kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


মহাপ্রয়াণ

কিংবদন্তিকে হারিয়ে শোকার্ত ফুটবলবিশ্ব

২৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



কিংবদন্তিকে হারিয়ে শোকার্ত ফুটবলবিশ্ব

‘খেলোয়াড় হিসেবে ফুটবলকে তিনি শিল্পের পর্যায়ে নিয়ে গিয়েছিলেন। ক্রুইফ এলেন এবং সব কিছুতে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনলেন। বার্সেলোনায় আধুনিক যুগ তাঁর হাত ধরেই শুরু, তিনি আমাদের পরিচয়ের বহিঃপ্রকাশ, আমরা যেভাবে ফুটবল খেলতে ভালোবাসি তিনিই সেটা নিয়ে এসেছিলেন’, কথাগুলো হুয়ান লাপোর্তার। বার্সেলোনার সাবেক প্রেসিডেন্টের সঙ্গে একমত হবেন অনেকেই। বিশ্বজুড়ে স্প্যানিশ ফুটবলের এই জয়জয়কার, পেপ গার্দিওলার হাত ধরে বার্সেলোনার এক মৌসুমে ছয় শিরোপা জয়ের রেকর্ড কিংবা তিকিতাকায় ভর করে স্পেনের প্রথম বিশ্বকাপ জয়—সবই তো ইয়োহান ক্রুইফের প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ অবদান। খেলোয়াড় হিসেবে বিশ্বের সেরাদের কাতারেই থাকবেন ক্রুইফ। আর্জেন্টিনার সাবেক কোচ সিজার মেনোত্তি তো বলেই ছিলেন, ‘এখন পর্যন্ত ফুটবলে রাজা চারজনই। ডি স্টেফানো, পেলে, ক্রুইফ আর ম্যারাডোনা। ’ তাঁর মৃত্যুতে তাই শোকাহত গোটা ফুটবলবিশ্বই। মেনোত্তি পঞ্চম যে রাজার আগমন ধ্বনির কথা বলেছেন, সেই মেসিই হচ্ছেন ক্রুইফের মস্তিষ্কপ্রসূত ‘লা মাসিয়া’র সাফল্যের উজ্জ্বলতম দৃষ্টান্ত। ক্রুইফের বিদায়ে শোকাহত হয়ে তিনিও টুইটারে লিখেছেন, ‘আরো একজন কিংবদন্তি আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। ’

ক্রুইফের মৃত্যুতে ডাচ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান ওস্তেভিন এক শোকবার্তায় বলেছেন, ‘ফুটবলে যাঁর হাত ধরে আমরা শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করেছি, তাঁর মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। নিঃসন্দেহে ইয়োহান ছিলেন ডাচ ফুটবলের শ্রেষ্ঠতম খেলোয়াড়। তিনি অনেক মানুষকে অনুপ্রাণিত করেছেন। আমরা তাঁর পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। ’ জার্মান কিংবদন্তি ফ্রাঞ্জ বেকেনবাওয়ার তো ক্রুইফের মৃত্যু সংবাদ শুনে স্তম্ভিত, ‘আমি স্তম্ভিত। ইয়োহান ক্রুইফ আর নেই! সে শুধু আমার খুব কাছের একজন বন্ধুই ছিল না, সে ছিল আমার ভাইয়ের মতো। ’

