kalerkantho


চিলি জয় আর্জেন্টিনার

২৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



চিলি জয় আর্জেন্টিনার

গোল পাননি। এমনকি নিজের স্বাভাবিক খেলাটাও খেলতে পারেননি লিওনেল মেসি। সতীর্থদের  গোলোৎসবে যেভাবে উল্লাস করলেন, মনে হচ্ছিল যেন কোনো টুর্নামেন্টের ফাইনাল জিততে চলেছেন তিনি। ‘ফাইনাল’ হয়তো না, তবে আর্জেন্টিনার জন্য চিলির বিপক্ষে ম্যাচটির গুরুত্ব ছিল অনেক। প্রথমত বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ভালো জায়গায় ছিল না, তার ওপর আবার এই চিলির বিপক্ষে হেরেই গত বছর কোপা আমেরিকার শিরোপা হাতছাড়া হয়েছিল মেসিদের। ম্যাচটা যখন সান্তিয়াগোর সেই স্টেডিয়ামে, তখন ২-১ গোলের জয়ের পর অমন উল্লাস তো করবেনই বার্সেলোনা ফরোয়ার্ড।

মধুর প্রতিশোধ যাকে বলে! বিশেষ করে ফর্মের তুঙ্গে থাকা চিলিকে তাদেরই মাঠে হারিয়ে আসাটা আর্জেন্টিনার জন্য তো বিশেষ কিছু। যদিও পারফরম্যান্সের কথা উঠলে মাঠে দাপট দেখিয়েছে স্বাগতিকরা। আলেক্সিস সানচেসদের আক্রমণ ঠেকাতে কঠিন পরীক্ষা দিতে হয়েছে আলবিসেলেস্তেদের রক্ষণভাগকে। ১১ মিনিটে তো এগিয়েই গিয়েছিল ‘লা রোজা’ ফেলিপে গুতিয়েরেসের লক্ষ্যভেদে। কর্নার থেকে উড়ে আসা বলে হেড করে চিলিকে এগিয়ে নেন এই মিডফিল্ডার। পিছিয়ে পড়া আর্জন্টিনা ঘুরে দাঁড়াতে সময় নেয়নি। ২০ মিনিটে সফরকারীদের সমতায় ফেরান আনহেল দি মারিয়া। চিলির বক্সের মধ্যে এভার বানেগার ছেড়ে দেওয়া বল ডান পায়ের বাঁকানো শটে লক্ষ্যভেদ করেন প্যারিস সেন্ত জার্মেই উইঙ্গার। মিনিট চারেক পর আবারও গোলোৎসবে মাতে দুইবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা। বিশ্বকাপ বাছাইয়ে প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে নায়ক বনে যান রাইটব্যাক গাব্রিয়েল মেরকাদো। দি মারিয়ার চমত্কার ভলি নিকোলাস ওতামেন্দির হেডে পান মেসি, বার্সেলোনা ফরোয়ার্ডের হাঁটুতে লেগে আসা বল ভলিতে জালে জড়ানা মেরকাদো।

সমতায় ফিরতে মরিয়া চিলি একের পর এক আক্রমণ চালিয়েছে আর্জেন্টিনার রক্ষণে। কিন্তু সফরকারীদের কড়া রক্ষণ ও সুযোগ নষ্টে পায়নি গোলের দেখা। আর্জেন্টিনাও তো কম সুযোগ পায়নি। আগুয়েরোর শট চলে গেছে পোস্ট ঘেঁষে, এসেকিয়েল লাভেজ্জি মেরেছেন বারের ওপর দিয়ে। যদিও এগিয়ে যাওয়ার পর থেকে জেরার্দো মার্তিনোর দল খেলেছে রক্ষণাত্মক ফুটবল। আর সেই ট্যাকটিকসে সফলও আলবিসেলেস্তেরা। স্বস্তির হাওয়াও ফিরেছে আর্জেন্টিনা ক্যাম্পে। মেসিদের বাঁধভাঙা আনন্দ যেন তারই প্রকাশ। ম্যাচ শেষে বার্সেলোনা তারকা নিজের অনুভূতি ভাগাভাগি করলেন এই বলে, ‘ভীষণ খুশি গুরুত্বপূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়তে পেরে। জয়টা আমাদের খুব দরকার ছিল। ’ পিছিয়ে পড়েও সতীর্থদের আত্মবিশ্বাস দেখে অভিভূত পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী, ‘খেলোয়াড়রা নিজেদের সব কিছু উজাড় করে দিয়েছে এই ম্যাচে। আমরা কঠিন এক দলের বিপক্ষে কঠিন এক মাঠে খেলেছি। আমরা আমাদের মনোবল ধরে রেখেছিলাম ১-০ গোলে পিছিয়ে পড়ার পরও। যে দলটা মোটেও সহজ প্রতিপক্ষ নয়। ’ পরের ম্যাচ ঘরের মাঠে আর্জেন্টিনা নামবে বলিভিয়ার বিপক্ষে। ওই ম্যাচেও পুরো পয়েন্ট চান মেসি, ‘মঙ্গলবার আমাদের আরো একটি কঠিন ম্যাচ বলিভিয়ার বিপক্ষে। ঘরের মাঠে কোনো পয়েন্ট ছাড়া যাবে না। ’ দি মারিয়ার বক্তব্য, ‘ঘরের মাঠে চিলি খুব শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। আমরা দারুণ একটা ম্যাচ খেলেছি, জয়টা আমাদেরই প্রাপ্য ছিল। ’

চিলি জয় করে পয়েন্ট টেবিলের চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে আর্জেন্টিনা। ৫ রাউন্ড শেষে ৮ পয়েন্ট মেসিদের। চিলি নেমে গেছে ছয় নম্বরে।

আগের ম্যাচে ‘লা পাজ’ জয় করে ফিরেছে কলম্বিয়া। গোটা ম্যাচে খেলেছে বলিভিয়া, কিন্তু ৩-২ গোলে জয়ের হাসি হোসে পেকেরম্যানের দলের। প্রথমার্ধে দুটো সুযোগ পেয়েছিল কলম্বিয়া, আর সে দুটোই কাজে লাগিয়ে ২ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে গিয়েছিল সফরকারীরা হামেস রোদ্রিগেস ও কার্লোস বাক্কার অসাধারণ গোলে। দ্বিতীয়ার্ধের ৫০ ও ৬২ মিনিটে দুই গোল করে সমতায় ফিরে খেলা জমিয়ে তুলেছিল বলিভিয়া। তবে ইনজুরি টাইমে এদউইন কারদোনার লক্ষ্যভেদে গুরুত্বপূর্ণ ৩ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে হামেসরা।

বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে অপরাজিত থাকার রেকর্ড ধরে রেখেছে ইকুয়েডর। ঘরের মাঠে তারা ২-২ গোলে ড্র করেছে প্যারাগুয়ের সঙ্গে। এনের ভ্যালেন্সিয়ার গোলে স্বাগতিকরা এগিয়ে গেলেও দারিয়ো লেসকানোর জোড়া লক্ষ্যভেদে উল্টো এগিয়ে গিয়েছিল প্যারাগুয়ে। কিন্তু ইনজুরি টাইমে আনহেল মিনার গোলে পয়েন্ট ভাগাভাগি করে মাঠ ছাড়ে ইকুয়েডর। বাছাই পর্বে ১৩ পয়েন্ট এখনো শীর্ষে ইকুয়েডর। পেরু-ভেনিজুয়েলার ম্যাচটিও ড্র হয়েছে ২-২ গোলে। এএফপি


মন্তব্য