বিশ্বকাপ শ্যুটিংয়ে ভালো করতে চাই-332342 | খেলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

বুধবার । ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৩ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৫ জিলহজ ১৪৩৭


মুখোমুখি প্রতিদিন

বিশ্বকাপ শ্যুটিংয়ে ভালো করতে চাই

এসএ গেমসে পদকজয়ী সেনাবাহিনীর খেলোয়াড়দের সংবর্ধনায় স্বাভাবিকভাবেই মধ্যমণি ছিলেন শাকিল আহমেদ। সেনাবাহিনীর একমাত্র সোনাজয়ী যে তিনিই। সংবর্ধনার অনুভূতি নিয়েই কালের কণ্ঠ স্পোর্টসের মুখোমুখি হয়ে কথা বলেছেন তিনি

৫ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



বিশ্বকাপ শ্যুটিংয়ে ভালো করতে চাই

কালের কণ্ঠ স্পোর্টস : সেনাবাহিনীর সংবর্ধনার মধ্যমণিই ছিলেন আপনি, কেমন উপভোগ করলেন?

শাকিল আহমেদ : অনেক ভালো ছিল অনুষ্ঠানটি। স্বয়ং সেনাবাহিনী প্রধান উপস্থিত ছিলেন। তিনিই তো আমাদের মূল অভিভাবক। আমাদের কাছ থেকে সরাসরি সব কথা শুনেছেন, কী করলে ভালো হবে, কোথায় ঘাটতি আছে... এসব। আমরা বলেছি সেনাবাহিনী যেভাবে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে, এটা বজায় থাকলেই সামনে আরো ভালো কিছু উপহার দিতে পারব।

প্রশ্ন : পিস্তল শ্যুটিংয়ে সেনাবাহিনীর সমর্থনের কথা নিশ্চয় আলাদাভাবেই বলবেন...

শাকিল : তা তো অবশ্যই। পিস্তলের গুলির দাম রাইফেলের চেয়ে বেশ বেশি। ফেডারেশনেরও এই ব্যয়ভার বহন করা কঠিন হয়ে যায় অনেক সময়। এবার এসএ গেমসের প্রস্তুতিতে অবশ্য তারা কোনো ঘাটতি রাখেনি। বলতে পারেন সেনাবাহিনীর সমর্থনের কারণেই আজ আমি পিস্তল শ্যুটার, আর ফেডারেশনের সহযোগিতাতেই এসএ গেমসে আমার এই সাফল্য।

প্রশ্ন : ১০ মিটার পিস্তল আপনার মূল ইভেন্ট, কিন্তু সেটিতেই কিছু হলো না, জোড়া সোনা হাতছাড়া হওয়ার আফসোস হয় না?

শাকিল : হয় না আবার, খুবই আফসোস হয়। আমার দুর্ভাগ্য ওই ইভেন্টটার আগে আগে অসুস্থ হয়ে গেলাম। খেলতেই পারলাম না ভালোভাবে। নইলে আমি নিজেও দারুণ আত্মবিশ্বাসী ছিলাম এই ইভেন্টে সোনা জয়ের ব্যাপারে। অবশ্য এখন এটাই ভাবতে হবে, যা যাওয়ার গেছে, সামনের সুযোগগুলো যেন কাজে লাগাতে পারি।

প্রশ্ন : ১০ মিটার রাইফেলে আব্দুল্লাহেল বাকী ও শোভন চৌধুরীকে নিয়ে বিশেষ প্রশিক্ষণ হবে বিদেশি কোচের অধীনে, সোনাজয়ী হিসেবে আপনিও কি তেমন দাবি রাখেন না?

শাকিল : আমাদের নিয়েও ফেডারেশনের পরিকল্পনা আছে। সব মিটিংয়েই এটা আলোচনা হয়। নিশ্চয় সামনেই পিস্তল শ্যুটারদের নিয়ে তেমন ক্যাম্প শুরু হবে। বিদেশি কোচও আসতে পারেন, আমি হতাশার কিছু দেখছি না।

প্রশ্ন : বাকী-শোভনরা তৈরি হবেন অলিম্পিকের জন্য, অলিম্পিক নিয়ে আপনার নিজের কী ভাবনা?

শাকিল : আমারও স্বপ্ন আছে অলিম্পিক ঘিরে। আর তা শুধু অংশ নেওয়া নয়, অলিম্পিক থেকেও আমি পদক জিততে চাই। সে জন্য নিজেকে আমার তৈরিও করতে হবে। এই অলিম্পিকে নিশ্চয় খেলা হবে না, কিন্তু পরের অলিম্পিকের জন্য আমি ধাপে ধাপে তৈরি হতে চাই।

প্রশ্ন : এসএ গেমসের পরের ধাপ তাহলে কী?

শাকিল : এসএ গেমসের পরে অনেক কিছুই আছে। আমি এখন ভাবছি বিশ্বকাপ নিয়ে। বিশ্বকাপে এখনো জুনিয়র পর্যায়ে খেলার বয়স আছে আমার। তাতে ভালো করার সুযোগও আছে আমার। যত দ্রুত সম্ভব তার জন্য আমি প্রস্তুতি শুরু করব।

মন্তব্য