সের্হিয়ো রামোস টুইটারে লিখেছেন, ‘ফুটবলের ইতিহাসের একজন কিংবদন্তির বিদায়। এমন একজন কোচ ও খেলোয়াড় যিনি নিজের সময়ের চেয়ে অনেক এগিয়ে ছিলেন। শান্তিতে ঘুমান ইয়োহান ক্রুইফ। ’ হতে পারেন ক্রুইফ বার্সেলোনার, রিয়াল মাদ্রিদকে মাঠে লজ্জাজনক হার উপহার দিলেও এই ডাচ কিংবদন্তির প্রয়াণে মাদ্রিদের অভিজাতরাও শোকাহত, ‘শুধুই ফুটবলের নয়, ক্রীড়াঙ্গনেরই একজন কিংবদন্তি আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন। রিয়াল মাদ্রিদ ক্লাব এবং সকল ভক্তের পক্ষ থেকে আমরা তাঁর প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানাই, তাঁর পরিবারের প্রতি রইল আন্তরিক সমবেদনা। তিনি ছিলেন অসাধারণ একজন ফুটবলার যাঁকে দিয়ে গোটা একটা যুগকেই সংজ্ঞায়িত করা যায়। দিনটা ফুটবলের জন্য সত্যিই শোকের। ’ বার্সেলোনায় খেলা পর্তুগিজ তারকা লুই ফিগো টুইটারে লিখেছেন, ‘বিদেশে আমার প্রথম কোচ। আমার দেখা সেরা কোচদের একজন, আর আমার ক্যারিয়ারের খুব গুরুত্বপূর্ণ একজন ব্যক্তি। বিশাল ক্ষতি হয়ে গেল ফুটবলের। ’

ডাচ তারকা রুদ খুলিত এখনো বিশ্বাস করতে পারছেন না ক্রুইফের চলে যাওয়া, ‘আমি এখনো মেনে নিতে পারছি না। আমার মনে হচ্ছিল তিনি সেরে উঠছিলেন। নেদারল্যান্ডসের ফুটবলের বৈশ্বিক চেহারা হয়েছিলেন তিনি। তাঁর কারণেই ফুটবল মানচিত্রে আমাদের আজকের অবস্থান। আর আমার ক্যারিয়ারের জন্য তো তিনিই  ছিলেন বড় নির্ণায়ক। ’ সাবেক উয়েফা প্রেসিডেন্ট ও ফরাসি কিংবদন্তি মিশেল প্লাতিনিও মেনে নিতে পারছেন না বন্ধুর বিদায়কে, ‘ফুটবল তার সেরা খেলোয়াড়দের একজনকে হারাল আজ। আমার মন খুবই খারাপ কারণ ছোটবেলায় ইয়োহানই ছিল আমার নায়ক, আমার আইডল আর আমার বন্ধু। তাকে খুবই মিস করব আমি। তার পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা ও ভালোবাসা। ’ ইংরেজ সাবেক ফুটবলার গ্যারি লিনেকারও শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ক্রুইফকে, ‘খবরটা শুনেই খুব খারাপ লাগছে। ফুটবল এমন একজনকে হারাল, যিনি সুন্দর খেলাটাইকে আরো সুন্দর করে তোলার জন্য ইতিহাসের আর যে কারো চেয়ে অনেক বেশি অবদান রেখেছেন। ’ ক্রুইফের মৃত্যু স্পর্শ করেছে ডাচ রাজ পরিবারকেও। নেদারল্যান্ডসের রাজা উইলিয়াম-আলেক্সান্ডার শোক প্রকাশ করে বলেছেন, ‘ইয়োহান ক্রুইফের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে নেদারল্যান্ডস একজন প্রতিভাবান ও অনন্য ক্রীড়াবিদকে হারাল। তিনি ফুটবলকে সমৃদ্ধ করেছিলেন, দিয়েছিলেন নতুন চেহারা। এ ছাড়া খেলাধুলা যাতে সবাই করতে পারে, এ জন্য হৃদয়-মন  উজাড় করে দিয়েছিলেন। তিনি ছিলেন একজন ডাচ আইকন। ’

ক্রুইফ বিদায় নিয়েছেন, তবে তাঁর দর্শন থেকে যাবে। রাইনাস মিশেলের হাত থেকে যে মশাল তিনি হাতে নিয়েছিলেন, সেই আলোকবর্তিকা তো তিনি ছড়িয়ে দিয়েছেন গোটা বিশ্বেই। এপি


মন্তব্য