kalerkantho

বুধবার । ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ । ১২ মাঘ ১৪২৩। ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮।


মাঠের বাইরে অন্য লড়াইয়ে পাকিস্তান

১৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



মাঠের বাইরে অন্য লড়াইয়ে পাকিস্তান

বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে আজ শুরু হচ্ছে পাকিস্তানের ২০ ওভারের বিশ্ব আসর। মাঠের দ্বৈরথের আগে অন্য রকম লড়াই করতে হচ্ছে পাকিস্তানকে।

অধিনায়ক শহীদ আফ্রিদির ‘ভারতপ্রীতি’ মন্তব্যের ঝড় এত দূর গড়িয়েছে যে আদালতে মামলা পর্যন্ত হয়ে গেছে। আর বরাবরের মতো পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটারদের সমালোচনা তো চলছেই। কঠিন এ পরিস্থিতি সামলে নিতে আফ্রিদিকে অডিও বার্তাও পাঠাতে হয়েছে নিজের বক্তব্যের পক্ষে যুক্তি দিয়ে। এ অলরাউন্ডার জানিয়েছেন, পাকিস্তানি সমর্থকদের খাটো করার মতো কিছু বলেননি বরং ‘ইতিবাচক বার্তা’ দিয়ে সমর্থকদের সম্মান জানানোর চেষ্টা করেছেন তিনি।

ভারতের নিরাপত্তাব্যবস্থায় সন্তুষ্ট হয়ে পাকিস্তান সরকার বিশ্ব টি-টোয়েন্টিতে দল পাঠাতে রাজি হয়। প্রায় এক মাস ধরে চলা নাটক শেষে ভারতে পা দেওয়ার পর নতুন বিতর্কের জন্ম দেন আফ্রিদি ‘পাকিস্তানের চেয়ে ভারতে বেশি ভালোবাসা পাই’ মন্তব্য করে। তাঁর ওই বক্তব্যে পাকিস্তানি ক্রিকেটভক্তদের ছোট করা হয়েছে, এমন অভিযোগ এনে লাহোরের এক আইনজীবী মামলা করেন পাকিস্তানের হাইকোর্টে। ইতিমধ্যে আফ্রিদির কাছে কারণ দর্শনোর নোটিশও পৌঁছে গেছে। অবস্থা বেগতিক দেখে পরশু রাতেই পাকিস্তানিদের উদ্দেশে এক মিনিট ২৯ সেকেন্ডের অডিও বার্তা পাঠিয়েছেন এ অলরাউন্ডার। ওই বার্তায় নিজের বক্তব্যের স্পষ্ট ব্যাখ্যা দিয়েছেন তিনি এভাবে, ‘আমি শুধু পাকিস্তানের অধিনায়ক না বরং এখানে এসেছি পাকিস্তানের সব জনগণের প্রতিনিধিত্ব করতে। আমার মনে হয় যদি কেউ আমার বক্তব্য ইতিবাচক দৃষ্টিতে দেখে তাহলে সে অবশ্যই আমার কথার মধ্যে পাকিস্তানি ভক্তদের ছোট করা হয় এমন কোনো কিছু খুঁজে পাবে না। ’ সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘কথাটা বলেছিলাম ইতিবাচক দিক থেকে। যদি কেউ নেতিবাচকভাবে নেয় তাহলে সে নেতিবাচক বার্তাই পাবে। আমি শুধু বলতে চেয়েছি ভারতে এসে সব সময় ভালোবাসাই পেয়েছি। ওয়াসিম আকরাম, ওয়াকার ইউনুস কিংবা ইনজামাম-উল-হকরাও বলবেন তাঁরা অনেক সম্মান পেয়েছেন এখানে। কারণ ভারতীয়রা ক্রিকেটকে পূজা করে। আপনি ইমরান ভাইকে (ইমরান খান) জিজ্ঞাসা করতে পারেন, উনিও বললেন এখানে ক্রিকেটই ধর্ম। ’

বোঝাই যাচ্ছে বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচের আগে স্বস্তিতে নেই পাকিস্তান। এশিয়া কাপে মাশরাফিদের বিপক্ষে হেরেই ফাইনাল খেলার স্বপ্ন ভঙ্গ হয়েছিল আফ্রিদিদের। বিশ্ব টি-টোয়েন্টির মঞ্চে প্রতিশোধের জন্য পাকিস্তান মুখিয়ে থাকবে কী, মাঠের বাইরের সমস্যা দূর করতেই থাকতে হচ্ছে ব্যস্ত। কঠিন এ মুহূর্তে আফ্রিদি অবশ্য পাশে পাচ্ছেন পাকিস্তানের দুই কিংবদন্তি ইমরান খান ও ওয়াসিম আকরামকে। ১৯৯২ সালের বিশ্বকাপজয়ী দলের অধিনায়ক বলেছেন, ‘আবেগের বশে মাঝেমধ্যে ক্রিকেটাররা কিছু কথা বলে ফেলে। মনে হয় ভারতে নেমে অভ্যর্থনাটা দলের ভালো লেগেছে। আফ্রিদি সেই ভালো লাগাটাই প্রকাশ করেছে। এ নিয়ে বাড়াবাড়ি করার কিছু নেই। ’ ওয়াসিমের বক্তব্য, ‘বাইরের বিষয় না ভেবে আফ্রিদির উচিত ম্যাচে মন দেওয়া। ’ ভারতের সাবেক অধিনায়ক সুনীল গাভাস্কার আবার বলছেন, ‘আফ্রিদি এই কথাটা বলে ভারতীয়দের সমর্থন আদায় করে নিল। ’ পিটিআই


মন্তব্য