kalerkantho

ময়মনসিংহ সরকারি কলেজে খাদ্যে বিষ-ভেজালবিরোধী সভা

তরুণসমাজকে সচেতন ও প্রতিবাদী হতে হবে

শারমীন সাথী   

৯ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তরুণসমাজকে সচেতন ও প্রতিবাদী হতে হবে

খাদ্যে বিষ ও ভেজালবিরোধী সচেতনতামূলক লিফলেট হাতে শিক্ষার্থীরা

‘খাদ্যে বিষ ও ভেজালের বিরুদ্ধে তরুণসমাজকে সচেতন হতে হবে। এ ব্যাপারে প্রতিবাদী হতে ভূমিকা রাখতে হবে। সুস্থ জাতি গঠনে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে’—ময়মনসিংহ সরকারি কলেজে শুভসংঘ আয়োজিত খাদ্যে বিষ-ভেজালবিরোধী মতবিনিময় সভায় বক্তারা এ কথাগুলো বলেন। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি কলেজের হলরুমে এ সভার আয়োজন করা হয়। শুভসংঘ ময়মনসিংহ শাখা ও আমরা হাতে গোনা কয়েকজন ময়মনসিংহবাসী সংগঠন যৌথভাবে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে। সভায় সভাপতিত্ব করেন কলেজ অধ্যক্ষ এম এ এম জাকির হোসেন।

এমন কর্মসূচির উদ্দেশ্য বর্ণনা করে সূচনা বক্তব্য দেন কালের কণ্ঠ’র ময়মনসিংহের নিজস্ব প্রতিবেদক নিয়ামুল কবীর সজল। তিনি বলেন, দেশে অনেক রোগবালাই এখন ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে। অনেক জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে সাধারণ মানুষ। অর্থাভাবে এদের অনেকেই চিকিৎসা করাতে পারছে না। অনেক রোগের চিকিৎসাও দেশে নেই। এ অবস্থার জন্য প্রধানত দায়ী আমাদের খাবারদাবার। খাবারের নামে আমরা অনেকেই বিষ খাচ্ছি। উপকারের পরিবর্তে এসব খাবার আমাদের জীবনকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলছে। আজকের শিক্ষার্থীরাই জাতির ভবিষ্যতের কাণ্ডারি। শিক্ষার্থীরা যদি সচেতন হয়, তাহলে দেশ ও জাতি উপকৃত হবে।

অধ্যক্ষ এম এ এম জাকির বলেন, শিক্ষার্থীরা সচেতন হলে তারা নিজেরা ভালো থাকবে। অন্যকে ভালো থাকতে সাহায্য করবে।

সভায় প্রায় আড়াই শ শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিল। তাদের সবার কাছেই খাবারের বিষ-ভেজাল সম্পর্কে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়। শিক্ষার্থী মোবারক হোসেন, ইলিয়াস আহমেদ, ফাবিহা মনোয়ারা, মেহেরুন আক্তার মীম, ইয়ামীন আক্তার ইকতি প্রমুখ শিক্ষার্থী খাদ্যে বিষ-ভেজাল বিষয়ক বিভিন্ন প্রশ্ন করেন। শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ সানোয়ারুল হক, মোহাম্মদ আমিনুল ইসলাম, মো. নাসির উদ্দিন, রেজাউল করিম, বিরাজ কৃষ্ণ বণিক প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সহযোগিতা করেন কালের কণ্ঠ’র ফুলবাড়িয়া প্রতিনিধি আব্দুল হালিম, শুভসংঘের মাঈন উদ্দিন রায়হান, বিকন ভট্টাচার্য প্রমুখ।

মন্তব্য