kalerkantho


মুখোমুখি প্রতিদিন

হকিতে নৌবাহিনী অপরাজেয় দল হয়ে উঠবে

পারফরম্যান্সের কারণে জাতীয় দল থেকে বাদ পড়া মামুনুর রহমানই কাল স্বাধীনতা দিবস হকির ফাইনালে পার্থক্য গড়ে দিয়েছেন। নৌবাহিনীর ৫-১ গোলের জয়ে ৩ গোল এই পেনাল্টি কর্নার স্পেশালিস্টের। কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে নিজের এই পারফরম্যান্স নিয়েই কথা বলেছেন তিনি

১৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



হকিতে নৌবাহিনী অপরাজেয় দল হয়ে উঠবে

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : জাতীয় দল থেকে বাদ পড়েই এমন পারফরম্যান্স, নিজেকে প্রমাণের দায় ছিল কি?

মামুনুর রহমান : কারো সঙ্গে আমার আলাদা সুসম্পর্ক নেই। দলে ফিরতে হলে আমাকে খেলা দিয়েই ফিরতে হবে, এটাই জানি। সেদিক থেকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ আমার আজকের এই পারফরম্যান্স।

প্রশ্ন : তার মানে দলে ফেরার দাবিটা জানিয়ে রাখলেন?

মামুনুর : না, আমার দাবি জানানোর কিছু নেই। ফেডারেশনের কর্মকর্তারা, নির্বাচকরা নিশ্চয় দেখেছেন আমার খেলা। তাঁদের যদি উপলব্ধি হয় আমাকে ফেরানো উচিত, তাহলে নিশ্চয় ফেরাবেন।

প্রশ্ন : এটা তো ঠিক, আজ (কাল) পেনাল্টি কর্নারেই ৩ গোল, কিন্তু এই পিসি স্পেশালিস্ট মামুনুরকে তো অনেক দিন দেখা যায়নি।

মামুনুর : হ্যাঁ, এটা ঠিক। তবে গত বেশ কিছুদিন আমি পিসি নিয়েছিও কম। নতুনরা উঠে আসছে, ওদের সুযোগ দেওয়ার বিষয়টি আমার মাথায় ছিল। আর দলে তো শুধু পিসি স্পেশালিস্ট হিসেবেই আমি ছিলাম না। সর্বশেষ লিগে সর্বোচ্চ গোলদাতা হইনি, কিন্তু সেরা খেলোয়াড় হয়েছি। সেটা আমার সার্বিক পারফরম্যান্সের কারণেই।

প্রশ্ন : কিন্তু শেষ দিকে আপনার ফিটনেস নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল।

মামুনুর : ফিটনেস নিয়ে প্রশ্ন থাকলে সবগুলো ম্যাচে পুরো ৭০ মিনিট করে আমি খেলেছি কী করে? শুধু খেলিইনি, দলকে চ্যাম্পিয়নও করিয়েছি। আমার মনে হয় না ফিটনেসটা বড় কোনো সমস্যা ছিল। এসএ গেমসের ক্যাম্পে থাকতেই আমি ওজন কমিয়েছিলাম। বাদ পড়ার পর আরো কমিয়েছি। সব মিলিয়ে প্রায় আট কেজি ওজন কমিয়েছি আমি।

প্রশ্ন : এ টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই তো নৌবাহিনী ফেভারিট ছিল, আসরের প্রতিদ্বন্দ্বিতা নিয়ে কী বলবেন?

মামুনুর : হ্যাঁ, আমাদের দলে জাতীয় দলের খেলোয়াড় বেশি বলে আমরাই ফেভারিট ছিলাম। কিন্তু এটা ভুললে চলবে না যে এই প্রথম নৌবাহিনী স্বাধীনতা দিবস হকিতে চ্যাম্পিয়ন হলো। সেনাবাহিনী সব সময়ই শক্তিশালী দল। জাতীয় দলের বেশ কয়েকজনকে নিয়ে বিমানবাহিনীও শিরোপার জন্য লড়েছে। প্রতিদ্বন্দ্বিতা নিয়ে তাই প্রশ্ন নেই। আমরা এগিয়ে গেছি মূলত খেলোয়াড়দের খুব ভালো সমন্বয়ের কারণে।

প্রশ্ন : গত বছর রাসেল মাহমুদ, সারোয়ার হোসেন, মইনুল ইসলামসহ জাতীয় দলের বেশ কয়েকজনকে দলে নিয়েছে নৌবাহিনী, এর পর থেকেই আপনারা সাফল্যের ধারায় রয়েছেন।

মামুনুর : হ্যাঁ, সেরা দল গড়ার এ উদ্যোগের জন্য নৌবাহিনীর কাছে কৃতজ্ঞ। খেলোয়াড়দের তারা প্রচুর সুযোগ-সুবিধাও দিচ্ছে। সামনে আরো খেলোয়াড় নেওয়া হবে। দেখবেন হকিতে নৌবাহিনী একটা অপরাজেয় দল হয়ে উঠবে।


মন্তব্য