kalerkantho


মাদক ও বাল্যবিয়ে রুখবই

শাহীন আকন্দ   

১৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০



মাদক ও বাল্যবিয়ে রুখবই

শ্রীপুর উপজেলা শাখা শুভসংঘের নতুন কমিটির বন্ধুরা

মাদক ও বাল্যবিয়ে রোধে সচেতনতা সৃষ্টি, বই পড়া, বৃক্ষরোপণ, পরিচ্ছন্নতা অভিযান, অসুস্থ, দারিদ্র্য পীড়িত ও অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়ানোসহ সামাজিক নানা কর্মকাণ্ডে শিক্ষার্থী ও নানা শ্রেণি-পেশার মানুষকে একত্রে নিয়ে কাজ করে শুভসংঘ। এরই ধারাবাহিকতায় গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলাকে সর্বনাশা মাদকের হাত থেকে রক্ষা করা এবং বাল্যবিয়ে রোধ করার প্রত্যয়ে শুভসংঘের নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে। ‘শুভ কাজে সবার পাশে’ স্লোগানে এই উপজেলায় যাত্রা শুরু করল শুভসংঘ। গত ২ মার্চ দুপুরে শ্রীপুর ডাকবাংলোয় (জেলা পরিষদের ডাকবাংলো) আয়োজিত আলোচনাসভায় শুভসংঘের প্রতিটি শুভ উদ্যোগের সঙ্গে সর্বাত্মক সহযোগিতাসহ সব কাজে সম্পৃক্ত থাকার প্রতিশ্রুতি দেন শ্রীপুর থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) জাবেদুল ইসলাম ও ওসি (তদন্ত) শেখ সাদি। এ ছাড়া এতে যুক্ত হন শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ জনপ্রতিনিধি ও সমাজসচেতন ব্যক্তিরা। পরে ৬৬ সদস্যের শ্রীপুর উপজেলা শাখা কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির প্রধান উপদেষ্টা হয়ে এর সঙ্গে সম্পৃক্ত হন জাবেদুল ইসলাম। কমিটির অন্য উপদেষ্টারা হলেন—শেখ সাদি, লিয়াকত আলী দুলাল, এমদাদুল হক, শফিকুল ইসলাম, মাজাহারুল ইসলাম হিরন, সেলিম হাসান, মাহবুুব হাসান, গোলাম মাওলা রনি, আখতারুজ্জামান, শামীম আহমেদ, মুনতাছির আকন্দ আলিফ, সবুজ, মাহমুদুল হাসান রনি, রেদোয়ানুল করিম হামীম, আবীর হাসান শান্ত এবং শাওন হাসান।

শ্রীপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে আয়োজিত সভায় ওসি জাবেদুল ইসলাম বলেন, “কালের কণ্ঠ’র মতো পাঠকপ্রিয় পত্রিকার সংগঠন শুভসংঘ যেমন শুভ কাজে সবার পাশে থাকে, আমিও শুভসংঘের প্রতিটি শুভ উদ্যোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকতে চাই।” মাহবুব হাসান বলেন, ‘সর্বনাশা মাদকের ভয়াবহতায় আজ আমরা দিশাহারা। সবাইকে সচেতন হতে হবে এবং এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। শুভসংঘে সম্পৃক্ত হয়ে আমরা সব বন্ধু একসঙ্গে কাজ করব। অশুভ সব কিছুর বিরুদ্ধে আমাদের যুদ্ধ চলবে।’

অন্য বক্তারা বলেন, ‘এমন একটি প্ল্যাটফর্ম পেয়ে আমরা আনন্দিত। শুভসংঘের মাধ্যমে আমরা সর্বনাশা মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক ও পারিবারিক আন্দোলন গড়ে তুলব এবং সমাজ থেকে বাল্যবিয়ে দূর করব।’

আরো বক্তব্য দেন শেখ সাদি, মাজাহারুল ইসলাম হিরন, কাইয়ুম শেখ, নাদিয়া নাজনীন প্রমুখ। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বন বিভাগের কর্মকর্তা সিদ্দিকুল ইসলাম, শ্রীপুর প্রেস ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম সোহাগ, কেন্দ্রীয় শুভসংঘের দপ্তর সম্পাদক সোহেল রানা স্বপ্ন।

সভা শেষে সর্বসম্মতিক্রমে বাবুর আলীকে সভাপতি ও শরিফুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করে নতুন কমিটি গঠিত হয়। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন—সহসভাপতি হারুন অর রশিদ রতন, বেলায়েত হোসেন, মজিবুর রহমান, মফিজুর রহমান বাবুল ও পিন্টু আকন্দ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শারফিল ইসলাম শিমুল, নাদিয়া নাজনীন, কাইয়ুম শেখ ও সজীব আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুম পাঠান, সহসাংগঠনিক সম্পাদক সজীব মণ্ডল ও সেজুতী আক্তার, দপ্তর সম্পাদক আমির হোসেন, সহদপ্তর সম্পাদক হৃদয় আহমেদ, প্রচার সম্পাদক দীপু আহমেদ, সহপ্রচার সম্পাদক রবিউল ইসলাম ও ফাহরিয়াজ জিসান, অর্থ সম্পাদক শাহাবুদ্দিন, সহ-অর্থ সম্পাদক ইলিয়াস মৌমিত ও আশরাফি ইসলাম অর্পিতা, সাহিত্য সম্পাদক আফরিন, সাংস্কৃতিক সম্পাদক রাশিদুল ইসলাম, সমাজকল্যাণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম, ক্রিড়াবিষয়ক সম্পাদক মোস্তাক হাসান, নারীবিষয়ক সম্পাদক মেহেরীন আফরীন মিশু, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক রাকিবুল হাসান রুদ্র্র, আপ্যায়ন সম্পাদক সানজিদা ইসলাম সৌরভী, বিতর্কবিষয়ক সম্পাদক রাইসুল ইসলাম তানিম এবং কর্ম ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক আজাহারুল ইসলাম। কার্যকরী সদস্যরা হলেন—মনোয়ার হোসেন মজনু, রোমান আকন্দ, সুমাইয়া, মোশারফ হোসেন সুজন, সাবরিনা তাবাছুম শাম্মী, সাইফুল ইসলাম, নিপা, বাহার আলী, অন্তরা আক্তার, বিল্লাল হোসেন, নাজমুন নেহা, দেলোয়ার হুসেন, নাঈম ইসলাম, রাকিবুল ইসলাম, দুর্জয় হোসেন নাছিম, আজহারুল ইসলাম, শাহাদত হোসেন, মাহফুজুর রহমান রিয়াদ এবং শাহরিয়ার হাসান ফাহিম।



মন্তব্য