kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ জানুয়ারি ২০১৭ । ১১ মাঘ ১৪২৩। ২৫ রবিউস সানি ১৪৩৮।


আনুষ্ঠানিকতার আরেকটি ম্যাচ

২৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



‘এবার আমরা সেমিফাইনালে ওঠার উদ্যাপনটা সেরে নিতে পারি’—দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে রুদ্ধশ্বাস জয়ের পর বলছিলেন ড্যারেন সামি। এক দিন বাদেই তাদের সামনে দাঁড়িয়ে আফগান যোদ্ধারা।

বাড়ি ফেরার আগে সঙ্গে করে কিছু নিয়ে যেতে তারা মরিয়া। তবে ফেভারিট সেই টানা তিন ম্যাচ জিতে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে ফেলা ক্যারিবীয়রাই।

বিশ্বকাপে আগের তিনটি ম্যাচেই আফগানিস্তানের হার, পয়েন্টের ঘর খালি। কিন্তু এটা লড়াকু আফগানদের ছবিটা ঠিক দেখাতে পারছে না। আগের ম্যাচেই দক্ষিণ আফ্রিকানদের তারা ভয় ধরিয়ে দিয়েছিল। ২১০ রান তাড়া করতে নেমে ২ উইকেটেই তুলে ফেলেছিল ১০৫। তার আগে ইংলিশদের বিপক্ষে কি বোলিংটাই না করল, ৮৫ রান তুলতেই ইংলিশদের ৭ উইকেট নেই। সেই আফগানরা ক্যারিবীয়দের বিপদে ফেলে একটা অঘটন ঘটিয়ে দেবে না কে বলতে পারে! আর সামিদের উৎসবের রেশে মাঠে একটু ঢিলেঢালা ভাব হলে তো কথাই নেই। অর্থহীন ম্যাচটাই তখন বেশ আলোচনার খোরাক হতে পারে। নাগপুরের পিচ বলছে স্পিনাররা এখানে সফল, নিউজিল্যান্ড-ভারত প্রথম ম্যাচের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচেও তা দেখা গেছে। আফগানরাও চার স্পিনার নিয়ে আটঘাট বেঁধেই নামছে সেখানে।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচের পুরো তিনদিন বিশ্রামও পেয়েছে তারা। আজ নতুন উদ্যোমেই তাদের ঝাঁপিয়ে পড়ার কথা। বিপরীতে শক্তি-সাফল্যে অনেক এগিয়ে থাকা উইন্ডিজদের বড় মনোবলের জায়গা হলো এই টুর্নামেন্টেই তাদের ধারাবাহিক পারফরম্যান্স। এএফপি


মন্তব্য