kalerkantho

শনিবার । ২১ জানুয়ারি ২০১৭ । ৮ মাঘ ১৪২৩। ২২ রবিউস সানি ১৪৩৮।


মুখোমুখি প্রতিদিন

শিরোপা জিতে নিজের বায়োডাটা সমৃদ্ধ করতে চাই

২০১৪ সালে ভারতীয় সুপার লিগ দিয়ে এই অঞ্চলে ফিকরু তেফেইরার আবির্ভাব। কয়েকটি ম্যাচে দুর্দান্ত খেলে এবং গোল করে এই ইথিওপিয়ান ফরোয়ার্ড নজর কাড়েন সবার। সেই সুবাদে ৩০ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকারকে নিয়ে এসেছে শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্র। বাফুফেতে রেজিস্ট্রেশন করিয়ে ৬ ফুট উচ্চতার এ ফরোয়ার্ড মুখোমুখি হয়েছেন কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের

২২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



শিরোপা জিতে নিজের বায়োডাটা সমৃদ্ধ করতে চাই

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : ভারতের পর বাংলাদেশে ফুটবল খেলতে এসেছেন। পার্থক্য কেমন দেখছেন?

ফিকরু তেফেইরা : পার্থক্য অনেক। ভারতীয় ফুটবল এক রকম ছিল, এখানে একটু ভিন্ন। ফুটবল সংস্কৃতিটাও অন্য রকম। এখানকার ফুটবলারদের কাছ থেকে আমি প্রতিদিন শিখছি। আমাদের দলে অভিজ্ঞ ও তরুণ খেলোয়াড় অনেক, ভালো খেলে তারা। এককথায় বললে, ভারতে প্রথম আসার পর আমার যে অবস্থা হয়েছিল ঢাকায় এসেও সেটা করছি। সবই আমার জন্য নতুন।

প্রশ্ন : কিন্তু ফুটবল খেলাটা তো একই...

ফিকরু : স্টাইলেও কিছু ভিন্নতাও আছে। দারুণ কোচ পেয়েছি এখানে, তাঁর কাছে শিখছি। তাঁর কাছে নতুন ধরনের কিছু প্র্যাকটিস করছি। যেভাবে প্র্যাকটিস এগোচ্ছে অবশ্যই ভালো একটা মৌসুম আমাদের সামনে অপেক্ষা করছে।

প্রশ্ন : দলের কোন বিভাগটা শক্তিশালী মনে হয়?

ফিকরু : আমাদের দলে অনেক ভালো ফুটবলার আছে। আমি যখন এসেছি তখন স্ট্রাইকিং জোনটাই শক্তিশালী বলব (হাসি)।

প্রশ্ন : আপনার লক্ষ্য?

ফিকরু : ফরোয়ার্ড হিসেবে আমার প্রথম লক্ষ্য গোল করা। শেষ পর্যন্ত শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্রকে চ্যাম্পিয়ন করাতে চাই আমি। বাংলাদেশি দলের হয়ে শিরোপা জিতে আমার বায়োডাটা সমৃদ্ধ করতে চাই। এত ভালো দল গঠন করে শিরোপা না জিতলে সেটা হবে দুর্ভাগ্যজনক।

প্রশ্ন : আরো দু-তিনটি শক্তিশালী দল আছে বাংলাদেশের ঘরোয়া ফুটবলে। সে সম্পর্কে কি ধারণা আছে?

ফিকরু : শুনেছি আরো কয়েকটি ভালো দল আছে, প্রতিদ্বন্দ্বিতা না হলে ফুটবল উপভোগ্য হয় না। শেখ রাসেলকে ট্রেবল উপহার দিতে পারলে দুর্দান্ত ব্যাপার হবে।

প্রশ্ন : আইএসএলের প্রথম আসরে অ্যাথলেটিকো ডি কলকাতার হয়ে ৫ গোল করেছিলেন। কিন্তু গত বছর চেন্নাইয়ান এফসির জার্সি গায়ে মাত্র ১টি গোল আছে...

ফিকরু : প্রথমবার বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ গোল ছিল আমার। নতুন দলে ১১ ম্যাচ খেলেও সেরকম গোল পাইনি। এই মুহৃর্তে বিশ্বে দুজন ফরোয়ার্ডকে (মেসি ও রোনালদো) দেখলে মনে হয়, গোল করা অনেক সহজ কাজ। অন্যদের জন্য কঠিন তবে জেতার জন্য প্রতিপক্ষের চেয়ে একটি গোল বেশি লাগে। একটা উদাহরণ দিই, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ শুরুর আগে লিস্টার সিটির কথা কেউ ভেবেছিল? তারা অনেক ম্যাচ জিতে এখন শিরোপার বড় দাবিদার। এটাই বলছি, ম্যাচ জিততে অনেক গোল লাগে না।


মন্তব্য