kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

অনেকে পারফরম্যান্স ধরে রাখতে পারে না

এসএ গেমসের পদকজয়ীসহ বিকেএসপির সাবেক ও বর্তমান কৃতী খেলোয়াড়দের সংবর্ধনা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এ উপলক্ষে পরশু বিকেএসপির আঙিনা ছিল উৎসবমুখর। বিকেএসপির বর্তমান উপপরিচালক (প্রশিক্ষণ) ও সাবেক অ্যাথলেট শামিমা সাত্তার মিমু কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে বলেছেন এ প্রতিষ্ঠানটির বর্তমান অর্জন ও সম্ভাবনা নিয়ে

২৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



অনেকে পারফরম্যান্স ধরে রাখতে পারে না

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : এবারের এসএ গেমসে বিকেএসপির যে অর্জন তাতে আপনারা কতটা সন্তুষ্ট?

শামিমা সাত্তার মিমু : আমরা অবশ্যই খুশি। বিকেএসপির ওপর যে দায়িত্বভার, খেলোয়াড়দের আন্তর্জাতিক পর্যায়ের উপযোগী করে তৈরি করে তোলা, আশা করি সেটি আমরা ভালোভাবেই পালন করতে পারছি।

সরকারের সহযোগিতা কাজে লাগিয়েই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি।

প্রশ্ন : কিন্তু সামগ্রিকভাবে এবারের এসএ গেমসে আমাদের অর্জন মাত্র ৪টি সোনা, অবস্থান পঞ্চম, তা কি সন্তুষ্ট হওয়ার মতো?

শামিমা : দেখুন, বিকেএসপির খেলোয়াড়রা অনূর্ধ্ব ১৯ বছরের। ওরা কিন্তু গিয়ে সিনিয়র খেলোয়াড়দের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। তার মধ্যে থেকেও আমাদের যে আটজন পদক জিতেছে, সেটি কম না। সামগ্রিক ফল সন্তুষ্ট হওয়ার মতো না আমিও মানি। কিন্তু এ ক্ষেত্রে বিকেএসপির কী করণীয় বলুন, আমরা একেকজন অ্যাথলেটকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্যও তৈরি করে দেই। কিন্তু বেরিয়ে কোথাও তারা সেই সমর্থনটুকু পায় না, যাতে নিজেদের আরো এগিয়ে নিতে পারে। ধরুন, ওরা বিজেএমসিতে যোগ দিল। বিজেএমসি কি পারে বিকেএসপির মতো করে সার্বক্ষণিক এই খেলোয়াড়দের অনুশীলনের মধ্যে রাখতে?

প্রশ্ন : বিকেএসপি কোন কোন খেলায় বেশি ভালো করছে বলে মনে করেন, আর ঘাটতিই বা কোথায়?

শামিমা : সরকার আমাদের যেভাবে সমর্থন করছে, তাতে আমরা খুশি।

ঘাটতির কথা তাই বলব না। তবে যেটা আমরা চাই তা হলো খেলোয়াড়দের কাছ থেকে আরো বেশি নিবেদন। তারা যেন মনপ্রাণ উজাড় করে পারফর্ম করে। দেশ তার কাছে কিছু প্রত্যাশা করে, সে যেন সেই প্রতিশ্রুতি পূরণে নিবেদিত থাকে।

প্রশ্ন : কোন খেলাগুলোতে আপনাদের প্রত্যাশা বেশি?

শামিমা : আমরা বেশ ভালো করছি আর্চারি, শ্যুটিং, সাঁতারে। হকিতেও বেশ ভালো হচ্ছে, খেলোয়াড়রা নিয়মিত জাতীয় দলে সুযোগ পাচ্ছে। যুব হকির ১২ বারের চ্যাম্পিয়ন আমরা, জাতীয় সাঁতারে আমাদের ৭৪টি পদক, জুনিয়র অ্যাথলেটিকসেও আমরা চ্যাম্পিয়ন।

প্রশ্ন : এবারের এসএ গেমসে অ্যাথলেটিকসে মাত্র দুটি ব্রোঞ্জ হলো, একজন সাবেক অ্যাথলেট হিসেবে এই দুরবস্থা আপনাকে ভাবায় না?

শামিমা : এ বিষয়ে শুধু এটুকু বলতে পারি, অ্যাথলেটিকসে আমাদের প্রত্যাশা পূরণ হচ্ছে না। একসময় শাহ আলম, বিমল চন্দ্র তরফদাররা এসএ গেমস থেকে সোনা জিতে ফিরে এসেছে। সেই অবস্থা এখন একেবারেই নেই। আমার মনে হয় অ্যাথলেটিকসের সব কিছুই আবার নতুন করে ঢেলে সাজাতে হবে।


মন্তব্য