kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ জানুয়ারি ২০১৭ । ১১ মাঘ ১৪২৩। ২৫ রবিউস সানি ১৪৩৮।


মুখোমুখি প্রতিদিন

ঘুরে দাঁড়ানো ছাড়া আর তো পথ খোলা নেই

এএফসি কাপের প্রথম দুই ম্যাচে ৬ গোল হজম করে পুরোপুরি ব্যাকফুটে শেখ জামাল। এরই মধ্যে কাল ঢাকায় পা রেখেছে তৃতীয় ম্যাচের প্রতিপক্ষ সেলাঙ্গর এফসি। মালয়েশিয়ার এই দলের বিপক্ষে কালকের ম্যাচের প্রসঙ্গেই কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে কথা বলেছেন শেখ জামাল কোচ শফিকুল ইসলাম মানিক

১৪ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ঘুরে দাঁড়ানো ছাড়া আর তো পথ খোলা নেই

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : শেখ জামাল কি পারবে এই ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে?

শফিকুল : এখন আমাদের ঘুরে দাঁড়াতেই হবে। কারণ সামনে আর কোনো রাস্তা খোলা নেই।

ঘরের মাঠে ম্যাচ। বাস্তবতা বুঝে খেলোয়াড়রা যদি শতভাগ ঢেলে দিতে পারে এই ম্যাচে, তবেই ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভব। আপনি ওদের অনেক শিখিয়ে-পড়িয়ে দিতে পারবেন, কিন্তু মাঠে যদিও ওরা উজ্জীবিত হয়ে খেলতে না পারে তাহলে কোনো কিছুতেই কাজ হবে না।

প্রশ্ন : খেলোয়াড়দের মনোযোগে ঘাটতি বলছেন?

শফিকুল : ওদের নিয়ে আমি কোনো অভিযোগ করছি না। কিন্তু বাস্তবতাটা দেখুন। এই খেলোয়াড়রাই সামনের মৌসুমে শেখ জামালের হয়ে খেলবে কি না আমি জানি না। ওদের অনেকেই ভেতরে ভেতরে অন্য দলে নাম লিখিয়ে ফেলেছে। ওদের ক্লাবগুলো এখন ওদের অনুশীলনে ডাকছে, আরেক দিকে জাতীয় দলের ক্যাম্প, এদিকে আবার শেখ জামালের খেলা। মানসিকভাবে ওরা একেবারেই সুস্থির অবস্থায় নেই। পুরো টুর্নামেন্টটাও তো খেলতে পারবে না। এর মধ্যেই স্বাধীনতা কাপের ঘোষণা দিয়ে দিয়েছে ফেডারেশন।

প্রশ্ন : আগামীকালের প্রতিপক্ষ সেলাঙ্গরকে কতটা শক্তিশালী মনে করছেন?

শফিকুল : ওরা যথেষ্ট শক্তিশালী। ফিলিপাইনের মাঠে গিয়ে ওরা ড্র করে এসেছে, আবার নিজেদের মাঠে ১-০তে হেরেছে ট্যাম্পাইনসের কাছে। ওদের আসলে এই গ্রুপের যে কারো বিপক্ষেই ভালো করার সামর্থ্য আছে। সবচেয়ে বড় কথা, দলটি লিগের মাঝপথে এই ম্যাচ খেলতে এসেছে। দলের সংগঠন বা বোঝাপড়া নিয়ে হয়তো কোচকে এখন আর ভাবতে হচ্ছে না। যেটা আমার বড় ভাবনার বিষয়। বিদেশির সঙ্গে স্থানীয়দের সেই সমন্বয়টাই এখনো গড়ে ওঠেনি পুরোপুরি।

প্রশ্ন : এই গ্রুপে শেষ পর্যন্ত কোথায় দেখছেন নিজেদের?

শফিকুল : আমার মন বলছে ঘুরে দাঁড়ানোটা অসম্ভব না। দুটি ম্যাচে ভালো ফল পুরো ছবিটা পাল্টে দিতে পারে। কিন্তু মনের এ কথাটা আমি মুখে বলতে পারছি না। কারণ আমার দল ৪ গোলে হেরেছে, ঘরের মাঠে সর্বশেষ ম্যাচেও জিততে পারেননি। কিন্তু এটাও বাস্তবতা যে এখনো আমাদেও ৪টি ম্যাচ হাতে আছে। ভালো করতে পারলে যেকোনো অবস্থানেই থাকা সম্ভব।

প্রশ্ন : খেলোয়াড়দের ব্যাপারে নিশ্চয়তা থাকলে আর কিছু না হোক এএফসি কাপের ম্যাচগুলো আপনাদের প্রাক-মৌসুম প্রস্তুতিতে তো অন্তত কাজে দিতে পারত?

শফিকুল : তা তো ঠিকই। কিন্তু পরিস্থিতি আমাদের নিয়ন্ত্রণে নেই যে।


মন্তব্য