kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

হঠাৎ মনে হলো আমি অন্য জগতে চলে গেছি

কারো পৌষ মাস আর কারো সর্বনাশ একেই বলে! অবৈধ অ্যাকশনের জন্য আরাফাত সানিকে যেখানে দেশে ফিরতে হচ্ছে, সেখানে গত রাতে তাঁর জায়গায় ভারতে উড়ে গেলেন আরেক বাঁহাতি স্পিনার সাকলায়েন সজীব। তার আগে রাজশাহী থেকে ঢাকার পথে ছুটতে থাকা বাসে বসেই বিকেলে কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হলেন ঘরোয়া ক্রিকেটের পরীক্ষিত এ পারফরমার

২০ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



হঠাৎ মনে হলো আমি অন্য জগতে চলে গেছি

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : কোথায় এখন?

সাকলায়েন সজীব : এই তো ভাই, বাসে।

প্রশ্ন : বাসে কেন?

সাকলায়েন : সে তো বিরাট ইতিহাস! বাসা থেকে দুই মাইক্রোবাস ভর্তি লোক আমাকে বিমানবন্দরে বিদায় দিতে এসেছিল। কিন্তু তিন দিনের ছুটির শেষ দিন তো, তাই কোনো ফ্লাইটেই একটি টিকিটও পেলাম না। এরপর বাসের কাউন্টারে ঘুরে ঘুরেও একই অবস্থা প্রায়। তাও ভাগ্য ভালো যে দেশ ট্রাভেলসের নন-এসি বাসে একটি সিট কোনোমতে পাওয়া গেছে।

প্রশ্ন : তার মানে ঢাকায় পৌঁছে রাতের ফ্লাইট ধরার খবরটি পেয়েছেন অনেক দেরিতে?

সাকলায়েন : হ্যাঁ, তাই। সকালেই টেলিভিশনের খবরে দেখি যে আমি সানি ভাইয়ের জায়গায় যাচ্ছি। তবু নিশ্চিত ছিলাম না কারণ বিসিবি থেকে তো তখনো ফোন আসেনি। সেটি এলো দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে। সাব্বির ভাই (ক্রিকেট অপারেশন্স ম্যানেজার) ফোন দিয়ে বললেন, ‘প্রস্তুত থাকিস। আমরা বললেই রওনা দিয়ে দিস। ’ এরপর বাজারের দিকে গিয়েছিলাম। ফিরেই রওনা দেওয়ার ফোনটি পাই।

প্রশ্ন : রুদ্ধশ্বাসে ছুটতে হচ্ছে, তবু খবরটি নিশ্চয়ই দারুণ ভালো লাগার?

সাকলায়েন : তা তো বটেই। হঠাত্ বিদ্যুত্ চমকালে যা হয়, আমার ক্ষেত্রেও ব্যাপারটি তাই। হঠাত্ করে মনে হলো আমি অন্য জগতে চলে গেছি। আমার বাসায় তো রীতিমতো ঈদ লেগে যাওয়ার মতো অবস্থা।

প্রশ্ন : আরাফাতের কথা ভাবলে তো খবরটি খারাপ লাগারও। তিনিও যেহেতু আপনার মতোই স্পিনার।

সাকলায়েন : হ্যাঁ, সানি ভাইয়ের ব্যাপারটি খারাপ লাগার মতোই। কত দিন ধরে খেলছেন তিনি! ওয়ানডে বিশ্বকাপও খেলে এসেছেন। কী আর করা, কিচ্ছু করার নেই! এখন খেলার সুযোগ পেলে আমার কর্তব্য পারফর্ম করা। গত চার বছর ধরে তো এই জায়গাটিই খুঁজছিলাম। কখন সুযোগ পাব এবং কাজে লাগাব! আল্লাহর রহমতে সুযোগটি অবশেষে এলো।

প্রশ্ন : বাড়িতে ঈদ লেগে যাওয়ার কথা বলছিলেন। তা একটু বিস্তারিত শুনতে চাই।

সাকলায়েন : আমার স্ত্রী মুনমুন আক্তারের আনন্দের কথাই বলি। এই সেদিন আমাদের বিয়ের এক বছর হলো। এই এক বছরে ও আমার জন্য অনেক প্রাপ্তির ভাগ্যই যেন নিয়ে এসেছে। বিয়ের আগে তিন-চার বছরের একেকটি বিরতি দিয়ে একটি বিদেশ সফর পেতাম। আর ওকে বিয়ে করার পর এক বছরেই ভারত, জিম্বাবুয়ে ও দক্ষিণ আফ্রিকায় গেলাম। এবার জাতীয় দলের দরজাও বোধহয় ওর জন্যই খুলল! (হাসি...)।


মন্তব্য