kalerkantho

25th march banner

মুখোমুখি প্রতিদিন

প্লে-অফেই সুযোগ ঘুরে দাঁড়ানোর

গত সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ থেকেই জাতীয় দল এলোমেলো। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ, দক্ষিণ এশীয় গেমস হয়ে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের শেষ ম্যাচে জর্দানের কাছে ৮-০ গোলে হারে ব্যর্থতার ষোলকলা পূর্ণ। নিজেদের এই অধঃপতন নিয়েই কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে কথা বলেছেন ডিফেন্ডার নাসিরুল ইসলাম

২৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



প্লে-অফেই সুযোগ ঘুরে দাঁড়ানোর

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : জাতীয় দলের খেলা শেষে আবার নিশ্চয় ক্লাব ফুটবল নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন?

নাসিরুল ইসলাম : হ্যাঁ, সামনে তো স্বাধীনতা কাপ। মাঝখানে জাতীয় দলে খেলার জন্য শেখ রাসেলের হয়ে অনুশীলন করা হয়নি। ফিরে যেটুকু সময় পাচ্ছি কাজে লাগানোর চেষ্টা করেছি। তবে আমার খুব বেশি সমস্যা হচ্ছে না। কারণ ফিটনেসটা ধরে রেখেছিলাম।

প্রশ্ন : বিশ্বকাপ বাছাইয়ের শেষ ম্যাচে সবচেয়ে বাজে এই ফলের কী ব্যাখ্যা?

নাসিরুল ইসলাম : শেষ দিকে এসে কয়েক দফায় কোচ বদল হলো, এর একটা প্রভাব তো পড়েছেই। একজন কোচের অধীনে লম্বা সময় থাকলেই একটা দল গড়ে ওঠে। উদাহরণ দেই, আমি, জাহিদ, মামুনুল, মিঠুন, মিশুসহ আরো কয়েকজন একসঙ্গে অনূর্ধ্ব-১৭ দলে ঢুকেছিলাম। শান্টু ভাই ও বাবলু ভাইয়ের অধীনে আমরা দেড় বছর একসঙ্গে ছিলাম। তাতে যে সমন্বয়টা তৈরি হয়েছিল, গত ১০-১১ বছর ধরে তা কিন্তু টিকে আছে।

প্রশ্ন : জর্দান ম্যাচের আগে সেই দলটাই তো ভেঙে টুকরো...

নাসির : হ্যাঁ, মূল দলের ৭-৮ জন খেলোয়াড় একসঙ্গে বাইরে চলে গেলে তার একটা প্রভাব পড়বেই। এটা অস্বীকার করার উপায় নেই। যারা নিষিদ্ধ হয়েছে তাদের ছাড়াও আরো বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় দলের বাইরে ছিল। ফলে একরকম নতুন একটা দল নিয়েই আমাদের খেলতে হয়েছে, জর্দানের মতো প্রতিপক্ষের বিপক্ষে আমরা দাঁড়াতে পারিনি।

প্রশ্ন : কিন্তু যাঁরাই আপনারা ছিলেন, শতভাগ দিয়ে কি খেলতে পেরেছিলেন?

নাসির : তা বলা যাবে না। আমাদের আরো ভালো পারফরম্যান্স করার কথা। বেশ কিছু ভুল হয়েছে, তাতেই অনেক দূর পিছিয়ে গেছি। এক ম্যাচে দুটি পেনাল্টি দিয়েছি, ভাবা যায়!

প্রশ্ন : স্প্যানিশ কোচ গঞ্জালো মরেনোর কৌশলেরও সমালোচনা করছেন অনেকে, আসলে কী হয়েছিল?

নাসির : খেলোয়াড় হিসেবে আমার এ ব্যাপারে কথা না বলাটাই ভালো। আমরা চেষ্টা করেছি কোচ যেভাবে খেলাতে চেয়েছেন সেভাবে খেলার। কিন্তু ভালো ফল হয়নি।

প্রশ্ন : এই অবস্থা থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর কোনো আশা দেখছেন, সেই সাফ চ্যাম্পিয়শিপ থেকেই তো দলটা এলোমেলো...

নাসির : জুনে প্লে-অফ আছে। ওটাই আমাদের সুযোগ ঘুরে দাঁড়ানোর। তার আগে বেশ কিছু দিন সময়ও পাচ্ছি। এই সময়ে ক্লাবের হয়ে পারফর্ম করতে চাই। সেই পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে নতুন করে যদি দল করা হয় আশা করি, সেই দলটি ঘুরে দাঁড়ানোর জন্যই লড়বে।


মন্তব্য