আরো কুয়াশায় ঢেকে গেল পাকিস্তানের-334649 | খেলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১১ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৩ জিলহজ ১৪৩৭


আরো কুয়াশায় ঢেকে গেল পাকিস্তানের অংশগ্রহণ

১১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



আরো কুয়াশায় ঢেকে গেল পাকিস্তানের অংশগ্রহণ

ধর্মশালা থেকে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ কলকাতায় সরিয়ে এনেও ঠিক অচলাবস্থা কাটছে না। কারণ যেখান থেকে নিজেদের পুরুষ ও মহিলা ক্রিকেট দলের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার নিশ্চয়তা চেয়ে আসছে পাকিস্তান, সেখান থেকে এখনো কোনো সাড়া-শব্দ নেই। যে কারণে ওই দল দুটির ভারতে যাওয়ার দিনক্ষণ পিছিয়েই চলেছে কেবল। যদিও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) কিংবা বিশ্ব টি-টোয়েন্টির আয়োজক আইসিসির তরফ থেকে প্রতিনিয়তই নিরাপত্তার বিষয়ে আশ্বস্ত করা হচ্ছে। কিন্তু পাকিস্তান চাইছে, নিশ্চয়তা আসুক ভারত সরকারের তরফ থেকে।

সেটি যতক্ষণ না আসছে, ততক্ষণ দল না পাঠানোর সিদ্ধান্তে অনড় পাকিস্তান। ভারত সরকারের কাছ থেকে নিরাপত্তার নিশ্চয়তা আগের দিনই চেয়ে রেখেছিলেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রেসিডেন্ট শাহরিয়ার খান। গতকাল একই কথা শোনা গেছে খোদ সে দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চৌধুরী নিসারের মুখ থেকেও। তিনি সাফ বলে দিয়েছেন, ভারতীয় সরকার ‘প্রকাশ্যে’ নিরাপত্তা নিশ্চিত না করা পর্যন্ত বিশ্ব টি-টোয়েন্টি খেলতে পাকিস্তানের পুরুষ ও নারী ক্রিকেট দল ভারতে যাবে না। তাঁর ভাষায়, ‘আইসিসি ও বিসিসিআই খুবই সহযোগিতাপূর্ণ। কিন্তু ভারত সরকারের পক্ষ থেকে নিরাপত্তার নিশ্চয়তাই আমাদের কাছে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এখন পর্যন্ত সেটি আমরা পাইনি।’ ভেন্যু পাল্টে কলকাতায় নিয়ে আসার ব্যাপারটিকে সাধুবাদ জানালেও নিরাপত্তা ইস্যুতে এখনো পাকিস্তানের সন্তুষ্ট না হওয়ার বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেছেন, ‘ভারতে পাকিস্তান দলের প্রতি হুমকি আছে। কিছু কিছু গোষ্ঠী তো পাকিস্তানের ম্যাচ ব্যাহত করার হুমকিও দিচ্ছে। এই অবস্থায় আমরা কী করে খেলতে পারি? আমরা তাই দলকে ভারতে খেলতে যেতে ছাড়পত্র দেওয়ার মতো অবস্থায় নেই। ভারতের সরকারের কাছ থেকে লিখিত নিশ্চয়তা না পাওয়া পর্যন্ত আমরা আমাদের দলকে ভারতে যেতে দিচ্ছি না। হুমকির মধ্যে কিভাবে খেলা হতে পারে? ইডেন গার্ডেন্সে এক লাখ লোক ধরে। কী হবে যদি কোনো এক জায়গা থেকে ঢিল ছোড়া হয়? আমরা শুধু সমান সমান লড়াইয়ের ক্ষেত্রই দাবি করছি।’ এই অবস্থায় মনে হচ্ছে না যে পাকিস্তানের পক্ষে বিশ্ব টি-টোয়েন্টির ওয়ার্ম আপ ম্যাচটি খেলা সম্ভব। যেটি আগামীকাল বেঙ্গালুরুতে নির্ধারিত ছিল। যদিও বিশ্বকাপে তাদের প্রথম ম্যাচটির এখনো ঢের দেরি। ১৬ মার্চের সেই ম্যাচটিও কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে। যে ম্যাচে বাছাই পর্ব পেরিয়ে আসা বাংলাদেশকেই পাওয়ার কথা পাকিস্তানের। এরপর ১৯ মার্চের মহারণ! এপি

মন্তব্য