kalerkantho


বিদ্যুৎসাশ্রয়ী এসি তৈরি হচ্ছে দেশেই

সওদাপাতি প্রতিবেদক   

২২ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০



বিদ্যুৎসাশ্রয়ী এসি তৈরি হচ্ছে দেশেই

উইন্ডো, স্প্লিট, পোর্টেবল, সেন্ট্রাল—নানা ধরনের এসি আছে বাজারে। ব্র্যান্ডও আছে অনেক।

দেশেও তৈরি হচ্ছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তির এসি। কিনতে চাইলে আগে থেকে এগুলোর গঠন, ব্যবহারবিধি, ভালোমন্দ ইত্যাদি জেনে রাখলে সুবিধা হবে। এসির বিস্তারিত নিয়ে সাজানো হয়েছে আজকের সওদাপাতি

 

গাজীপুর মহাসড়ক দিয়ে যেতে চন্দ্রায় এসে দেখা মিলবে সুদৃশ্য এক ভবন। এর ওপরে ওয়ালটনের বড় একটি সাইনবোর্ড। এটিই দেশীয় ইলেকট্রনিক পণ্য প্রস্তুতকারী ওয়ালটনের কারখানা। ফ্রিজ, এসি, মোটরসাইকেল, টিভি, ল্যাপটপ, হোম ও ইলেকট্রিক্যাল অ্যাপ্লায়েন্স তৈরির জন্য বিশাল এলাকাজুড়ে ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের বড় বড় শেডের নিচে গড়ে উঠেছে কয়েকটি কারখানা। এসব কারখানার গোড়াপত্তন হয় ২০০০ সালে। শুরুতে এখানে পণ্য সংযোজন হতো। সময়ের বিবর্তনে সংযোজন থেকে এখন ওয়ালটনের কারখানায় কয়েক শ ইলেকট্রনিকস ও ইলেকট্রিক্যাল পণ্য উৎপাদন হচ্ছে।

এসিসহ অন্যান্য পণ্য তৈরিতে যেসব উপকরণ প্রয়োজন হয় তার কাঁচামাল আমদানি করে কারখানায় পূর্ণাঙ্গ পণ্য হিসেবে প্রস্তুত করা হয়। তবে ফ্রিজ, এসির মূল যন্ত্র কম্প্রেসর এত দিন জার্মানি থেকে আমদানি করত ওয়ালটন। সম্প্রতি কম্প্রেসর প্লান্টও স্থাপন করেছে ওয়ালটন।

৬ এপ্রিল চন্দ্রায় নবনির্মিত ওয়ালটন কম্প্রেসর উৎপাদন কারখানা উদ্বোধন করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন কারখানা কমপ্লেক্সে প্রায় ১৬ লাখ বর্গফুট নিয়ে স্থাপন করা হয়েছে এই কম্প্রেসর প্লান্ট। রয়েছে স্টিল, জিংক, অ্যালুমিনিয়াম ও কপার কাস্টিং এবং ফাউন্ড্রি। আরো আছে টেস্টিং ও মেটাল প্রসেসিং সিস্টেম ও আরএনডি (গবেষণা ও উন্নয়ন) বিভাগ।

ওয়ালটন হাইটেক পার্ক ঘুরে দেখা মিলবে পরিবেশবান্ধব আর৬০০এ গ্যাসযুক্ত গ্রিন রেফ্রিজারেটর উৎপাদন ইউনিট, এলইডি টেলিভিশন, এয়ারকন্ডিশনার, সিলিং ফ্যান, টেবিল ফ্যান, দেয়াল ফ্যান, রাইস কুকার, ব্লেন্ডার, ইলেকট্রিক সুইচ সকেট, রিচার্জেবল ব্যাটারি, গ্যাস স্টোভ ও অন্যান্য হোম অ্যাপ্লায়েন্সেসের উৎপাদন ইউনিট।

ওয়ালটন হাইটেক পার্ক সূত্র জানায়, ওয়ালটনের পণ্যবহরে যোগ হয়েছে বিশ্বের সর্বাধুনিক বিদ্যুৎসাশ্রয়ী ইন্টেলিজেন্ট ইনভার্টার কম্প্রেসর প্রযুক্তি। এত দিন স্যামসাং, এলজি, শার্পসহ বৈশ্বিক ইলেকট্রনিক ব্র্যান্ডগুলো বিদ্যুৎসাশ্রয়ী ইনভার্টার প্রযুক্তির ইলেকট্রনিক পণ্য উৎপাদন করলেও এখন ওয়ালটন অপেক্ষাকৃত সাশ্রয়ী দামে এসব পণ্য উৎপাদন শুরু করেছে। এই কারখানা চালুর মাধ্যমে বিশ্বে ১৫তম এবং এশিয়ায় অষ্টম কম্প্রেসর উৎপাদনকারী দেশ হিসেবে বাংলাদেশের নাম লেখাল ওয়ালটন।

ওয়ালটন আরঅ্যান্ডডি বিভাগের প্রধান তাপস কুমার মজুমদার বলেন, ‘এখন আমাদের এসিতে একটি প্রডাকশন লাইন আছে। আরো দুটি লাইন চালু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। গত বছরের তুলনায় আমাদের এ বছর বিক্রি ৩০ শতাংশ বাড়বে বলে আশা করছি। বাণিজ্য মেলায় আমরা ইনভার্টার প্রযুক্তির এসি দেখিয়েছি। এ বছর আরো দুটি নতুন মডেলের ইনভার্টার এসি আসবে। ’

ওয়ালটন সোর্সিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের নির্বাহী পরিচালক প্রকৌশলী আশরাফুল আম্বিয়া বলেন, ‘বাংলাদেশে ওয়ালটন ইউএনডিপি, ইউএসএইড ও পরিবেশ অধিদপ্তরের আর্থিক সহযোগিতা ও তত্ত্বাবধানে নিজস্ব কারখানায় স্থাপন করেছে এসি উৎপাদন লাইন। ’

ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক ও বিপণন বিভাগের প্রধান এমদাদুল হক সরকার বলেন, ‘কয়েক বছর ধরে সাশ্রয়ী দামে এয়ারকন্ডিশনার গ্রাহকের হাতে তুলে দিয়ে বাজারে শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে ওয়ালটন। অবস্থান আরো সুসংহত করতে চলতি বছর ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। উচ্চমানের পণ্য এবং বিক্রয়োত্তর সেবা দিয়ে আমরা গ্রাহকের মন জয় করব। ’

৩৬ মাসের সহজ কিস্তিতে পণ্য কেনার সুবিধা দিচ্ছে ওয়ালটন। সারা দেশে ৬৫টি সার্ভিস সেন্টার ও ৩০০টিরও বেশি সার্ভিস পয়েন্টের মাধ্যমে বিক্রয়োত্তর সেবা দিচ্ছে ওয়ালটন। বিক্রয়োত্তর সেবায় যুক্ত রয়েছেন প্রায় তিন হাজার প্রকৌশলী ও টেকনিশিয়ান।

 


মন্তব্য