kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মেসির শেষ আর্জেন্টিনাতেই

৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



মেসির শেষ আর্জেন্টিনাতেই

বার্সেলোনাকে ভাসাচ্ছেন সাফল্যের বানে। কাতালান ক্লাবটির মূল দলে জায়গা পাওয়ার পর থেকে লিওনেল মেসি পরিণত হয়েছেন প্রাণভোমরায়।

কত প্রস্তাব যে এসেছে ইউরোপের বড় ক্লাবগুলো থেকে, হিসাব নেই। লোভনীয় প্রস্তাব এক তুড়িতে উড়িয়ে দিয়ে সব সময় বলে এসেছেন, ‘অবসর নিতে চাই বার্সেলোনায়’। সেই মেসিই আর্জেন্টাইন ম্যাগাজিন ‘এল গ্রাফিকো’তে দেওয়া সাক্ষাত্কারে শোনালেন অন্য কথা! ইচ্ছা তাঁর আর্জেন্টিনায় অবসর নেওয়ার।

অবশ্য এবারই যে প্রথমবার এমনটা বলেছেন, তা নয়। এর আগেও শৈশবের ক্লাব নিউয়েলস ওল্ড বয়েজে অবসর নেওয়ার কথা শুনিয়েছিলেন আর্জেন্টাইন খুদে জাদুকর। নতুন করে আবারও আর্জেন্টিনায় ফেরার ইচ্ছা পোষণ করলেন বার্সেলোনা ফরোয়ার্ড, ‘ক্যারিয়ারটা আর্জেন্টিনায় শেষ করার ইচ্ছা আছে আমার। খুব ভালো লাগবে এটা করতে পারলে। কিন্তু জানি না কখন কিংবা কবে সেটা ঘটবে। ’ তাহলে ফুটবলকে কবে বিদায় বলবেন মেসি? উত্তরটা পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী ছেড়ে দিলেন শরীরের ওপর, ‘কোনো লক্ষ্য ঠিক করিনি। তবে আমার শরীর যত দিন সায় দেয়, তত দিন খেলার ইচ্ছা। যখন জানব সময় হয়ে গেছে, সিদ্ধান্তটা নিয়ে ফেলব। ’

সেই ১৪ বছর বয়সে বার্সেলোনার একাডেমি লা মাসিয়ায় যোগ দেওয়ার পর থেকে মেসি কাতালুনিয়ার শহরটিতে। রেকর্ডের পর রেকর্ড গড়ে বার্সেলোনার ট্রফিকেসে যোগ করেছেন একের পর এক শিরোপা। ক্লাব ফুটবলে সাফল্যের বৃষ্টি ঝরলেও জাতীয় দল আর্জেন্টিনার জার্সিতে শিরোপা না জেতার হাহাকার। এখনো যেকোনো শিরোপা জেতাতে পারেননি লাতিন দেশটিকে। না জেতার আক্ষেপে খুব পোড়েন ‘এলএমটেন’, ‘খুব ভেঙে পড়ি আর্জেন্টিনা হেরে গেলে, কারণ আমি জানি ম্যাচটা আমাদেরই জেতা উচিত। বিশ্বকাপ ও কোপা আমেরিকা জিততে আমরা সব কিছু করেছি। ’

ফুটবলপাগল আর্জেন্টাইনরা তো আর এসব যুক্তি মানতে রাজি নন। বিশ্বকাপ কিংবা কোপা আমেরিকার ফাইনালে উঠলেও তাই এখনো মেসির নামে দুয়ো দেয় ক্ষুব্ধ সমর্থকরা। আর্জেন্টাইন পত্রিকা ধুয়ে দেয় ‘অক্ষম’ মেসিকে। চিলির বিপক্ষে কোপা আমেরিকার ফাইনাল হারের পর তো এক পত্রিকা এও দাবি করেছিল, সমালোচনার চাপ সইতে পারছেন না মেসি, তাই জাতীয় দল থেকে অবসর নেওয়ার চিন্তা করছেন বার্সেলোনা তারকা। মেসি অবশ্য এসব সমালোচনায় কান দেয় না একেবারেই, বললেন, ‘একেবারই পাত্তা দেই না। নির্দিষ্ট কিছু পত্রিকা যেসব কথাবার্তা বলে আমি সেগুলো কানে লাগাই না। আমার দুশ্চিন্তার জায়গাটা আসলে যখন একটা ম্যাচ ফুটবল বাদ দিয়ে বিশ্লেষণ করা হয় নির্দিষ্ট কোনো এক মুহূর্ত দিয়ে। ’ মার্কা


মন্তব্য