শ্রীলঙ্কাকে হারালেই ফাইনাল নিশ্চিত-330703 | খেলা | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১২ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৪ জিলহজ ১৪৩৭


শ্রীলঙ্কাকে হারালেই ফাইনাল নিশ্চিত ভারতের

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

১ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



শ্রীলঙ্কাকে হারালেই ফাইনাল নিশ্চিত ভারতের

এশিয়া কাপের ফতুল্লা পাট আগেই চুকেছে। সূচিতে থাকা সত্ত্বেও কোনো দলই আর অত দূর যাচ্ছে না। অবশ্য টি-টোয়েন্টির সূচিতে টুর্নামেন্ট শুরু হয়ে গেলে পড়ে অনুশীলনের অত বাধ্যবাধকতা থাকেও না। থাকবে কি, ম্যাচ খেলে গভীর রাতে হোটেলে ফেরার পরের দিনটা শক্তি ফিরে পাওয়ার কাজেই ব্যয় হয়ে যায়। কাল তাই আর প্র্যাকটিস করেনি শ্রীলঙ্কা, যাদের জন্য আজকের ম্যাচটা এশিয়া কাপে টিকে থাকার জিয়নকাঠি। তাদের প্রতিপক্ষ ভারত অবশ্য লম্বা সময়ই অনুশীলন করেছে, টানা দুই ম্যাচ জিতে ফাইনালের রেসে কয়েক পা এগিয়ে থাকার ফুরফুরে মেজাজে।

আজ জিতলে ভারতের ফাইনালে ওঠা নিশ্চিত হয়ে যাবে। সে ক্ষেত্রে নিজেদের শেষ ম্যাচে আরব আমিরাতের কাছে হারলেও সমস্যা নেই মহেন্দ্র সিং ধোনির। অবশ্য সে ম্যাচের এমন ফল প্রত্যাশা কেউ করছেনও না।

এবারের এশিয়া কাপের পঞ্চম দল আমিরাতকে নিয়ে তারা নিজেরা ছাড়া আর কেউ ভাবছে না। কিন্তু বাকিরা সবাই ভাবনায় নিজেদের সঙ্গে অন্য তিন প্রতিপক্ষকে নিয়েও। বলার অপেক্ষা রাখে না চিন্তাটা ভারতেরই যা একটু কম, বাকিদের চিন্তার অন্ত নেই। আজ হারলে পাকিস্তানের বিপক্ষে নিজেদের শেষ গ্রুপ ম্যাচটা বাঁচা-মরার লড়াই হয়ে যাবে শ্রীলঙ্কার জন্য। আবার নেট রান রেটের জটিল অঙ্কে শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার জয়ও অর্থহীন হয়ে যেতে পারে।

অগত্যা জয়েই চোখ এশিয়া কাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। কিন্তু সে মিশনে দলের সবচেয়ে বড় তারকাকেই সম্ভবত পাচ্ছে না শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের কাছে হারের পর সংবাদ সম্মেলনে তেমন আশঙ্কার কথাই জানিয়েছিলেন লাসিথ মালিঙ্গার অনুপস্থিতিতে দলটিকে নেতৃত্ব দেওয়া অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ, ‘লাসিথ খুবই গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার। কিন্তু দুর্ভাগ্যের ব্যাপার হলো এশিয়া কাপের বাকি অংশে ওকে পাব কি না জানি না।’

শ্রীলঙ্কার ঘরে যখন দুশ্চিন্তার মেঘ, তখন জোড়া সুখবর ভারতীয় তাঁবুতে। চোটের কারণে পাকিস্তানের বিপক্ষে খেলতে না পারা শিখর ধাওয়ান পুরোপুরি সুস্থ হয়ে নেট করেছেন কাল। মোহাম্মদ আমিরের ইয়র্কারে পায়ের আঙুলে যে চোট পেয়েছিলেন রোহিত শর্মা, ডাক্তারি পরীক্ষায় সে চোট গুরুতর নয় বলেই জেনেছে ভারতীয় দল। তার মানে সেরা একাদশ গড়তে অন্তত ইনজুরিকে আমলে নিতে হচ্ছে না ধোনিকে।

পারফরমারের অভাবও নেই তাঁর দলে। বাংলাদেশ ম্যাচে যেমন দলকে জিতিয়েছেন রোহিত শর্মা, পাকিস্তানের বিপক্ষে কাজটা করেছেন বিরাট কোহলি। আবার বোলিংয়ে যেখানে রবিচন্দ্রন অশ্বিনকেই ভাবা হয়েছিল ভারতের মূল ভরসা, সেই তাঁর কাজই কমিয়ে দিয়েছেন আশিস নেহরা ও জসপ্রীত বুমরাহ। অভিজ্ঞ আর সুইংয়ে শুরুতেই উইকেট তুলে নিচ্ছেন ৩৬ বছর বয়সী আশিস নেহরা। আর সেই অস্ট্রেলিয়া সিরিজ থেকেই অদ্ভুত অ্যাকশনে প্রতিপক্ষের পিলে চমকে দিচ্ছেন বুমরাহ। তাতে নিজের ঘাড় থেকে দায়িত্বের বোঝা নেমে যাওয়ায় বরং খুশিই অশ্বিন, ‘আশিস খুব ভালো বোলিং করছে। বুমরাহর অ্যাকশনও ধন্দে ফেলে দিচ্ছে প্রতিপক্ষকে। গত কয়েক বছর এটারই অভাব ছিল দলে।’

মন্তব্য