kalerkantho


স্কয়ারের কুল দখল করে আছে বাজারের সিংহভাগ

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



স্কয়ারের কুল দখল করে আছে বাজারের সিংহভাগ

স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেডের কারখানা

২০০৬ সাল থেকে দেশে ‘কুল’ ব্র্যান্ডের ডিওডোরেন্ট বা বডি স্প্রে বাজারজাত শুরু করে স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেড। এই এক যুগ দেশি ব্র্যান্ড হিসেবে কুলকে বিদেশি ব্র্যান্ডের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করতে হয়েছে। ধীরে ধীরে ব্র্যান্ডটি দেশের সুগন্ধিপ্রিয় মানুষের কাছে পরিচিত এক নাম হয়ে উঠেছে। দেশের বাজারে ব্র্যান্ডটির ছয় রকমের বডি স্প্রে রয়েছে—ব্লু প্যাশন, সিট্রাস বিট, সেইন্ট, ক্ল্যাসিক, ইগনাইট এবং প্রোভোক। সব কয়টিই পাওয়া যায় দেড় শ মিলিলিটারের প্যাকে। দাম ২২০ টাকা।

কুলের বডি স্প্রে উত্পাদিত হয় পাবনার স্কয়ার টয়লেট্রিজ লিমিটেডের স্প্রে ডিভিশন কারখানায়। এটি দিনে অন্তত ২৪ হাজার ইউনিট বডি স্প্রে তৈরিতে সক্ষম। ‘স্টেট অব দ্য আর্ট টেকনোলজি’সমৃদ্ধ স্বয়ংসম্পূর্ণ ফ্যাসিলিটিতে এই বডি স্প্রে তৈরি হয়ে থাকে।

কুল বডি স্প্রে একটি বেশ চাহিদা সম্পন্ন পণ্য। অনেক বিদেশি পণ্যের ভিড়েও এই পণ্যটি সবচেয়ে বেশি মার্কেট শেয়ার নিয়ে আছে এবং বাজারে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক দোকানে এর উপস্থিতি রয়েছে।

 কুলের মান নিয়ন্ত্রণ করা হয় কঠোরভাবে। আর এ কাজটি কুল করে থাকে নিজস্ব অভিজ্ঞ ও দক্ষ কর্মীদের দিয়ে। এ জন্য তাদের রয়েছে আলাদা মান নিয়ন্ত্রণ বিভাগও। পণ্যের মান, কারখানার পরিবেশ ও ঝুঁকি হ্রাসের কারণে আইএসও সনদও রয়েছে কুল ব্র্যান্ডের।

দেশের বাজারের পাশাপাশি এখন প্রতিষ্ঠানটি চাইছে কুল ব্র্যান্ডের বডি স্প্রে বিদেশেও রপ্তানি করতে। এ জন্য কাজও শুরু করেছে তারা।

কুল বডি স্প্রের পাশাপাশি কুল ব্র্যান্ডের রয়েছে শেভিং ফোম, শেভিং ক্রিম, ডিও ট্যালক, আফটারশেভ লোশন ও আফটার শেভ জেল-এর মত পণ্যও।

 



মন্তব্য