kalerkantho


নর্দান ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ

সেবার মানসিকতায় তৈরি হোক আগামীর চিকিৎসকরা

শুভসংঘের নতুন কমিটি

জাকারিয়া জামান   

৩০ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সেবার মানসিকতায় তৈরি হোক আগামীর চিকিৎসকরা

নর্দান ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ শাখা শুভসংঘের নতুন কমিটির বন্ধুরা

গায়ে এপ্রোন জড়িয়ে হেমন্তের সকালে নিজেদের ক্যাম্পাসে জড়ো হয়েছেন বেশ কিছু তরুণ ভবিষ্যৎ ডাক্তার, যেন একঝাঁক সাদা পায়রা। আজ থেকে নতুন করে শুরু তাঁদের এই একত্রে পথচলা। তাঁরা সবাই নর্দান ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থী। এত দিন সবাই ক্লাসে এসেছেন, আবার ক্লাস করে বাসায় ফিরে গেছেন। একসঙ্গে বসে কোনো ভালো কাজের আগ্রহ থাকলেও সুযোগ ছিল না। আজ তাঁদের সেই সুযোগ করে দিয়েছে কালের কণ্ঠ শুভসংঘ। শুভ কাজে সবার পাশে থাকার প্রত্যয়ে তাঁদের এই একত্র হওয়া।

গত ২৬ অক্টোবর বুধবার নর্দান ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজের হলরুমে শুভসংঘের নতুন কমিটি গঠন করা হয়। এটা ছিল শুভসংঘের দ্বিতীয় মেডিক্যাল কলেজ শাখা কমিটি। নতুন কমিটি গঠন সভায় উপস্থিত ছিলেন কলেজের অধ্যক্ষ ডা. শেখ আকবর হোসেনসহ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। কমিটি গঠন করার আগে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় শুভসংঘের কাজের বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয়। আলোচনায় অংশ নেন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা। এরপর সবার মতামতের ভিত্তিতে কমিটি গঠন করা হয়।

নর্দান ইন্টারন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজের চেয়ারম্যান ড. আবু ইউসুফ মো. আব্দুল্লাহকে প্রধান উপদেষ্টা করে গঠন করা নতুন কমিটির অন্য উপদেষ্টারা হলেন অধ্যক্ষ ডা. শেখ আকবর হোসেন, অধ্যাপক ডা. মো. আনোয়ার হোসেন, অধ্যাপক ডা. আবু ইউসুফ মিয়া ও অধ্যাপক ডা. ব্রি. জে. (অব.) খুরশিদ আলম। শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে সভাপতি নির্বাচন করা হয় ফাহমুদুর রহমান তনুকে এবং অবিনাশ সরকারকে সাধারণ সম্পাদক। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন—সহসভাপতি বিজন রায় ও মাহফুজুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক মারুফুর রহমান ও গাজী সালাউদ্দীন, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ বিন গনি, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক তামজীদ হাসান, কোষাধ্যক্ষ জাবেদ হোসেন, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক সঞ্চারী সরকার শ্রেয়া, সমাজকল্যাণ সম্পাদক নাজিম উদ্দীন, ক্রীড়া সম্পাদক নিরালা নেপালী ও নারীবিষয়ক সম্পাদক লামিয়া সরকার। এ ছাড়া কার্যকরী সদস্যরা হলেন সিফাত হোসেন, ইরশাদুল হক, আল-আমীন হোসেন, শামসুন্নাহার মুক্তা, দীপক দাস, মো. সিরাজুম মুনির, সনিয়া ইসলাম, সাদী মো. অদীল, সুমন মিয়া, রাফী রেজওয়ানা আলভি ও সুমাইয়া শহীদ।

শুভসংঘের কমিটি গঠন প্রসঙ্গে ড. আবু ইউসুফ আব্দুল্লাহ বলেন, ‘সরকারি মেডিক্যাল কলেজে আসনস্বল্পতা ও গ্রামবাংলার অবহেলিত বিশাল চিকিৎসাবঞ্চিত জনসংখ্যার স্বাস্থ্যসেবায় চিকিৎসকের চাহিদার কথা বিবেচনা করে নর্দান মেডিক্যাল কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয় একটি অলাভজনক ও সেবামূলক প্রতিষ্ঠান হিসেবে। শিক্ষার্থীদের চিকিৎসক হওয়ার পাশাপাশি তাদের মধ্যে সেবার মানসিকতা তৈরিতে কাজ করে যাচ্ছেন আমাদের শিক্ষকরা। আমাদের শিক্ষার্থীরা যেন বিশ্বমানের চিকিৎসক হয়ে দেশের সেবায় আত্মনিয়োগ করতে পারে সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি আমরা। এখন শুভসংঘের সঙ্গে যুক্ত হয়ে তাদের এই মনোবল আরো বাড়বে। গরিব-দুঃখী মানুষের সেবায় আত্মনিয়োগ করবে তারা।’

কলেজের অধ্যক্ষ শেখ আকবর হোসেন বলেন, ‘দেশের স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নয়নে দক্ষ চিকিৎসক তৈরির জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি, যাতে করে দেশেই ভালো চিকিৎসক তৈরি হয় এবং রোগীরা প্রয়োজনীয় সেবা পায়। এখন আমাদের শিক্ষার্থীরা এই সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হয়ে আরো বেশি করে সেবার মানসিকতা অর্জন করবে। দেশের দুর্যোগে তারা অবহেলিতদের পাশে দাঁড়াবে।’

নতুন কমিটির সভাপতি ফাহমুদুর রহমান বলেন, আমাদের সবার স্বপ্ন ভালো চিকিৎসক হওয়া, সেই সঙ্গে ভালো মানুষ হওয়া। আমরা শুভসংঘের সঙ্গে মিলে অসহায়ের পাশে দাঁড়াব। চিকিৎসাসেবায় নিজেদের বিলিয়ে দেব।

লামিয়া সরকার বলেন, মেডিক্যালে ভর্তি হওয়ার পর থেকেই কোনো একটি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হয়ে ভালো কাজ করতে চেয়েছিলাম। আজ সেই ইচ্ছা পূর্ণ হলো। সবাই মিলে কল্যাণমূলক নানা কাজে আত্মনিয়োগ করব। পড়াশোনার পাশাপাশি দেশসেবায় আমরা কাজ করব। আমরা তরুণরা যদি দেশ ও সমাজের সেবায় এগিয়ে আসি, তা হলে অন্যরাও আমাদের মতো এগিয়ে আসবে।



মন্তব্য