেই, ‘এমন কঠিন একটা ফরম্যাটে ভালো ক্রিকেট না খেলে কেউ সেমিফাইনালে উঠতে পারবে না। আমরা সেটাই করার চেষ্টা করেছি। যদিও এখনো আমি পুরোপুরি সন্তুষ্ট নই। তবে ভালো করার এই চেষ্টাটাই আমাদের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দিচ্ছে। ’ ক্রিকইনফো


মন্তব্য