kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৯ জানুয়ারি ২০১৭ । ৬ মাঘ ১৪২৩। ২০ রবিউস সানি ১৪৩৮।


নিজেদের ফেভারিট ভাবছে না বাংলাদেশ

১৬ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



নিজেদের ফেভারিট ভাবছে না বাংলাদেশ

কলকাতা থেকে প্রতিনিধি : বিশ্বকাপ তো আর এই প্রথম খেলছে না বাংলাদেশ। পাকিস্তানের বিপক্ষেও নয় প্রথম লড়াই। আজ ইডেন গার্ডেন্সের দ্বৈরথের আবহে তবু ১৯৯৯ সালের বিশ্বকাপ চলে এলো যেন কেমন করে। বিশ্বমঞ্চের সেই লড়াইয়ে জয় বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য কতটা টার্নিং পয়েন্ট, সংবাদ সম্মেলনে উঠল এমন প্রশ্নও।

অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা দেন এর প্রথাগত উত্তর, ‘১৯৯৯-এর বিশ্বকাপ আমাদের ক্রিকেটের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ওই বিশ্বকাপে আমরা দুটি ম্যাচ জিতেছিলাম। একটি পাকিস্তান ও অন্যটি স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে। আমরা যারা তরুণ ছিলাম তারা ওই ম্যাচ থেকে অনেক অনুপ্রেরণা পেয়েছিলাম। ক্রিকেটের কথা বললে সেই সময়টি অবশ্যই আমাদের টার্নিং পয়েন্ট। ’ ভুল বলেননি বাংলাদেশ অধিনায়ক। আর গত বছর দেড়েক চলছে ক্রিকেট পরাশক্তিদের কাতারে উত্তরণের কাল। কিন্তু পরের ১৬ বছরে একটি বারের জন্যও পাকিস্তানকে কোনো ফরম্যাটে হারাতে পারেনি। অথচ সেই বাংলাদেশেরই কিনা সীমিত ওভারের ক্রিকেটে পাকিস্তানের বিপক্ষে সর্বশেষ পাঁচ ম্যাচে শতভাগ জয়ের রেকর্ড। আজ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচে তাই সিংহভাগের ফেভারিট মাশরাফির দলই।

‘ফেভারিট’ শব্দে অবশ্য মাশরাফির ঘোরতর আপত্তি। এ ফরম্যাটের কারণে সেটি আরো বেশি করে, ‘আমাদের সেরা প্রস্তুতি নেওয়ার চেষ্টা করছি। অবশ্যই আমরা জিততে চাই। ভালো খেলতে চাই। কিন্তু ফেভারিট কথাটা আমরা অবশ্যই আনতে চাই না। টি-টোয়েন্টি খেলায় কোনো ফেভারিট নেই। ’ একটু যেন প্রতিপক্ষকেই এগিয়ে রাখেন তিনি, ‘যদি ইতিহাস দেখেন টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তান আমাদের চেয়ে অনেক ভালো দল। কিন্তু শেষ দুটি ম্যাচ যদি দেখেন তাহলে দেখবেন, আমরা ওদের থেকে ভালো ক্রিকেট খেলতে পারব। ’

তাই বলে আত্মবিশ্বাস থাকবে না, তা নয়। আর তার উত্স কেবল পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ না, ধারাবাহিকভাবে ভালো খেলা। আজকের ম্যাচে সেটি কাজে লাগবে বলে দাবি মাশরাফির, ‘হ্যাঁ, আত্মবিশ্বাস তো রয়েছেই। এক বছর ধরে আমরা ওয়ানডেতে দারুণ ক্রিকেট খেলছি। টি-টোয়েন্টি সব সময় আমাদের জন্য কঠিন। শেষ তিন-চার সপ্তাহ আমরা টি-টোয়েন্টিতেও ভালো ক্রিকেট খেলছি। বেশ আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেলেছি। এ আত্মবিশ্বাস আমাদের কাজে লাগবে। ’ অধিনায়ক ভীষণ উল্লসিত তামিম ইকবালের ফর্মে। আর ইডেনের ভিন্ন ধরনের উইকেটেও আপত্তি নেই তাঁর, ‘বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ থেকেই তামিম খুব ভালো ছন্দে আছে। এটা আমাদের জন্য ভালো। আমরা শুধু তামিমকেই না, সব ব্যাটসম্যানকে জ্বলে উঠতে দেখতে চাই। এখানকার উইকেট ঘরের মাঠ থেকে অনেক ভালো। এশিয়া কাপে আমরা সিমিং উইকেটে খেলেছিলাম। এখানে ফ্ল্যাট উইকেট পাচ্ছি। ’

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ অভিযান বড় হোঁচট খায় সন্দেহজনক বোলিং অ্যাকশনের কারণে আরাফাত সানি ও তাসকিন আহমেদ অভিযুক্ত হলে। প্রথমজন এরই মধ্যে চেন্নাইতে পরীক্ষা দিয়ে এসেছেন। তাসকিনও কলকাতায় দলের সঙ্গে যোগ দেন কাল সন্ধ্যায়। দুজনই যে আজকের ম্যাচের একাদশ নির্বাচনের বিবেচনায় থাকতে পারবেন, দুপুরেই তা জানিয়ে দেন মাশরাফি, ‘সানি পরীক্ষা দিয়ে আমাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে। তাসকিন আজ (কাল) সকালে পরীক্ষা দিয়েছে। সন্ধ্যার মধ্যেই তার ফিরে আসার কথা রয়েছে। উইকেট, কন্ডিশন ও প্রতিপক্ষ বিবেচনায় নিয়ে আমরা একাদশের পরিকল্পনা করব। ’ ইডেন গার্ডেন্সের উইকেটের ব্যাপারে ধারণা পেতে আইপিএলের ম্যাচ সাহায্য করেছে বলে জানান মাশরাফি, ‘এখানে অনেক সময় ধীরগতির টার্নিং উইকেট দেখা যায়। বিশ্বকাপে ব্যাটিং সহায়ক উইকেট পাওয়া যাবে। আমরা উইকেট দেখে কম্বিনেশন ঠিক করবো। ’


মন্তব্য